পপি ফিরছেন ‘কাটপিছ’ নিয়ে!

Send
সুধাময় সরকার
প্রকাশিত : ১৪:১৪, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:১৮, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

কাটপিছ-এর প্রথম পোস্টার

সমৃদ্ধ বাংলা সিনেমাকে ডুবিয়েছিল শূন্য দশকের ‘কাটপিছ কালচার’। তখন সিনেমায় চলছিল অশ্লীলতার চূড়ান্ত মাত্রা। তবে সেসব থেকে সিনেমাওয়ালারা এখন বেশ দূরে। কাটপিছ সিনেমার নায়ক-নায়িকা-নির্মাতারাও প্রায় নির্বাসনে।
যদিও আজ এত বছর পর দেশীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম নায়িকা পপি ফিরছেন সেই ‘কাটপিছ’ নিয়েই! যিনি দীর্ঘ সময় প্রায় বসে ছিলেন ভালো সিনেমার অপেক্ষায়। মাঝে ‘সোনাবন্ধু’ নামের একটি সিনেমায় পাওয়া গেলেও সাড়া ফেলেনি এর গল্প আর নির্মাণ দুর্বলতার কারণে।
এদিকে মাঝে এক বছর বিরতি নিয়ে পপির নতুন সিনেমার ঘোষণা এলো তারই জন্মদিন উপলক্ষে, ১১ সেপ্টেম্বর। প্রকাশ পেয়েছে নামের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সিনেমাটির একটি ফার্স্টলুক পোস্টার। যে পোস্টারটি দেখে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম শুরু হয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনা।
আপাতদৃষ্টিতে বিস্ময়ের বিষয়, পপিকে নিয়ে এই ছবিটি নির্মাণ করছেন ‘রাজনীতি’ খ্যাত প্রশংসিত তরুণ নির্মাতা বুলবুল বিশ্বাস। তার কাছেই প্রশ্ন ছিল, বাংলা সিনেমার বড় কলঙ্ক ‘কাটপিছ’ নিয়ে ফেরার কারণ কী? তাও আবার সঙ্গে নিয়েছেন দেশের অন্যতম সুন্দরী নায়িকা পপি!
বুলবুল বাংলা ট্রিবিউনকে বললেন, ‘লেটস থিংক পজেটিভ। একটা সময় কাটপিছ বিষয়টি আমাদের সিনেমায় এতটাই প্রভাব বিস্তার করেছিল, সেটিকে আসলে চাইলেও চাপিয়ে রাখা সম্ভব নয়। এটা বারবার নানাভাবে ফিরবেই। কান টানলে মাথার আসার মতোই।’
আরও জানালেন, ছবিটির গল্প কাটপিছ আমলের একজন নায়িকাকে ঘিরে। তার শুরু, স্যাক্রিফাইস, যুদ্ধ, সফলতা, নির্মমতা, প্রেম, বিরহ- সবই থাকছে এখানে। আর সেই চরিত্রে অভিনয় করবেন পপি।
১০ সেপ্টেম্বর পপির জন্মদিনে বুলবুল বিশ্বাস

আরশীনগর ফিল্মসের ব্যানারে ছবিটির পরিচালনার পাশাপাশি এর চিত্রনাট্য ও সংলাপ তৈরি করছেন বুলবুল বিশ্বাস নিজেই। এতে পপির বিপরীতে নায়ক হিসেবে কে থাকছেন; সেটির জন্য অপেক্ষা করতে হবে আরও কিছুটা সময়। তবে শুটিং শুরু হচ্ছে জানুয়ারি থেকে।
ছবিটির রগরগে প্রথম পোস্টার এবং পুরো ছবিটি মুক্তির পর, মুছে যাওয়া কাটপিছ আমলকে জাগিয়ে তুলবে না তো! এমন আশঙ্কার জবাবে বুলবুল বিশ্বাস বললেন, ‘দেখুন আমার প্রথম ছবিতে (রাজনীতি) দেখানোর চেষ্টা করেছি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র এবং রাজনীতির কিছু বাস্তব চিত্র। ছিলো প্রেমটাও। এবার বেছে নিয়েছি সেই বিষয়টিকে (কাটপিছ), যার কারণে আমাদের সিনেমা হলগুলো হারালো দর্শক ও আস্থা। আমার মনে হয় এই গল্পটা মানুষকে জানানো দরকার। কেন, কারা, কীভাবে চলচ্চিত্রের এই ক্ষতিটা করেছে। সঙ্গে প্রেম তো থাকছেই।’ 

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ