ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় উপকূলীয় জেলাগুলোতে ব্যাপক প্রস্তুতি

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০২:৫৭, নভেম্বর ০৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১১, নভেম্বর ০৯, ২০১৯

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর তাণ্ডব মোকাবিলায় উপকূলীয় জেলাগুলোতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। শনিবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাতের মধ্যে বুলবুল বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে আঘাত হানতে পারে। এ কারণে ৫-৭ ফুট পর্যন্ত উচ্চতার জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। ইতোমধ্যেই উপকূলীয় পাঁচ জেলায় বিপদ সংকেত দেওয়া হয়েছে। এসব অঞ্চলের লোকজনকে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে নানা প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা।
চট্টগ্রাম

ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় প্রস্তুতি শুরু করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। উপকূলীয় আশ্রয় কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সৈকত সংলগ্ন এলাকা থেকে মানুষ যাতে আগেই নিরাপদ অবস্থানে সরে যায়, সেজন্য মাইকিং করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্টাফ অফিসার তানভীর ফরহাদ শামীম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, ‘ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলার প্রাথমিক প্রস্তুতি হিসেবে উপকূলীয় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তাদের আশ্রয় কেন্দ্রগুলো প্রস্তত রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক। সতর্ক সংকেত বাড়লে স্থানীয় বাসিন্দারা যাতে এসব আশ্রয়কেন্দ্রে অবস্থান নিতে পারেন সেজন্যই তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের এই নির্দেশনা দিয়েছেন।এছাড়া জেলা দুযোর্গ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভা ডাকা হয়েছে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় সার্কিট হাউজে এই সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় করণীয় ঠিক করা হবে।’

কন্ট্রোল রুম খোলার পাশাপাশি উপকূলীয় এলাকার লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার জন্য মাইকিং শুরু করেছেন চসিক কর্মীরা। প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘উপকূলীয় এলাকার লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার জন্য আমরা মাইকিং শুরু করেছি। মেয়রের নির্দেশে নগরীর দামপাড়ায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানলে যাতে দ্রুত পরিস্থিতি মোকাবেলা করা যায় সেজন্য চসিকের স্বেচ্ছাসেবক, মেডিক্যাল টিমকে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে।’

কক্সবাজার

বুলবুলের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন। প্রস্তুত রাখা হয়েছে সাড়ে ছয় হাজার স্বেচ্ছাসেবক ও ৫৩৮টি আশ্রয়কেন্দ্র। এছাড়া, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বিভিন্ন সংস্থার সাড়ে চার হাজার কর্মী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যে কোনও কঠিন পরিস্থিতি মোকাবিলায় সেনাবাহিনীও প্রস্তুত রয়েছে। শুক্রবার বিকালে জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি বৈঠকে এসব তথ্য জানান জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ মো. আব্দুর রহমান জানান, ঘূর্ণিঝড়টির অবস্থান ক্রমন্বয়ে সরে যাচ্ছে। কক্সবাজার উপকূলে এই মুহূর্তে তেমন ঝুঁকি না থাকলেও পরবর্তীতে বুলবুল যদি গতিপথ পরিবর্তন করে, তখন ক্ষতিগ্রস্ত হবে মানুষ। তাই এখনও ৪ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত বহাল রাখা হয়েছে। সব ধরনের নৌযান পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত চলাচল করবে না।

জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন বলেন, ‘সব উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রস্তুতি নেওয়ার; যাতে কমতি না হয়। সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে এটি মোকাবিলা করতে হবে। জেলার সংশ্লিষ্ট সবাইকে বলা হয়েছে, যার যার অবস্থান থেকে প্রস্তুতি নিতে। আশ্রয়কেন্দ্র এবং মেডিক্যল টিমও প্রস্তুত করা হয়েছে।’ তিনি আরও জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় দুই লাখ ৬২ হাজার টাকা, ২০৬ মেট্রিক টন চাল, ৯৭টি মেডিক্যাল টিম চাওয়া হয়েছে। বাতিল করা হয়েছে সব সরকারি কর্মকর্তার ছুটি। এছাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সতর্ক বার্তা দেওয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরা

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন। দুর্যোগের সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি কমাতে ও মানুষের জানমালের নিরাপত্তায় জেলার ২৭০টি আশ্রয় কেন্দ্র খুলে দেওয়া হয়েছে। ১২শ’ স্কুল-কলেজ বিকল্প আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে প্রস্তুত রয়েছে। ছুটি বাতিল করা হয়েছে সরকারি চাকরিজীবীদের। দুর্যোগকালীন জরুরী সাড়াদানের জন্য প্রত্যেক উপজেলায় খোলা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। শুক্রবার বিকাল ৫টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সভায় জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের শনিবার বেলা ১১টার মধ্যে উপকূলীয় এলাকার মানুষকে নিরাপদে আশ্রয় কেন্দ্রে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করার নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে প্রত্যেক ইউনিয়নে মেডিক্যাল টিম প্রস্তুতকরণ, পর্যাপ্ত শুকনো খাবার ও খাওয়ার পানি মজুদ রাখা, দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ পরবর্তী সময়ে উদ্ধার কার্যক্রম চালানোর জন্য ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স ও স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উপকূলের ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল জানান, জেলায় ১১০ মেট্রিক টন চাল ও ৪২ হাজার টাকা মজুদ ছিল। তবে ইতোমধ্যেই ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় সরকার পর্যাপ্ত বরাদ্দ পাঠিয়েছে। স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক ও তিনজন এসিডির মাধ্যমে ৭টি উপজেলার দুর্যোগ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।

লক্ষ্মীপুর

বুলবুলের ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় জেলায় ১০০টি আশ্রয়কেন্দ্র ও ৬৬টি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় ডিসি অফিসে জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পালের সভাপতিত্বে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় প্রস্তুতি সভা করা হয়েছে। জেলার সব সরকারি চাকরিজীবীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও পুলিশ সুপার র্কাযালয়ে দুইটি কন্ট্রোল রুম ও উপজেলা পর্যায়ে চারটি করে  কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। দুর্যোগ পরবর্তী ক্ষয়ক্ষতি মোকাবিলায় ৪৫০ মেট্র্কি টন চাল, ১১ লাখ নগদ টাকা ও ৫৯৬ বান্ডেল টেউটিন রাখা হয়েছে।

পটুয়াখালী

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় জেলায় মোট ১১টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ৭০টি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। অভ্যন্তরীণ রুটে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে নৌযান চলাচল। সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কুয়াকাটাসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং করছে বিভিন্ন সংস্থার স্বেচ্ছাসেবকরা।

বুলবুলের প্রভাবে শুক্রবার ভোর থেকেই পটুয়াখালীর বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টিপাত দেখা দেয়। সকাল থেকে মাছ ধরার সব ট্রলার উপকূলে নিরাপদে আশ্রয় ফিরতে শুরু করে। সিভিল সার্জন ডাক্তার মো. জাহাঙ্গির আলম জানান, ঘূর্নিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় জেলায় মোট ৭০টি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। টিমগুলোকে নিয়ন্ত্রণের জন্য সিভিল সার্জনের কার্যালয়ে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

জেলায় মোট ৪০৩টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দুর্যোগকালীন ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১০০ মেট্রিক টন চাল, ২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা, ১৬৬ বান্ডেল টিন এবং সাড়ে তিন হাজার কম্বল মজুত রাখা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হেমায়েত উদ্দিন জানান, আশ্রয়কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত রাখা হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবকদের প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে প্রচারণা চালানো হচ্ছে। মোট ১১টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

ভোলা

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবিলায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা প্রশাসন। খোলা হয়েছে ৮টি কন্ট্রোল রুম। জেলার সড়ক-বেড়িবাঁধে স্বেচ্ছাসেবকদের প্রচার-প্রচারণা ও মাইকিং চলছে। চরাঞ্চলের লোকদের মূল ভূখণ্ডে আনতে নৌকা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ভোলার সব রুটে লঞ্চ চলাচল এবং ভোলা-লক্ষ্মীপুর ও ভেদুরিয়া-লাহার হাট রুটে ফেরী চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিক শুক্রবার সন্ধ্যার পর জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘দুর্যোগ মোকাবিলায় পর্যাপ্ত ত্রাণের ব্যবস্থা আছে। সরকারি কোষাগার থেকে নগদ ১০ লাখ টাকা, ২০ মেট্রিক টন চাল এবং ২ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার প্রস্তুত রাখা হয়েছে । প্রয়োজনে আরও ত্রাণ সামগ্রী আনা হবে। শনিবার দুপুর ১২টার মধ্যে চরাঞ্চলের সব মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনা হবে।’

বিআইডব্লিউটিএ’র সহকারী পরিচালক মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘শুক্রবার বিকাল থেকে ভোলার সব রুটে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়েছে তবে সন্ধ্যার পর ভোলা থেকে ঢাকাগামী লঞ্চগুলো ছেড়ে গেছে।’ বিআইডব্লিউটিসি’র ভোলার ফেরি ইনচার্জ মো. এমরান বলেন, ‘শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ভোলা-লক্ষ্মীপুর ও ভেদুরিয়া-লাহার হাট রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

বরিশাল

বরিশালের উপকূল এলাকায় মাইকিং করে জনসাধারণকে সতর্ক করছে ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কেন্দ্রের (সিপিপি) স্বেচ্ছাসেবকরা। দুর্যোগ মোকাবিলায় জরুরি সভা করেছে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি। শুক্রবার বেলা সা‌ড়ে ১১টায় জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে ব‌রিশাল জেলা প্রশাস‌কের স‌ম্মেলন ক‌ক্ষে সভা অনু‌ষ্ঠিত হয়। সভায় সরকা‌রি, বেসরকা‌রি ও বিভিন্ন উন্নয়ন সংগঠ‌নের প্রতি‌নি‌ধিরা উপ‌স্থিত ছি‌লেন। এ সময় জেলা প্রশাসক ‍এসএম অজিয়র রহমান জানান, ব‌রিশা‌লে ২৩২টি সাইক্লোন শেল্টার কেন্দ্র প্রস্তুত র‌য়ে‌ছে। প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী মজুত রয়েছে। ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচির বরিশালের আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. আব্দুর রশীদ জানান, ইতোমধ্যে বরিশাল জোনের ৬ হাজার ১৫০ জন সেচ্ছাসেবককে প্রস্তুত করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় বিষয়ে জনসাধারণকে অবগত করার জন্য সংশ্লিষ্ট জায়গাগুলোতে পতাকা টানানো হয়েছে। এছাড়া মাইকিংয়ে জনসাধারণ‌কে সরকা‌রি নি‌র্দেশনা মে‌নে যানমা‌লের রক্ষায় সবাইকে যার যার অবস্থান থে‌কে সহ‌যোগিতার অনু‌রোধ জান‌ানো হয়। একই সঙ্গে সরকা‌রি সং‌শ্লিষ্ট সকল কর্মকর্তা‌কে ঘূ‌র্ণিঝড় বুলবু‌লের গ‌তি‌বি‌ধি লক্ষ্য রে‌খে সে অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহ‌ণের ‌নি‌র্দেশ দেওয়া হয়।

 

/এমপি/

লাইভ

টপ