behind the news
Rehab ad on bangla tribune
 
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

‘সিজার’ আতঙ্কে প্রার্থীরাপ্রতীক নয়, ব্যক্তিকে প্রাধান্য দেবেন ভোটাররা

সাজ্জাদুর রহমান সাজ্জাদ, পঞ্চগড়২০:৩৫, মার্চ ২৮, ২০১৬

চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলেও ভোটাররা প্রতীক নয় ব্যক্তিকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। আওয়ামীলীগ ও বিএনপি ‘দলীয় যোগ্য প্রার্থী বাছাইয়ে ভুল করায়’ প্রতীক নয়, ব্যক্তি দেখে ভোট দেবেন বলে জানিয়েছেন পঞ্চগড় জেলার বোদা উপজেলার ভোটাররা।  

ছিটমহল সংক্রান্ত জটিলতার কারণে ৩১ মার্চ পঞ্চগড় জেলার বোদা উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে ৬টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এখানে শেষ মুহূর্তে নির্বাচনি প্রচারণা জমে উঠেছে। এ উপজেলার ২৮ জন চেয়ারম্যান, ৬৪ জন সংরক্ষিত নারী সদস্য এবং ১৯৬ জন সাধারণ সদস্য প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

ইউপি নির্বাচন-২০১৬

ভোর থেকে রাত পর্যন্ত প্রচারণা চালাচ্ছেন এসব প্রার্থীরা। চলছে উঠোনবৈঠক, পথসভা ও মাইকিং করে প্রচারণা। নির্ঘুম প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। চায়ের স্টল থেকে শুরু করে বাড়ির বৈঠকখানা সর্বত্রই এখন নির্বাচনি আলোচনায় সরব হয়ে উঠেছে গোটা উপজেলা। শহর থেকে গ্রাম সর্বত্র ছেয়ে গেছে প্রার্থীদের হরেক রকম পোস্টার আর ব্যানারে।

এ উপজেলার ২৮ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের পাঁচজন ও বিএনপির ৪ জন বিদ্রোহী প্রার্থী প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। আর বিদ্রোহী প্রার্থীরা দলীয় প্রতীকের প্রার্থীদের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছেন। বিএনপির দলীয় প্রার্থী এবং আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থীরা ‘সিজার’ (জোর করে ফলাফল পক্ষে নেয়া) আতঙ্কে ভুগছেন। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করলে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা।

আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থীরা নির্বাচনি আচরণবিধি ভঙ্গ করে নেতাকর্মী সমর্থকদের হুমকি দিচ্ছেন এবং ক্ষমতার দাপটে দিনরাত তারাই নির্বাচনি প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। নির্বাচনি সহিংসতারও আশঙ্কা করছেন কোনও কোনও প্রার্থী।

৬টি ইউনিয়নেই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দলীয় প্রার্থীর সঙ্গে উভয় দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দিতা হবে বলে জানিয়েছেন ভোটাররা।

বোদা উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৪৯ হাজার ৬শ’ ৩৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭৪ হাজার ৭শ’ ১০ এবং মহিলা ভোটার ৭৪ হাজার ৯শ’ ২৫ জন।

বোদা উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানান, ১নং ঝলইশালশিরি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবুল হোসেন নৌকা প্রতীকে, বিএনপির প্রার্থী মো. সফিকুল আলম মাস্টার ধানের শীষ প্রতীকে এবং আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. তহিদুল ইসলাম মোটরসাইকেল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

Panchagarh--
৩নং বেংহারি বনগ্রাম ইউনিয়নে
আওয়ামীলীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ আবু নৌকা প্রতীকে, বিএনপির প্রার্থী মো. আলতাফ আলী ধানের শীষ প্রতীকে, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মো. লুৎফর রহমান মোটরসাইকেল ও মো. নাজমুল হক ঘোড়া প্রতীকে এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোহা. আবুল হাসান লাঙ্গল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

৭নং চন্দনবাড়ি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মো. মনিরুল কাদের নৌকা প্রতীকে, বিএনপির প্রার্থী মো. মমতাজুল করীম জাহাঙ্গির ধানের শীষ প্রতীকে, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল ও বাবু মহানন্দ কুমার অটোরিক্সা প্রতীকে এবং জাতীয় পার্টির প্রার্থী সুলতান আহাম্মদ তোরাব আলী খান লাঙ্গল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

৮নং বোদা ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মো. মসিউর রহমান নৌকা প্রতীকে, বিএনপির প্রার্থী মো. দেলোয়ার হোসেন সাইদ ধানের শীষ প্রতীকে, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন প্রধান আনারস প্রতীকে এবং বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আবু বক্কর সিদ্দিক মহব্বত মোটরসাইকেল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

৯নং সাকোয়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সায়েদ জাহাঙ্গীর হাসান সবুজ নৌকা প্রতীকে, বিএনপির প্রার্থী মো. বেনাজির হাবিব আল আলম ধানের শীষ প্রতীকে, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মো. মোজাফফর রহমান ঘোড়া প্রতীকে, জাতীয় পার্টির প্রার্থী বাবু প্রমোদা রঞ্জন বর্মন লাঙ্গল প্রতীকে, সিপিবির প্রার্থী দীপক কুমার দে কাস্তে প্রতীকে,  জামায়াতের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রাজিউল আলম প্রধান চশমা প্রতীকে এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রাজীব কুমার বকসী আনারস প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

১০নং পাঁচপীর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের প্রার্থী মো. খায়রুল আলম খান নৌকা প্রতীকে, বিএনপির প্রার্থী মো. হাবিবুল আলম ধানের শীষ প্রতীকে, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. হুমায়ুন কবির প্রধান ঘোড়া প্রতীকে এবং জামায়াতের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে হাচিনুজ্জামান চৌধুরী আনারস প্রতীকে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

বোদা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বিজয় চন্দ্র বর্মন জানান, ছিটমহল সংক্রান্ত জটিলতা থাকায় ১০টি ইউনিয়নের মধ্যে ছয়টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। চারটি ইউনিয়নে নির্বাচন স্থগিত করেছেন নির্বাচন কমিশন। চারজন রিটার্নিং অফিসারের অধিনে ৫৪টি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি আশা করেন।

/এইচকে/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ