‘এমন প্রশ্ন তুলে আমাকে ম্লান করবেন না’

Send
ওয়ালিউল বিশ্বাস
প্রকাশিত : ১৭:৫১, জানুয়ারি ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৩৭, জানুয়ারি ১৭, ২০১৯

বিএফডিসিতে সংবাদ সম্মেলন শেষে মৌসুমীপর্দার বাইরে এসে জনগণের হয়ে কাজ করার ইচ্ছে চিত্রনায়িকা মৌসুমীর। আর সে কারণেই সংরক্ষিত নারী আসনে একাদশ সংসদের জন্য মনোনয়ন ফরম কিনেছেন এই অভিনেত্রী। এদিকে তার মনোনয়নপত্র সংগ্রহের পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।
অনেকের মতে, তার অবস্থান ভিন্ন রাজনৈতিক ধারায়। কিন্তু মৌসুমী বিষয়টি সহাস্যে উড়িয়ে দিলেন। ফেসবুকে আসা বিভিন্ন ছবি ও উক্তির জবাব দিলেন নব্বইয়ের দশকের অন্যতম সেরা এই নায়িকা।
বিষয়গুলো নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করতেই আজ (১৭ জানুয়ারি) বিএফডিসিতে বিনোদন সংবাদকর্মীদের সঙ্গে বসেছিলেন তিনি। সেখানে তার মতো করে উত্তর দেন নানা প্রশ্নের।
শুরুটা করেন মৌসুমী নিজেই। বলেন, ‘আমার অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল, কোনও একদিন রাজনীতিকদের পাশাপাশি আনকোরা, নতুনরাও সুযোগ পাবে। শুধু যে রাজনীতিকরাই রাজনীতি করবেন, তা নয়। এর ইঙ্গিত আমরা পেয়েছি প্রধানমন্ত্রীর নতুন মন্ত্রিসভাতেই।
এবারের মন্ত্রিসভাতে নতুনের চমকের মধ্যে দিয়ে তরুণদের ডাক দিয়েছেন তিনি।
আমি বর্ষীয়ান নেতাদের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলছি, নতুনদেরও এ জায়গায় আসা উচিত।
তাহলে দেশকে নতুনভাবে আমরা আবিষ্কার করতে পারব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সে নজির তৈরি করে দিয়েছেন। এখন সুন্দর সময়, যারা রাজনীতি করেনি, কিন্তু নেটওয়ার্ক আছে তারা আওয়ামী লীগের মাধ্যমে, প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে দেশসেবা করতে পারেন।’
বিএফডিসতে সংবাদ সম্মেলন শেষে মৌসুমীঅনেকটা হুট করেই সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন কিনেছেন মৌসুমী। তার ব্যাখ্যাতে পাওয়া যায় সেটা। আর এ সিদ্ধান্তে কাজ করেছে প্রধানমন্ত্রীর একটি সাক্ষাৎকার। ‘কিছুদিন আগে আমি প্রধানমন্ত্রীর একটি সাক্ষাৎকার পড়লাম। তিনি বলেছেন, এই পঞ্চাশ আসন (সংরক্ষিত নারী আসন) তিনি নিজে নির্ধারণ করবেন। তখন আমার মনে হলো, আমারও আবেদন করা উচিত।’ বলেন তিনি।
আপনি যে মনোনয়নপত্র কিনতে আগ্রহী বা কিনবেন, এ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কখনও কি আলোচনা হয়েছিল- এই জিজ্ঞাসা ছিল নায়িকার প্রতি।
তিনি বলেন, ‘এটা আমার এখানে বলাটা ঠিক হবে না। উনি কাকে মনোনয়ন দেবেন, সেটা উনার বিষয়। আর আমি বলেছি কিনা- তাও বলতে চাই না।’
গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আলাদাভাবে চোখে পড়েছে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রচারণায় তারকাদের অংশগ্রহণ। অনেক শিল্পী বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চেয়েছেন। ব্যতিক্রম ছিলেন মৌসুমী। আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী হয়েও তাকে কোনও নির্বাচনী প্রচারণায় দেখা যায়নি। যা এখন অনেকের কাছেই বিস্ময়কর মনে হচ্ছে! তবে এ ক্ষেত্রে মৌসুমী ব্যাখ্যা দিলেন এভাবে, ‘যখন আমাকে প্রচারণার বিষয়টি জানানো হয়, তখন মনে হয়েছে প্রচারণার জায়গায় হয়তো আমি ইনভল্ব হতে পারব না। কিন্তু আমি তো সাপোর্ট করেছি। যারা ডেকেছেন আমি তাদের বলেছি, আমার সমর্থন আপনাদের সঙ্গেই আছে। কিন্তু প্রচারণায় যেতে চাই না। কারণ আমি আসলে সাহস পাইনি। আমি ইনসিকিউর ফিল করেছি। এত জনগণের সামনে গিয়ে কথা বলব, ভোট চাইব, সেই সাহসটা পাইনি। আমি মানসিকভাবে প্রস্তুত ছিলাম না। আমি আয়োজকদের কাছে মাফ চেয়ে নিয়েছি। তবে ভবিষ্যতে যাব, এটা বলেছি।’
এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক ধরনের ছবি ছড়ানো হচ্ছে। সেখানে অন্য রাজনৈতিক দলের আয়োজনে দেখা গেছে এই চিত্রনায়িকাকে। বিষয়গুলো নিয়ে সমালোচনাও হচ্ছে। এগুলোকে কীভাবে দেখছেন- এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমি তো আগেই বলেছি, এগুলো নিয়ে কথা বলার কিছু নেই। শিল্পী হিসেবে অনেকেই আমাকে ডেকেছেন। গিয়েছি। আমি আগে কখনও বলিনি, কোনও দলের, কিংবা কারও হয়ে কাজ করতে চাই। তাহলে এই প্রশ্ন কেন আসছে? আমি এত বছর সততার সঙ্গে কাজ করেছি, এমন প্রশ্ন তুলে আমাকে ম্লান করে দেবেন না।’
মৌসুমী দীর্ঘদিন ধরে নারী ও শিশুদের জন্য কাজ করছেন। ছিলেন ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত। নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন শিশুদের জন্য। তাই প্রধানমন্ত্রীর আস্থা অর্জন করতে পারলে এমপি হিসেবে নারী ও শিশুদের জন্য কাজ করতে চান এই তারকা।

/এমএম/

লাইভ

টপ