behind the news
Rehab ad on bangla tribune
 
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

খুলনায় থমকে আছে নাগরিক সেবা সহজীকরণের ১০টি পাইলট প্রকল্প

খুলনা প্রতিনিধি২০:২২, এপ্রিল ০১, ২০১৬

খুলনাসরকারি অফিসে নাগরিকরা যাতে কম সময়ে, স্বল্প খরচে এবং বিনা দুর্ভোগে সেবা নিতে পারেন এমন উদ্দেশ্য নিয়েই খুলনায় গ্রহণ করা হয়েছে উদ্ভাবনী আইডিয়া প্রকল্প। গত বছরের শুরু থেকে খুলনার বিভিন্ন অফিসে ৩০টি পাইলট আইডিয়া প্রকল্পের মধ্যে এখন পর্যন্ত বাস্তবায়ন হয়েছে ১১টি। অধিকাংশ অফিসে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বদলির কারণে থমকে আছে ১০টি উদ্ভাবনী পাইলট প্রকল্প।
খুলনা জেলা ইনোভেশন অফিসার ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. মনিরুজ্জামান বলেন, সরকারি নির্দেশে মহানগর ও জেলার ৯টি উপজেলায় ৩৬টি উদ্ভাবনী আইডিয়া গ্রহণ করা হয়। এ থেকে ৩০টি আইডিয়া নিয়ে পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করার পর ১১টি বাস্তবায়ন হয়েছে এবং ৪টির অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। তবে সাতটি সরকারি অফিসের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বদলি হওয়ায় ১০টি পাইলটিং প্রকল্প থমকে আছে।
নাগরিক সেবায় উদ্ভাবন বিষয়টি বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যমাত্রার একটি অংশ। এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে খালিশপুর যুব উন্নয়ন অফিসে যুব প্রশিক্ষণ অধিকতর বাস্তব উপযোগী করে আত্মকর্মী সৃজন, দৌলতপুরস্থ মেট্রোপলিটন কৃষি অফিসে প্রযুক্তি সম্প্রসারণে চাহিদা ভিত্তিক কৃষক প্রশিক্ষণ, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সঠিক প্রশিক্ষণ ও যথাযথ খাতে ঋণের টাকা বিনিয়োগের মাধ্যমে আশ্রয়ন (ফেইজ-২) এর অধিবাসীদের মধ্যে শতভাগ ঋণ বিতরণ ও আদায় নিশ্চিতকরণ, দিঘলিয়া ভূমি অফিসে নামজারী পরবর্তী রেকর্ড সংশোধন ও হালনাগাদ দ্রুতকরণ, ফুলতলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল রেজিস্ট্রেশনে গ্রাহক হয়রানি লাঘব, দিঘলিয়ায় মাধ্যমিক স্কুলের শ্রেণিকক্ষে মাল্টিমিডিয়ার ব্যবহার, পাইকগাছা যুব উন্নয়ন অফিসের আওতায় বেকার যুবকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে ঋণ প্রদানের মাধ্যমে সফল আত্মকর্মী তৈরিসহ বেশকিছু প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়।

বাস্তবায়নের প্রক্রিয়াধীন অন্যান্য প্রকল্পের মধ্যে দৌলতপুর মেট্রোপলিটন কৃষি অফিসের আওতাধীন তেলিগাতি ব্লকে ১২০ জন কৃষকের ডাটাবেস তৈরি, দল গঠন, প্রশিক্ষণের চাহিদা নিরুপণ ও চাহিদা অনুযায়ী প্রশিক্ষণ দিয়ে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনা।

প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কৃষক সানোয়ার আহমেদ জানান, আগে কৃষি অফিসের নির্ধারিত সময়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হতো। এতে তাদের কৃষি কাজে ব্যাঘাত ঘটতো। কিন্তু নব উদ্ভাবিত প্রকল্পের মাধ্যমে প্রথমে কৃষকদের কাছ থেকেই সময় নির্ধারণ করা হয়, পরে সেই সময়েই প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এর ফলে তাদের কৃষি কাজে কোনও ক্ষতি হচ্ছে না, আর অবসর সময়ে চাহিদা মতো প্রশিক্ষণ নিয়ে কাজে লাগাতে পারছেন। এতে গত বছরের তুলনায় এ বছর ওই ব্লকের ৩৫০ হেক্টর জমিতে ১৭.৫০ মেট্রিক টন ফলন বৃদ্ধি পেয়েছে।

দৌলতপুর মেট্রোপলিটন কৃষি অফিসার জাকিয়া সুলতানা বলেন, মূলত কৃষকদের কাছ থেকেই প্রথমে আইডিয়া নেওয়া হয়। তাদের চাহিদার আলোকেই প্রশিক্ষণ দেওয়া ও কৃষি কাজে নিয়োজিত করায় ফলন বেড়েছে।

বিআরটিএ খুলনা সার্কেলের সহকারী পরিচালক (ইঞ্জি.) এএসএম কামরুল হাসান বলেন, উদ্ভাবনী এই প্রক্রিয়ার আওতায় ফিটনেস, ট্যাক্স, মালিকানা বদল, রুট পারমিট, লার্নার এখন দিনে দিনেই দেওয়া হচ্ছে। আগে যা দু’দিনেও দেওয়া সম্ভব হতো না। গত বছর ১ ফেব্রুয়ারি থেকে সহজে স্মার্টকার্ড প্রদান শুরু হয়েছে। তাছাড়া সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে অফিসের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করায় কোথাও কোনও সমস্যা দেখা দিলে দ্রুত তার সমাধানে পদক্ষেপ নেওয়া সহজ হচ্ছে। জনভোগান্তি কমাতে প্রতিটি কক্ষের সামনে সেবার তালিকা লিখে দেওয়া হয়েছে। জনবল সংকট দূর হলে আরও দ্রুত সেবা দেওয়া সম্ভব হবে।

খুলনা বিভাগীয় তথ্য অফিসের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা ম. জাভেদ ইকবাল বলেন, জেলার ৭৩টি সরকারি অফিসের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের একটি চিত্র যাতে একনজরে পাওয়া যায় সেটি নিয়ে কাজ করছে বিভাগীয় তথ্য অফিস। ওই অফিসের নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেই যাতে সব উন্নয়নচিত্র পাওয়া যায় সেটি নিয়েও তাদের কার্যক্রম চলছে।

খুলনা জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে সরকারের দেওয়া নির্দেশনার আলোকে জেলার বিভিন্ন সরকারি অফিসে আইডিয়া উদ্ভাবন করে কার্যক্রম চলছে। এজন্য জনগণকেও সেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে আরও সচেতন হতে হচ্ছে। অফিসে না গিয়ে কীভাবে ঘরে বসে সেবা পাওয়া যায়, তাও জনগণকে জানা প্রয়োজন।

/এআর / এএইচ/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ