গাইতে গিয়ে অশ্রুসিক্ত হলেন কুমার বিশ্বজিৎ

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:১১, আগস্ট ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৫৬, আগস্ট ১৩, ২০১৮

বৈশাখীর গানের রেকর্ডিংয়ে কুমার বিশ্বজিৎ

বৈশাখী টেলিভিশনের স্টুডিওতে রেকর্ডিং চলছিল গত সপ্তাহে। একের পর এক গান গেয়ে চলছিলেন চিরসবুজ গায়ক কুমার বিশ্বজিৎ। ঈদের অনুষ্ঠান ‘গানে গানে ঈদ আনন্দ’র জন্যই এ আয়োজন।
১৪টি গান গাইলেন তিনি। কখনোবা গাওয়া গানের সৃষ্টি নিয়ে কথা, কখনওবা প্রথম গাওয়ার স্মৃতি আবার কখনওবা তাকে নিয়ে গান লেখার জন্য স্ত্রীর আবদার- এভাবেই গান আর কথার মাঝে বিভোর ছিলেন কুমার বিশ্বজিৎ।
বিশেষ করে ‘তুমি রোজ বিকেলে আমার বাগানে ফুল নিতে আসতে...’ গানের পর মাকে নিয়ে গাইলেন, একটা চাঁদ ছাড়া রাত আঁধার কালো’। অনুষ্ঠান শেষ হয় এ গানের মাধ্যমেই। মাকে নিয়ে গানটি গেয়ে ভীষণ আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন কুমার বিশ্বজিৎ। এ সময় দু’চোখ বেয়ে অশ্রু গড়িয়ে পড়ে তার। চোখের পানি মোছেন আঙুলের ডগায়। ক্ষণিকের জন্য কোথায় যেন হারিয়ে যান। তিনি তখন যেন দারুণ নস্টালজিক!
এমন নস্টালজিকের কারণ জানতে চাইলে কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, ‌‘যখন এই গানগুলো গাই তখন সত্যিই নস্টালজিয়া কাজ করে। আমি হারিয়ে যাই সেই সময়ে, সেই স্মৃতিতে। মায়ের কথা, বন্ধুর কথা মনে পড়ে। স্মৃতিকাতর বলতে যা বোঝায়, তাই। কখনও আনন্দ, কখনও বেদনা আবার কখনোবা ফান- এমন নানা রকম আবেগ কাজ করে আমার ভেতর। মানুষের যে গড় আয়ু তাতে আমাদের জীবন অনেক ছোট। আমরা তো এখন বোনাস লাইফ লিড করছি।’

নিজের গাওয়া গানগুলো ঈদে বৈশাখীর পর্দায় যাচ্ছে, ব্যস্ততার মধ্যে দেখার সুযোগ হবে কিনা জানতে চাইলে কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, ‘আমি আমার গাওয়া গানগুলো টিভি পর্দায় সব সময় দেখার চেষ্টা করি। কারণ, তা দেখে নিজের ভুলত্রুটিগুলো শুধরে নেওয়ার চেষ্টা করি। এ অনুষ্ঠানে যারা আমার মিউজিশিয়ান ছিল, এ গানগুলো তাদের অনেক প্রিয়। আশা করি গানগুলো বৈশাখী টিভির দর্শকদেরও অনেক ভালো লাগবে।’
অনন্যা প্রীতির উপস্থাপনায় এ অনুষ্ঠানটি প্রচার হবে ঈদের দ্বিতীয় দিন সকাল ১১টায়। প্রযোজনায় লিটু সোলায়মান।

/এমআই/এম/চেক/এমওএফ/

লাইভ

টপ