behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

যে কারণে রাজপথে নেমেছেন তারা

বিনোদন রিপোর্ট১৩:৫৪, এপ্রিল ২১, ২০১৭

পরিষ্কার শহর গড়তে শহরের পথে তারকারাবাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষকে সুস্বাস্থ্য, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারে সচেতন করা এবং একটি জীবাণুমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে একাত্মতা ঘোষণা করেছেন দেশের তারকারা শিল্পীরা। স্যাভলন ক্লিন বাংলাদেশ ক্যাম্পেইনের এই বিশেষ কার্যক্রমের সঙ্গে অংশ নিলেন মডেল ও অভিনয়শিল্পী হাসান মাসুদ, সাজু খাদেম, ইমন, মিশু সাব্বির, আজমেরী আশাসহ অনেকে।

তারা সম্প্রতি রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে পরিচালিত এই ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণ করেন। অ্যাডভান্সড ক্যামিকেল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড (এসিআই) দেশব্যাপি এই ক্যাম্পেইন চালু করে। ঢাকা শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে সর্ব সাধারণের মাঝে স্বাস্থ্য বিষয়ক সচেতনতা ছড়িয়ে দেন তারকারা।
‘স্যাভলন ক্লিন বাংলাদেশ’ ক্যাম্পেইনের মাঠ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে এসে অভিনেতা হাসান মাসুদ বলেন, ‘আমরা প্রত্যেকেই নিজেদের অভ্যাস অনুযায়ী সময়মতো খাবার খাওয়া, অফিসে যাওয়াসহ বিভিন্ন কাজ করি। কিন্তু সেই খাবার শেষে ময়লাগুলো সঠিক স্থানে ফেলার অভ্যাস করি না। আমরা চাইলেই কিন্তু একটি আবর্জনামুক্ত শহর পেতে পারি। তাই আসুন আজ থেকে নিজে যেখানে সেখানে ময়লা ফেলব না এবং অন্যকেউ ফেললে তাকেও সঠিক পরামর্শ দেব।’
সাজু খাদেম বলেন, ‘আমরা প্রত্যেকে ভাবি যে ঘর বা বাড়িটিতে থাকি সেটাই শুধু থাকার জায়গা, শুধু সেটিকে পরিষ্কার করলেই হবে। কিন্তু কেউ ভাবি না পুরো শহরটি আমার থাকার জায়গা। আমরা প্রত্যেকেই যদি যার যার জায়গা থেকে নিজের আশেপাশের জায়গাটি পরিষ্কার রাখি তাহলেই এই শহরটি আর নোংরা হবে না।’
ইমন বলেন, ‘বর্তমান সমাজের মানুষ এখন আগের থেকে অনেক বেশি স্বাস্থ্য সচেতন। অনেকেই চেষ্টা করছেন নিজের জায়গা থেকে তার আশেপাশের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার। প্রয়োজন শুধু উৎসাহের। এই উদ্যোগে অংশগ্রহণ করতে পেরে আমি আনন্দিত। আশা করি দেশের সর্বস্তরের মানুষ এই ক্যাম্পেইনে অংশগ্রহণ করবেন।’
মিশু সাব্বির বলেন, ‘আমরা এই শহরে থাকি আর আমরাই এটাকে অপরিষ্কার করি। অন্য কেউ বাইরে থেকে এসে নোংরা করে না। আমরা সবাই মিলে ময়লা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলবো এবং পরিষ্কার থাকার অভ্যাস করবো। আমাদের সবার মাঝে এই অভ্যাস গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়ার জন্য স্যাভলনকে ধন্যবাদ।’   
আজমেরী আশা বলেন, ‘প্রতিটি কাজে সব সময় তরুণরা সবার আগে এগিয়ে এসেছে। আমি বিশ্বাস করি, তরুণদের প্রতিনিধি হিসেবে আমার মতো অনেকেই এগিয়ে আসবেন এবং এই মহৎ উদ্যোগের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ত করবেন।’
এদিকে এই ক্যাম্পেইন আয়োজন সম্পর্কে এসিআই কনজ্যুমার ব্র্যান্ডস-এর এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর সৈয়দ আলমগীর বলেন, ‘আমরা আশা করি, এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে সকলের মাঝে সুস্থ ও জীবাণুমুক্ত থাকার অভ্যাস তৈরি হবে।’
/এস/এমএম/

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ