বুলবুলের প্রভাবে সাতক্ষীরায় বৃষ্টি, প্রস্তুত ১৩৭ আশ্রয়কেন্দ্র

Send
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ১৫:২০, নভেম্বর ০৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৩৫, নভেম্বর ০৮, ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে বৃষ্টি হচ্ছেঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে সাতক্ষীরাসহ উপকূলীয় এলাকা শ্যামনগর, আশাশুনিতে শুক্রবার (৮ নভেম্বর) ভোর থেকেই আকাশ মেঘাচ্ছন্ন। সেই সঙ্গে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়া জেলার ১৩৭টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সবাইকে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়া জন্য এলাকায় মাংকিং করা হচ্ছে। একইসঙ্গে উপকূলীয় এলাকার জেলে-বাওয়ালীদের পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নদীতে মাছ ধরা থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) বেলা ১১টায় প্রস্তুতি মূলক সভা শেষে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. বদিউজ্জামান (সার্বিক) একথা জানিয়েছেন।
সাতক্ষীরা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জুলফিকার আলী রিপন বলেন, শুক্রবার ভোর ৬টা থেকে মোংলা সমুদ্র বন্দরের জন্য ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেওয়া হয়েছে। বেলা ১২টার সময় মোংলা থেকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ৫৭৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের উড়িষ্যা, পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করার আশঙ্কা রয়েছে। এর প্রভাবে শুক্রবার ভোর থেকে সাতক্ষীরাসহ উপকূলীয় এলাকার গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। শুক্রবার ভোর থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ১ মিলিমিটার এবং ১২টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত ৩ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়টি শনিবার সন্ধ্যার দিকে এ অঞ্চল অতিক্রম করতে পারে।   
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সন্ধ্যা ৭ টায় প্রস্তুতিমূলক সভা ডাকা হয়েছে।

 

/এসটি/

লাইভ

টপ