স্থগিত টলিউড প্রজেক্ট, ফেরদৌসের পক্ষে মুখ খুললেন ঋতুপর্ণা

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৪:৩২, এপ্রিল ১৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৬:১৮, এপ্রিল ১৮, ২০১৯

ফেরদৌস ও ঋতুপর্ণাভারতে নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেওয়ার বিতর্কের মধ্য দিয়ে ১৬ এপ্রিল ভারত থেকে দেশে ফিরেছেন নায়ক ফেরদৌস। স্থগিত হয়েছে তার ভারতীয় ভিসা।
আর এ কারণে এখন হুমকির মুখে পড়েছে টলিউডে তার নির্মিতব্য ছবি। তেমনটাই জানাচ্ছে দেশটির সংবাদমাধ্যম।
এদিকে এমন ঘটনায় নায়ক ফেরদৌসের পক্ষে কথা বললেন ভারতের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত নায়িকা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ফেরদৌসকে টলিউডের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে দাবি করেন এ নায়িকা।
ফেরদৌস ও ঋতুপর্ণা পর্দার বাইরেও ভালো বন্ধু। জুটি হয়ে একসঙ্গে বহু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। এমনকি তারা চলতি এপ্রিলেই কাজ শুরু করেছেন টলিউডের নতুন ছবি ‘দত্তা’র।
ঋতুপর্ণা বলেন, ‘ফেরদৌসের সঙ্গে সর্বশেষ ১১ এপ্রিল ছবিটির শুটিং করি। গত মঙ্গলবার নির্বাচনি বিতর্কের কথাটি জানতে পারি। এটুকু বলতে পারি, ফেরদৌস টলিউডের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ফলে যাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হোক সবকিছু বিবেচনা করা উচিত।’
শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের উপন্যাস অবলম্বনে ‘দত্তা’ নির্মিত হচ্ছে। যেখানে ফেরদৌস অভিনয় করছেন বিলাস চরিত্রে। ছবিটি পরিচালনা করছেন নির্মল চক্রবর্তী।
ছবির পরিচালক বলেন, ‘আমরা খুবই মনোযোগ সহকারে পুরো বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছি। ফেরদৌসের জন্য আসলে ভিসা জটিলতা কেমন পর্যায়ে যাচ্ছে তার ওপরই ছবির বাকি কাজ নির্ভর করছে। যদি বাধাটা স্থায়ী হয় তাহলে ফেরদৌসের জায়গায় হয়তো নতুন কাউকে নিতে হবে। কিন্তু ফেরদৌসের মতো শক্তিশালী অভিনেতাকে আমরা বাদ দিতে চাই না।’
নায়ক ফেরদৌসের অভিষেক হয়েছিল একসঙ্গে দুই দেশেই। ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র ‘হঠাৎ বৃষ্টি’ মাধ্যমে তার আবির্ভাব। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর ওপার বাংলার দর্শকরা ফেরদৌসকে লুফে নেন। দুই দশক ধরে প্রায় সমান তালে দুই বাংলায় কাজ করে চলেছেন জাতীয়সহ একাধিক চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত এই নায়ক।
এদিকে, তৃণমূলের প্রচারে যোগ দেওয়ায় বাংলাদেশি অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদের ভিসা বাতিল করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাকে কালো তালিকাভুক্ত করার কথাও উঠে এসেছে একাধিক ভারতীয় মিডিয়ায়।
ভারতে নির্বাচনি প্রচারণায় ফেরদৌসউল্লেখ্য, ভারত সফরে গিয়ে গত ১৪ ও ১৫ এপ্রিল রায়গঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের হয়ে স্থানীয় চলচ্চিত্র শিল্পীদের সঙ্গে ভোট প্রচারে গিয়েছিলেন ফেরদৌস। স্থানীয় বিজেপি দাবি তোলে, বাংলাদেশের অভিনেতা টুরিস্ট ভিসা নিয়ে এসে এভাবে ভোটের প্রচার করতে পারেন না। এতে যেমন নির্বাচনি বিধি ভঙ্গ হয়েছে, তেমনই ভিসার শর্তও লঙ্ঘন হয়েছে। মঙ্গলবার নির্বাচনি কর্মকর্তার দফতরে গিয়ে বাংলাদেশের অভিনেতা ফেরদৌসকে গ্রেফতারের দাবিও জানান বিজেপি নেতারা। এছাড়াও রায়গঞ্জ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দফতরে তার বিরুদ্ধে নালিশ করা হয়।  
সিনেমার শুটিংয়ের জন্য সম্প্রতি বিজনেস ভিসায় ভারতে গিয়েছিলেন দুই বাংলার জনপ্রিয় বাংলাদেশের এই অভিনেতা।
এদিকে ঢাকায় ফিরে গতকাল (১৭ এপ্রিল) পুরো বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন ফেরদৌস। বললেন, ‘ভারতের নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নেওয়াটা আমার ভুল ছিল। এর জন্য আমি দুঃখিত।’
সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

/এম/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ