সোনার হরিণ পেলে বাঁধভাঙা আনন্দ (ফটো অ্যালবাম)

Send
বিনোদন রিপোর্ট, কান (ফ্রান্স) থেকে
প্রকাশিত : ০১:৪১, মে ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৪, মে ২৫, ২০১৯

অ্যান্ড দ্য উইনার ইজ...
দক্ষিণ ফ্রান্সের কানে অনেক প্রেক্ষাগৃহ। পালে দে ফেস্তিভাল ভবনেও বেশ কয়েকটি থিয়েটার। এর মধ্যে কান চলচ্চিত্র উৎসব চলাকালে গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে বিকাল, সন্ধ্যা কিংবা রাতে ছবি দেখার আনন্দ অন্যরকম। কারণ এসব সময়ে অফিসিয়াল সিলেকশনের ছবিগুলোর তারকারা লালগালিচায় পা মাড়ান, লুমিয়েরের আসন অলঙ্কৃত করেন। তাই এসব প্রদর্শনীতে শুধু অ্যাক্রেডিটেশনের ব্যাজ থাকলেই চলে না, চাই আলাদা ইনভাইটেশন বা টিকিট। এটি হাতে পাওয়া যেন অনেকের কাছে সোনার হরিণের মতো!

পালে ভবনের মূল ফটকের সামনে, সড়ক বিভাজকে ও ভিলেজ ইন্টারন্যাশনালসহ আশেপাশে টিকিটের প্রত্যাশা নিয়ে দিনভর বিভিন্ন বয়সী মানুষ অনুরোধ নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে কাগজে কাঙ্ক্ষিত ছবির নাম লিখে হাত উঁচু করে রাখে তারা। আর যদি তা মিলে যায়, আনন্দের আর সীমা থাকে না।

কানের ৭২তম আসরে এমনই একজন সফল টিকিটপ্রত্যাশীর বাঁধভাঙা খুশি দেখা গেলো স্থিরচিত্রে। উৎসবের দশম দিন এটি ফ্রেমবন্দি করা হয়। ওই তরুণী হাতে পেয়েছেন ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন...হলিউড’-এর মতো আরাধ্য ইনভাইটেশন। কান উৎসব আয়োজকদের বিচারে ২৩ মে সেরা তিন ছবির তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে টিকিটিপ্রত্যাশীর বিজয়। এর শিরোনাম করা হয়েছে ‘অ্যান্ড দ্য উইনার ইজ...’।

গত ১৮ ও ২১ মে বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত ‘আলোকচিত্রীদের ফ্রেমে কানের অসাধারণ কিছু মুহূর্ত’ ও ‘লালগালিচায় বিয়ের প্রস্তাব! (ফটো অ্যালবাম)’ শিরোনামের দুটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। উৎসবে প্রতিদিন বিভিন্ন দেশের আলোকচিত্রীর তোলা ছবিগুলোর মধ্য থেকে সেরা তিনটিকে বেছে অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হচ্ছে।

সমাপনী আয়োজনে এসব ছবির মধ্য থেকে সেরাটির আলোকচিত্রীকে দেওয়া হবে পুরস্কার। ছবি বাছাইয়ে কাজ করছেন বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের ছয় জন আলোকচিত্রী।

কানের ৭২তম আসরের অষ্টম থেকে একাদশ দিনের বিজয়ী ছবিগুলো দেখে নিন:

ইনসার্টেন রিগার্ড* ইনসার্টেন রিগার্ড (২১ মে)
ফরাসি অভিনেত্রী ইজাবেল আদজানির ছবিটি ফরাসি নির্মাতা নিকোলাস বেদোসের ‘দ্য গুড টাইমস’-এর গালা স্ক্রিনিং উপলক্ষে আয়োজিত লালগালিচায় তোলা।

হোয়েন দ্য লেডিস লিড দ্য ড্যান্স* হোয়েন দ্য লেডিস লিড দ্য ড্যান্স (২১ মে)
লিঙ্গ সমতা নিয়ে কান উৎসবে এবার ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে। বিশেষ করে নারীদের এগিয়ে থাকার পক্ষে সবাই। ‘দ্য গুড টাইমস’-এর ফরাসি অভিনেত্রী দরিয়া তিলিয়েরের হাস্যোজ্জ্বল ছবিটিতে সেই বার্তাই যেন ফুটে উঠেছে।

শ্যাডোস অব কান* শ্যাডোস অব কান (২১ মে)
পালে দে ফেস্তিভাল ভবনে অনুষ্ঠান চলাকালীন এই স্থিরচিত্র তোলা। মাইক্রোফোনে ব্যবহারকারী ও মঞ্চে দাঁড়িয়ে থাকা কলাকুশলীদের ছায়া নিয়ে গল্প বানিয়েছেন আলোকচিত্রী।

দ্য সিনেফিল ট্রিনিটি* দ্য সিনেফিল ট্রিনিটি (২২ মে)
‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন...হলিউড’ ছবির পরিচালক কোয়েন্টিন টারান্টিনো, লিওনার্দো ডিক্যাপ্রি আর ব্র্যাড পিট। কানসৈকতে ছবির প্রচারণায় আসায় তাদের সিনেমানুরাগী ত্রয়ী হিসেবে দেখেছেন আলোকচিত্রী।

কান থ্রো দ্য লুকিং গ্লাস* কান থ্রো দ্য লুকিং গ্লাস (২২ মে)
‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন...হলিউড’ ছবির কলাকুশলীরা লালগালিচায় পা মাড়িয়ে গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে ঢুকছেন। দরজার এ-পাশে দাঁড়িয়ে তাদের দেখতে জড়ো ভক্ত-দর্শকরা।

রেড কার্পেট উইন্ডো* রেড কার্পেট উইন্ডো (২২ মে)
কানের সবচেয়ে বড় জৌলুস লালগালিচার আয়োজন অনেকের দেখার সুযোগ হয় না। কিন্তু সামনের ভবন থেকে স্পষ্ট সব দেখা যায়। তাই আলোকচিত্রী এই জায়গাকে লালগালিচার জানালা ভেবেছেন।

অ্যা ব্লারি স্টোরি* অ্যা ব্লারি স্টোরি (২৩ মে)
কান উৎসবে আমন্ত্রিত তারকাদের কখন সামনে পাওয়া যাবে তা আগেভাগে বলা যায় না। যখন তাদের দেখা যায়, আলোকচিত্রীরা যেভাবেই হোক ফ্রেমবন্দি করতে উঠেপড়ে লাগেন। এই স্থিরচিত্রে সেই আবহ রয়েছে।

টাচড বাই গ্রেস* টাচড বাই গ্রেস (২৩ মে)
মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত ফরাসি নির্মাতা আহনু দিপলিশাঁ পরিচালিত ‘ওহ মার্সি’র অভিনেতা হোশদি জেমের ছবিটি লালগালিচায় তোলা।

ইমোশন* ইমোশন (২৪ মে)
কানাডিয়ান তরুণ হাভিয়ার দোলানের ‘ম্যাথিয়াস অ্যান্ড ম্যাক্সিম’ মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে প্রশংসিত হয়েছে। প্রদর্শনী শেষে লালগালিচায় আসার পর নিজের ছবির কলাকুশলীদের মাঝে আবেগাপ্লুত হয়ে যান তিনি।

অ্যাগেইনস্ট-নাইট* অ্যাগেইনস্ট-নাইট (২৪ মে)
লালগালিচায় পা মাড়ানো একজন মডেল ছবিয়ালদের সামনে দামি পোশাক মেলে ধরেন।

আই সি... আই সি... দ্য পাম দ’র অ্যাওয়ার্ডেড টু...* আই সি... আই সি... দ্য পাম দ’র অ্যাওয়ার্ডেড টু... (২৪ মে)
পালে দে ফেস্তিভাল ভবনের সাল দুবুসি থিয়েটারের সামনে সিনেমানুরাগীদের দেখা যাচ্ছে। উৎসবে অংশগ্রহণকারীরা বাড়ি ফিরে হয়তো বলবেন, ‘স্বর্ণ পাম কাকে দেওয়া হলো আমি তা দেখেছি!’ আলোকচিত্রী সেই গল্পটাই ভেবেছেন এই ছবিতে।

 

/জেএইচ/এমএম/

লাইভ

টপ