বিপ্লবের আইডি হ্যাক হয়েছিল: পুলিশ সুপার

Send
ভোলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৯:০৬, অক্টোবর ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৪৪, অক্টোবর ২০, ২০১৯

পুলিশের ওপর হামলাকালে ছররা গুলিতে আহত এক কিশোর স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন

ভোলায় বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে মহানবী (সা.)-কে কটূক্তি করার অভিযোগ তোলা হলেও তিনি এমন ঘটনায় জড়িত নন বলে ধারণা পুলিশের। হিন্দু ধর্মাবলম্বী এই যুবকের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে তাকে ফাঁসাতেই দুর্বৃত্তরা এ ঘটনা ঘটায় বলে প্রাথমিক প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক হ্যাকারকে আটকও করেছে পুলিশ। এছাড়া নিরাপত্তার স্বার্থে বিপ্লব চন্দ্র শুভকেও পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। রবিবার (২০ অক্টোবর) ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়ছার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভোলার সদর থানা সূত্রে জানা গেছে, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে হজরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগ ওঠে বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে। শুক্রবার বিকেলে তার ফেসবুক আইডি থেকে ফ্রেন্ডলিস্টের বেশ কয়েকজনের কাছে এ সংক্রান্ত আপত্তিকর মেসেজ আসে। বিষয়টি জানতে পেরে ওইদিন সন্ধ্যার পর বিপ্লব চন্দ্র বোরহানউদ্দিন থানায় আইডি হ্যাক হয়েছে মর্মে জিডি করতে আসেন। এরপর পুলিশ বিষয়টি তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিপ্লবকে তাদের হেফাজতে রাখেন। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ আরেক ব্যক্তিকে হ্যাকার সন্দেহে আটক করে। এরপর পুলিশ নিশ্চিত হয়, বিপ্লবকে ফাঁসাতে হ্যাকাররা ইচ্ছাকৃত এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

ভোলা

ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়ছার বলেন, ‘বোরহানউদ্দিন উপজেলার বিপ্লব চন্দ শুভ নামের এক যুবকের ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে। আমরা হ্যাকের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের আটক করেছি। শনিবার (১৯ অক্টোবর) বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর বোরহানউদ্দিন উপজেলায় তৌহিদি জনতার ব্যানারে ডাকা বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ বন্ধ করে দিতে আমরা রাতে স্থানীয় আলেমদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছেন আজকের (রবিবার) প্রোগ্রাম হবে না। কিন্তু সকাল থেকে খবর আসে সেখানে মাইকিং হচ্ছে এবং স্টেজ বানানো হচ্ছে। সেখানে গিয়ে আমরা মুসল্লিদের সঙ্গে কথা বলেছি এবং আমি নিজে সেখানে বক্তব্য দিয়েছি। তারা সবাই আমার বক্তব্য শুনেছেন। যখন আমি স্টেজ থেকে নেমে আসি তখন একদল উত্তেজিত জনতা আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমরা আত্মরক্ষার্থে একটি রুমে গিয়ে আশ্রয় নেই। যখন তারা আমাদের রুমের জানালা ভেঙে ফেলার চেষ্টা করে তখন আমরা প্রথমে শটগানের ফাঁকা গুলি ছুড়ি। এতে কাজ না হওয়ায় ওপরের দিকে গুলি ছোড়ার নির্দেশ দেই। এতে আমার জানা মতে একজন পুলিশ সদস্য বুকে গুলি লেগে গুরুতর আহত হয়েছেন। আমরা আহত অবস্থায় যাদের হাসপাতালে পাঠিয়েছি তাদের মধ্যে তিন জন নিহত হয়েছে। তবে বাকি আরও থাকতে পারে, সে বিষয়ে আমাদের কাছে তথ্য নেই।’

উল্লেখ্য, ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলা সদরের ঈদগাহ মসজিদ চত্বরে ফেসবুকে মহানবী (সা.)-কে কটূক্তির অভিযোগে তৌহিদি জনতার ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ ডাকা হয়। তবে পুলিশের হস্তক্ষেপে  সকাল ১০টার মধ্যেই সংক্ষিপ্ত মোনাজাতের মধ্য দিয়ে কর্মসূচি শেষ করা হলে পরে আসা লোকজন মোনাজাত পরিচালনাকারী দুই ইমামের ওপর চড়াও হয়। এতে বাধা দিতে গেলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয় গ্রামবাসী। প্রাণ বাঁচাতে পুলিশ গুলি ছুড়লে ৪ জন নিহত ও ১০ পুলিশসহ দেড়শতাধিক আহত হন। আহতদের বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভোলা সদর হাসপাতাল ও বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

/টিএন/এমওএফ/

লাইভ

টপ