Vision  ad on bangla Tribune

রংপুরে ৫ দফা দাবিতে বাসদের বিক্ষোভবিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় ঘেরাও

রংপুর প্রতিনিধি১৬:১১, এপ্রিল ০৭, ২০১৬

তিস্তা নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়, কৃষকদের ক্ষতিপূরণ প্রদান, আগামী আমন মৌসুম পর্যন্ত সেনাবাহিনীকে দেওয়া দরে রেশন প্রদানসহ ৫ দফা দাবিতে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক  দলের (বাসদ)  রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের নেতা-কর্মীরা। এসময় তারা রংপুরের বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় ঘেরাও করে।
এর আগে দলের নেতা কর্মীরা রংপুর প্রেসক্লাব চত্বরে মিলিত হয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক ঘুরে নগরীর কাছারী বাজার এলাকায় অবস্থিত রংপুর বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয় ঘেরাও করতে আসলে পুলিশ মূল গেট বন্ধ করে দেয়। এ সময় নেতা কর্মীরা ওই কার্যালয়ের সামনে নগরীর প্রধান সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে।
সেখানে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন বাসদ রংপুর জেলার সমন্ময়ক আনোয়ার হোসেন বাবলু , কেন্দ্রীয় নেতা সুভ্রাংসু চক্রবর্তী, ভাষা সৈনিক মাহফুজুল হক দুলু, দিনাজপুর জেলা সমন্ময়ক রেজাউল ইসলাম সবুজ , গাইবান্ধা জেলা বাসদ নেতা মঞ্জুরুল আলম মিঠু, জয়পুরহাট জেলা নেতা ওবায়দুল্লাহ মুসাসহ প্রমুখ।

বক্তারা অভিযোগ করেন, ভারত কর্তৃক উজানে তাদের এলাকার গজল ডোবায় এক তরফাভাবে বাঁধ নির্মাণ করে পানির প্রবাহ পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ায় তিস্তা নদী শুষ্ক মৌসুমে মরা খালে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশের তিস্তা ব্যারেজ এলাকায় পানির প্রবাহ সর্বকালের সবচেয়ে কম মাত্র ২শ কিউসেকে নেমে এসেছে। পানির অভাবে চলতি বোরো মৌসুমে হাজার হাজার হেক্টর জমিতে ধান চাষ করতে পারেনি কৃষকরা।যারা তিস্তা সেচ প্রকল্পের পানির ওপর নির্ভরশীল ছিলো এমন কয়েক হাজার কৃষক পানির অভাবে তাদের ধান ক্ষেত মরে যাচ্ছে। ফলে বাধ্য হয়ে কৃষকরা চড়া সুদে ঋণ নিয়ে সেচ যন্ত্রের মাধ্যমে পানি নিতে বাধ্য হচ্ছে। এতে করে বিঘা প্রতি যেখানে পানি খরচ ছিলো দেড়শ’ টাকা তিস্তা নদী পানি শূন্য হওয়ায়  তা এখন ২ হাজার ৭শ টাকারও বেশি খরচ করতে হচ্ছে কৃষকদের।

ফলে রংপুর দিনাজপুর অঞ্চলের ১ লাখ ১১ হাজার হেক্টরের মধ্যে এবার মাত্র ১০ হাজার হেক্টর জমিতে ধান চাষ করতে পেরেছে কৃষকরা। এতে করে কৃষকদের প্রায় ৬শ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে। অথচ তিস্তা নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়ে সরকার কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। তাই অবিলম্বে পানির হিস্যা আদায়ে ভারতের বিরুদ্ধে জাতিসংঘে অভিযোগ উত্থাপন করে পানির হিস্যা আদায় করে তিস্তা নদীকে বাঁচানোর দাবি জানাচ্ছি।

সমাবেশে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের ক্ষতিপূরণ প্রদান, বেকার ক্ষেত-মজুরদের ১২০ দিনের কর্মসৃজন চালুকরণ সহ ৫ দফা দাবি মেনে নেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয়। সমাবেশ শেষে বিভাগীয় কমিশনারের কাছে প্রধানমন্ত্রী বরাবর দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

/এআর/টিএন/

লাইভ

টপ