behind the news
Rehab ad on bangla tribune
 
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

চাঁদপুরে ব্যাপক সহিংসতা, ৯টি ভোটকেন্দ্র স্থগিত

চাঁদপুর প্রতিনিধি১৬:২১, মার্চ ৩১, ২০১৬

চাঁদপুরের দুই উপজেলায় দ্বিতীয় দফায় ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে একটি কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তাকে মারধর, কেন্দ্র দখল, অ্যাজেন্টকে মারধর, ব্যালট পেপার ছিনতাই, ভোট জাল, কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরে গোলযোগের মাধ্যমে বিশৃঙ্খল উপায়ে ভোট গ্রহণ চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে বিভিন্ন কেন্দ্রে এমন গোলযোগ বাঁধে বলে জানা যায়।

তরপুরচণ্ডীতে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা ও পাল্টা হামলায় আহত এক ভোটার

চাঁদপুর জেলা পুলিশ মিডিয়া সেন্টারসহ নির্বাচন অফিসের নির্ভরযোগ্য এক সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আরও জানা গেছে, গোলযোগের কারণে সদর উপজেলার ছয়টি এবং হাইমচরেরর ৯টি কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ স্থগিত হয়েছে। এসব কেন্দ্রে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে র‌্যাব ও  পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কমপক্ষে ৮০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি নিক্ষেপ করেছে।

জানা যায়, ব্যালট পেপার ছিনতাই ও সিলিং করায় চাঁদপুর সদর উপজেলার মৈশাদী ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স কেন্দ্রেরও ভোট গ্রহণ স্থগিত করেন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা। প্রায় একই সময় ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয় ৫নং রামপুর ইউনিয়নের পাঁচগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, ১নং বড়সুন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, চান্দ্রা দক্ষিণ বালিয়া নরসিংহপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, রঙেরগাঁও পাথালিয়া কমিউনিটি সেন্টার কেন্দ্র ও চান্দ্রা ইউনিয়নের আখনের হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে।

অভিযোগ পাওয়া যায়, হাইমচর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের আজিজিয়া দাখিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে প্রিজাইডিং কর্মকর্তা বি এম এ মান্নাফ কে মারধর করে ব্যালট পেপার ছিনতাই করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। পরে এখানেও ভোটগ্রহণ স্থগিত করে দেওয়া হয়। এছাড়া এ উপজেলার আলগী দূর্গাপুর ইউপির সিপাহীকান্দি কেন্দ্র, চরভৈরবী ইউনিয়নের মোহন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ জেলায় মোট ৯টি কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করা হয়।

তরপরচুণ্ডী ইউনিয়নের একটি কেন্দ্রে দুর্বৃত্তদের তাণ্ডব

স্থগিত কেন্দ্রগুলো ছাড়াও চাঁদপুরের বিভিন্ন কেন্দ্রে এবং কেন্দ্রের বাইরে গোলযোগ হয়েছে নৌকা-ধানেরশীষ এবং মেম্বার প্রার্থীদের কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে। রামপুর ইউনিয়নের রাঢ়িরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকালের দিকে মিজানুর রহমান মোল্লা ও মোস্তফা নামে দুই মেম্বার প্রার্থীসহ কয়েকজন আহত হন। এ সময় বিশৃঙ্খলা সৃষ্ট হলে ভোটকেন্দ্র থেকে ভোটাররা ভোট না দিয়ে চলে যান।

চাঁদপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আতাউর রহমান বলেন, দুপুর ২টা পর্যন্ত অনিয়মের কারণে কয়েকটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন করার জন্য আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। তবে পরিস্থিতি অনেক এলাকাতেই খারাপ।

এদিকে দুপুর সাড়ে ১১টায় চাঁদপুর সদর উপজেলার শাহমাহমুদপুর ইউনিয়নের লোধেরগাঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুইটি কেন্দ্রে প্রচুর ব্যালট ছিনতাই করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ প্রায় ১৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি নিক্ষেপ করে।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। লোকবলের অভাব সত্ত্বেও আমরা ফোর্স পাঠিয়েছি। কেন্দ্রগুলো যে যার মতো করে নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করেছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের তৎপরতা

দ্বিতীয় দফায় চাঁদপুরের ২ উপজেলার ১৮টি ইউয়িনে ভোটগ্রহণ চলছে। এর মধ্যে চাঁদপুর সদরের ১২টি ও হাইমচরের ৬ কেন্দ্র রয়েছে।

চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলার ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬৭ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৫২৮ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আসনে ১৫৪ জন প্রতদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চাঁদপুর সদরে ১২টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪৫ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৩৭২ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আসনে ৯৯ জন এবং হাইমচর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ২২ জন, সাধারণ সদস্য পদে ১৫৬ জন ও সংরক্ষিত মহিলা সদস্য আসনে ৫৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন। দু উপজেলার ১৮টি ইউপির ১৭৬টি কেন্দ্রে সর্বমোট ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৫৭ হাজার ২শ’ ৬৮ জন।

/এইচকে/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ