সেন্ট মার্টিনে আটকা পড়েছেন শতাধিক পর্যটক

Send
কক্সবাজার প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২৩:১৮, এপ্রিল ০১, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:২৩, এপ্রিল ০১, ২০১৬

কক্সবাজারের সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে আসা প্রায় দেড় শতাধিক পর্যটক আটকা পড়েছে দ্বীপে। শুক্রবার সকাল থেকে বৈরী আবহাওয়া এবং ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত থাকায় টেকনাফ থেকে কোনও জাহাজ ছাড়েনি। ফলে এর আগের দিন সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে আসা রাত্রীযাপন করা পর্যটকরা সেখানে আটকা পড়েন।
কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস জানায়, সঞ্চালনশীল মেঘামালার কারণে উত্তর বঙ্গোপসাগর, উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার আশঙ্কায় তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।
পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদের ব্যবস্থাপক মো. শাহ আলম জানান, সাগর উত্তাল এবং ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত থাকায় শুক্রবার থেকে টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ রয়েছে। সাগর স্বাভাবিক হয়ে গেলে সেন্ট মার্টিনে আটকা পড়া পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হবে।

সেন্ট মার্টিন দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান নুর আহমেদ জানান, গত বৃহস্পতিবার টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন রুটে চলাচল পর্যটকবাহী জাহাজ ও ট্রলার করে প্রায় দেড় হাজারের বেশি পর্যটক সেন্ট মার্টিনে বেড়াতে আসেন। পরে একইদিন দুপুরে ওইসব জাহাজে করে প্রায় ১ হাজার তিন শ’র বেশি পর্যটক টেকনাফে ফিরে আসলেও দেড় শতাধিদের মতো পর্যটক রাত্রীযাপন করে দ্বীপে।

তিনি আরও জানান, হঠাৎ করে শুক্রবার ভোর থেকে ঝড়ো হাওয়া শুরু হলে টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন নৌরুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ওই সব পর্যটকরা সেন্ট মার্টিনে আটকা পড়ে।

সেন্ট মার্টিন জেটি ঘাটের টোল আদায়কারী মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, সাগর উত্তাল থাকার কারণে টেকনাফ-সেন্ট মার্টিন রুটে কোনও পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল করেনি। ফলে দ্বীপে বেড়াতে আসা প্রায় দেড় শতাধিক পর্যটক আটকা পড়ে।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মজিদ জানান, বৈরী আবহাওয়া কারণে সেন্ট মার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকদের খোঁজখবর নিতে দ্বীপের পুলিশ ফাঁড়িকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শফিউল আলম জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারণে নৌরুটের সব জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সেন্ট মার্টিনে আটকা পড়া পর্যটকদের খোঁজ-খবর নেওয়া হয়েছে এবং তারা সেখানে সুস্থ ও ভালো রয়েছে। জাহাজ চলাচল স্বাভাবিক হলে তাদের ফিরে আনা হবে।

/এএইচ/আপ-এআর/

লাইভ

টপ