ভারতের সেন্সর বোর্ড আটকে দিলো প্রধানমন্ত্রীর ছবি!

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:০৯, এপ্রিল ০৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৩২, এপ্রিল ০৫, ২০১৯

ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং মোদিকে নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’-এর মুক্তি স্থগিত করা হয়েছে। এক টুইটের মাধ্যমে এটি জানিয়েছেন ছবির প্রযোজক সন্দীপ সিং।
ছবিটি আগামী ৫ এপ্রিল মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল।
সন্দীপ টুইটারে লেখেন, ‘এটা নিশ্চিত, আমাদের চলচ্চিত্র ৫ এপ্রিল মুক্তি পাচ্ছে না। আপাতত এটা স্থগিত করা হয়েছে। কবে মুক্তি পাবে সেটি শিগগিরই জানানো হবে।’
ছবির পরিচালক ওমাং কুমারও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তার আইনজীবী ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে জানান, ছবিটি ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র না পাওয়ায় এটি আটকে গেছে।
ভারতীয় লোকসভা নির্বাচনের আগে ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ মুক্তি পেলে বিশেষ প্রোপাগান্ডা ছড়াতে পারে এবং এটি কিছু বিতর্ক তৈরি করবে বলে মনে করছে দেশটির সেন্সর বোর্ড সদস্যরা। তাই এটি আটকে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করছে বেশ কয়েকটি মাধ্যম।
এর আগে একই অভিযোগ এনেছিল মোদির রাজনৈতিক বিরোধী দলগুলোও। এটি নির্বাচনী হাতিয়ার হতে পারে বলে ছবিটি নিয়ে কংগ্রেস ও অন্য বেশ কয়েকটি দল দেশটির নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছিল। এর প্রেক্ষিতে ছবিটি দেখেছে কমিশনও!
এরপরই নির্বাচন কমিশন ভারতীয় চলচ্চিত্র সার্টিফিকেশন বোর্ডে (সেন্সর বোর্ড) একটি চিঠি পাঠায়।
ছবিটি আসলেই রাজনৈতিক ক্যাটাগরিতে পড়ছে কিনা তা বোর্ডকে তদন্ত করতে বলে কমিশন। পাশাপাশি এটি ‘মডেল কোড’ নীতিমালার মধ্যে পড়ে কিনা তাও দেখতে বলেছে।
তবে এতে ভীষণ ক্ষুব্ধ মোদির চরিত্রে অভিনয় করা নায়ক বিবেক ওবেরয়। এএনআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি জানি না অভিষেক সিংঘাই ও কপিল সিবালের মতো বিখ্যাত ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা কেন সময়ের অপচয় করছেন! আমি আরও জানি না, তারা আসলে কাদের ভয় পাচ্ছেন? এ চলচ্চিত্রে মোদি-জিকে হিরো হিসেবে দেখানোর কিছু নেই। তিনি আগে থেকেই হিরো!’
ছবিটি নির্মিত হয়েছে নরেন্দ্র মোদির উঠে আসার গল্প নিয়ে।
সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

/এম/এমএম/

লাইভ

টপ