রেকর্ড গড়লো সুন্দরী আর প্রাণীর প্রেম!

Send
বাংলা ট্রিবিউন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:১২, মার্চ ২১, ২০১৭ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:১৬, মার্চ ২১, ২০১৭

বিউটি এমা ওয়াটসন এবং বিস্ট ড্যান স্টিভেনসসপ্তাহ না পেরুতেই টাকার প্রাসাদ গড়ে বক্স অফিস রেকর্ড ভেঙে দিলো ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’। রূপকথার এই গল্পের জাদুতে বেশকিছু রেকর্ড এখন হুমকির মুখে! মুক্তির প্রথম সপ্তাহেই দর্শকদের মুগ্ধ করে ছবিটি বিশ্বব্যাপী আয় করেছে ৩৫ কোটি মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ২ হাজার ৮০৩ কোটি ৮৫ লাখ টাকা।

এর মধ্যে শুধু উত্তর আমেরিকার বক্স অফিস থেকেই এসেছে ১৭ কোটি ডলার (১ হাজার ৩৬১ কোটি ৮৭ লাখ টাকা)। হলিউডের ইতিহাসে মুক্তির প্রথম সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি আয়ের ছবির তালিকায় সাত নম্বরে জায়গা করে নিয়েছে ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’। পিজি-রেটেড ছবির তালিকায় অবশ্য এটি আছে সবার ওপরে অর্থাৎ এক নম্বরে।
রক্ত-মাংসের চরিত্র নিয়ে ডিজনির রিমেক ছবির ইতিহাসে ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’ই মুক্তির প্রথম সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি আয়ের রেকর্ড গড়েছে। এটি টপকে গেছে ‘দ্য জঙ্গল বুক’, ‘সিন্ডেরেলা’ ও ‘অ্যালিস ইন ওয়ান্ডারল্যান্ড’কে।
যুক্তরাজ্যেও দুর্দান্ত গতিতে ছুটে চলছে ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’। সেখানে মুক্তির প্রথম সপ্তাহে এটি আয় করেছে ১ কোটি ৮৪ লাখ পাউন্ড (১ হাজার ৮২৩ কোটি টাকা)। ব্রিটেনের ইতিহাসে মুক্তির প্রথম সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি আয়ের ছবির তালিকায় এর অবস্থান পাঁচ নম্বরে।
১৭৪০ সালের ফ্রান্সের পটভূমিতে সাজানো ছবিটির গল্প বুদ্ধিমতি সুন্দরী বেল ও এক প্রাণীকে ঘিরে। মেয়েটিকে নিজের দুর্গে আটকে রাখে কুৎসিত চেহারার জন্তুটি। কিন্তু ভড়কে যাওয়ার বদলে উল্টো তার সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলে বেল। ভয়ংকর মুখের অন্তরালে এই প্রাণী যে অভিশপ্ত রাজপুত্র, মেয়েটি তা বুঝতে পারে। তাই জন্তুর খোলস ছেড়ে তাকে বেরিয়ে আসতে ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে দেয় সে।
বিল কনডন পরিচালিত ছবিটিতে বেল চরিত্রে অভিনয় করেছেন ‘হ্যারি পটার’ তারকা এমা ওয়াটসন। বিস্ট হিসেবে আছেন ড্যান স্টিভেনস। অন্য অভিনয়শিল্পীরা হলেন কেভিন ক্লাইন, এমা থম্পসন, এওয়ান ম্যাকগ্রেগর, ইয়ান ম্যাকেলেন, স্ট্যানলি টুসি ও অড্রা ম্যাকডোনাল্ড।

১৯৯১ সালে ডিজনির প্রযোজনায় তৈরি হয়েছিল অ্যানিমেটেড ছবি ‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’। মানবীর সঙ্গে প্রাণীর প্রেমের সেই চিরচেনা কাহিনির আবেদন এত বছর পরও কমেনি। নতুন প্রজন্মকেও রূপকথার গল্পটা বিমোহিত করে। তাই ত্রিমাত্রিক তথা থ্রিডি প্রযুক্তিতে ১৬ কোটি মার্কিন ডলার (১ হাজার ২৮১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা) খরচ করে বানানো হয়েছে ছবিটি। ডিজনি যে ভুল করেনি, বক্স অফিসের কাঁপনই তা বলে দিচ্ছে!
প্রসঙ্গত, হলিউডের পাশাপাশি গেল শুক্রবার (১৭ মার্চ) ছবিটি মুক্তি পেয়েছে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সেও।
/জেএইচ/এমএম/

লাইভ

টপ