behind the news
Rehab ad on bangla tribune
 
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

একান্ত সাক্ষাৎকারে মেয়র মির্জা গোলাম কিবরিয়া‘মাদারগঞ্জ হবে একটি মডেল পৌরসভা’

জামালপুর প্রতিনিধি০৯:১৬, মার্চ ০২, ২০১৬

মাদারগঞ্জ মেয়র

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জামালপুর জেলার মাদারগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন মির্জা গোলাম কিবরিয়া কবির। আওয়ামী লীগের এই নেতার রয়েছে পারিবারিক রাজনৈতিক ঐতিহ্য। তার বড় ভাই মির্জা আজম। মেলান্দহ-মাদারগঞ্জ আসনে পর পর ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য তিনি। বর্তমান সরকারের বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বে রয়েছেন। তাদের বাবা মরহুম মির্জা আবুল কাশেম মাদারগঞ্জ উপজেলার বালিজুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন।  

৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত মাদারগঞ্জ পৌরসভার আয়তন প্রায় ১০.৭৮৮ বর্গ কিলোমিটার। ১৯৯৯ সালের ২১ ডিসেম্বর গঠিত মাদারগঞ্জ পৌরসভার অধিকাংশ এলাকাই উন্নয়ন বঞ্চিত। রাস্তা-ঘাট ভাঙাচোরা, নেই ড্রেনেজ ব্যবস্থা, নেই পানি সরবরাহের ব্যবস্থাও।

মেয়র মির্জা গোলাম কিবরিয়া কবির দলমতের ঊর্ধ্বে থেকে পৌরবাসীকে সঙ্গে নিয়ে একটি মডেল পৌরসভা গড়ে তুলতে চান। মাদারগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়ন ও নানা কর্মপরিকল্পনা নিয়ে নবনির্বাচিত মেয়রের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাংলা ট্রিবিউনের জামালপুর প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ দেব।

বাংলা ট্রিবিউন: মাদারগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে নির্বাচিত হয়ে আপনার কেমন লাগছে। কি লক্ষ্য নিয়ে মেয়র হয়েছেন?

মেয়র: মানুষের পাশে থেকে তাদের নাগরিক সুবিধা দিতেই আমি মেয়র হওয়ার স্বপ্ন দেখেছি। আমি মনে করি একজন মেয়রের ইচ্ছায় একটি পৌরসভার উন্নয়ন সম্ভব। পৌরবাসী আমাকে ভালোবাসে বলে আমি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছি। আমার মূল লক্ষ্যই হচ্ছে মাদারগঞ্জ পৌরসভাকে একটি সুন্দর-পরিচ্ছন্ন শহর হিসেবে গড়ে তোলা। পৌরবাসীকে সঙ্গে নিয়ে সেই লক্ষ্য পূরণের জন্য কাজ করে যেতে চাই।

বাংলা ট্রিবিউন: পৌর নাগরিকদের সঙ্গে আপনার সম্পৃক্ততা কেমন থাকবে?

মেয়র: পৌরবাসী যে আশা নিয়ে আমাকে নির্বাচিত করেছে জীবনের শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে হলেও সে আশাপূরণ করার চেষ্টা করব ইনশাল্লাহ।

বাংলা ট্রিবিউন: কেমন পৌরসভা গড়তে চান আপনি?

মেয়র: মাদারগঞ্জ পৌরসভার নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করে একটি মডেল পৌরসভায় রূপান্তর করতে চাই। যা জেলায় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

বাংলা ট্রিবিউন: মডেল পৌরসভা গঠনে আপনি কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ

করবেন বলে ভাবছেন?

মেয়র: সবে মাত্র আমি মেয়র হিসেবে শপথ নিয়েছি। বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপির সহযোগিতা ও পৌরসভার নির্বাচিত কাউন্সিলর ও পৌর এলাকার সচেতন নাগরিকদের মতামতের ভিত্তিতে আমার মেয়াদে একটি কর্মপরিকল্পনা তৈরি করবো। সে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হলে মাদারগঞ্জ পৌরসভা অবশ্যই একটি মডেল পৌরসভায় উন্নীত হবে বলে আশা করি। 

বাংলা ট্রিবিউন: পৌরসভার উন্নয়নে প্রতিবছর যে বরাদ্দ আসে, তা দিয়ে কতটুকু উন্নয়ন সম্ভব ?

মেয়র: আমি এবার নতুন মেয়র হয়েছি। মেয়র হিসেবে আমি আগে দায়িত্ব পালন করিনি। তবে যতদূর জানি পৌরসভায় বাৎসরিক যে বাজেট আসে তা দিয়ে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন কঠিন। এজন্য সরকারি বাজেট বাড়ানো প্রয়োজন। আমার চেষ্টা থাকবে পৌরসভার উন্নয়নে সরকার প্রতিবছর যে বাজেট দেবে তার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করা। সরকারি বরাদ্দের শতভাগ পৌরসভার রাস্তাঘাট, ড্রেন নির্মাণসহ নানা উন্নয়ন কাজে ব্যবহার করবো।

বাংলা ট্রিবিউন: পৌরসভার উন্নয়ন কাজের দরপত্র নিয়ে প্রায়ই বিভিন্ন সমস্যার কথা শোনা যায়। অভিযোগ আছে সরকারি দলের নাম করে কিছু ভূইফোঁড় ঠিকাদার যোগ্যতা না থাকা সত্বেও কাজ পেয়ে যান। এ বিষয়ে কি পদক্ষেপ নেবেন ?

মেয়র: প্রকৃত ঠিকাদাররা যাতে স্বচ্ছতার ভিত্তিতে আমার পৌরসভার উন্নয়ন কাজে অংশ নিতে পারে তার জন্য আমি কঠোর অবস্থান গ্রহণ করবো। অনভিজ্ঞ ভূঁইফোঁড় ঠিকাদারা যেন পৌরসভার উন্নয়ন কাজে অংশ নিতে না পারে সে দিকে আমার অবশ্যই সুদৃষ্টি থাকবে। যোগ্যতার ভিত্তিতে ঠিকাদারদের পৌরসভার উন্নয়মূলক সব কাজে অংশ গ্রহণের সুযোগ করে দেওয়া হবে।

বাংলা ট্রিবিউন: সড়ক নির্মাণের দু’একবছর পরপর ভেঙে যায় কেন? এ ধরনের উন্নয়ন ও নির্মাণ কাজের তদারকির ক্ষেত্রে পৌর কর্তৃপক্ষ কতটুকু দায়বদ্ধ থাকবে ?

মেয়র: অনভিজ্ঞ ঠিকাদারদের মাধ্যমে রাস্তা নির্মাণ আর নিম্নমানের বিটুমিন, পাথর ব্যবহার করার কারণে দু’এক বছরের মধ্যেই রাস্তাগুলো ভেঙে যায়। তাই আমি অভিজ্ঞ ঠিকাদারের মাধ্যমে পৌর শহরের রাস্তা ঘাটগুলো পুনঃসংস্কার করবো। কাজের গুণগত মান ও পৌরসভার উন্নয়নে আমি কখনও দুর্নীতির সঙ্গে আপোষ করবো না। পৌরসভার উন্নয়ন ও নির্মাণ কাজে পৌর পরিষদ শতভাগ দায়বদ্ধ থাকবে।

বাংলা ট্রিবিউন: আপনাকে ও মাদারগঞ্জ পৌরসভার সবাইকে বাংলা ট্রিবিউন পরিবারের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ।

মেয়র: আপনাকে ও বাংলা ট্রিবিউনকে মাদারগঞ্জ পৌরবাসী ও আমার পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ।

 

/জেবি/এসটি/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ