৪০ বর্ষপূর্তিতে মাইলসের ৬ মাসের কনসার্ট ঘোষণা

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৪৪, জুন ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:৫৭, জুন ১৮, ২০১৯

সংবাদ সম্মেলনে মাইলসেরর সদস্যরাদেশের অন্যতম ব্যান্ড মাইলস পার করছে ৪০তম বসন্ত। ১৯৭৯ সালে ফরিদ রশিদের হাত ধরে ঢাকায় জন্ম নেয় ঐতিহ্যবাহী এই ব্যান্ড। যার নেতৃত্ব এখন দিচ্ছেন হামিন আহমেদ, শাফিন আহমেদ, মানাম আহমেদ, ইকবাল আসিফ জুয়েল ও সৈয়দ জিয়াউর রহমান তূর্য।

ব্যান্ডটি তাদের এই পূর্তি উপলক্ষে বিশেষ আয়োজন করছে, যা দেশের ইতিহাসে একটি রেকর্ডও। চল্লিশ বছর পূর্তি উপলক্ষে ৬ মাসব্যাপী কনসার্টের ঘোষণা দিয়েছেন তারা। আজ (১৭ জুন) রাজধানীর ডেইলি স্টার সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শাফিন আহমেদ, হামিন আহমেদ, মানাম আহমেদ, সৈয়দ জিয়াউর রহমান তূর্য ও ইকবাল আসিফ জুয়েল। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন আয়োজক প্রতিষ্ঠান উইন্ডমিলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাব্বির রহমান তানিম।

শাফিন আহমেদ বলেন, ‘মাইলসের এই পর্যন্ত ১১ টি অ্যালবাম রিলিজ হয়েছে। এর পাশাপাশি চারটি বেস্ট অব অ্যালবাম প্রকাশ পায়। সেখানে ভারত থেকে দুটি এবং আমেরিকা থেকে দুটি প্রকাশিত হয়। ৪০ বছরে পূর্তি একদিনের কনসার্টে শেষ হবে না, এটা আগামী ৫-৬ মাস ধরে চলবে। শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরে থাকছে নানা আয়োজন।’
ব্যান্ডের দলনেতা হামিন আহমেদ বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য আনন্দের একটি বছর। আমাদের শ্রোতা, দর্শক ভক্তদের  নিয়ে এই আয়োজন চলবে। আমাদের শুরুটা হবে আমেরিকা সফর দিয়ে। চলতি মাসেই আমরা সেখানে বিভিন্ন কনসার্টে অংশগ্রহণ করবো, যা শেষ হবে আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে। আমেরিকার বিভিন্ন শহরে ১২টির অধির একক শোতে অংশ নেবে মাইলস। এরপর সেপ্টেম্বরে কানাডা ট্যুরে অংশ নেবো। সেখানেও ৬টি শো হবে। দেশে ফিরেই আবার অক্টোবরের তৃতীয় সপ্তাহে আমরা অস্ট্রেলিয়ায় ৫-৬টি শোতে অংশ নেবো।’

দেশের ইভেন্টগুলোর আয়োজক প্রতিষ্ঠান উইন্ডমিলের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাব্বির রহমান তানিম বলেন, ‘‘দেশে আমরা একটু আলাদাভাবে এই আয়োজনটি করছি। শুধু একটি ইভেন্টের মাধ্যমে ৪০ বছর পূর্তিকে শেষ করা হবে না। এটা অনেক শ্রোতা বা দর্শকে অংশগ্রহণে হবে। ‌এই জার্নিটাকে বলছি ‘ম্যাজিক অফ মাইলস’। যেখানে ওয়ার্ল্ড টুরের পাশাপাশি ঢাকার বাইরে চারটি কনসার্ট এবং ঢাকায় একটি গালা কনসার্ট অনুষ্ঠিত হবে।’’কথা বলছেন শাফিন আহমেদ

ঢাকার বাইরের কনসার্টগুলো হবে  চট্টগ্রাম, সিলেট, খুলনা ও রাজশাহীতে। রোডশোও হবে। ঢাকার গালা ইভেন্টটি আর্মি স্টেডিয়াম অথবা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় অনুষ্ঠিত হবে।

মাইলস-এর শুরুটা হয় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল (সাবেক হোটেল শেরাটন)-এ ইংরেজি গান পরিবেশনার মাধ্যমে।
১৯৮২ সালে তাদের প্রথম অ্যালবাম বের হয় ইংরেজি ভাষায়। ওই সময় কিছু লোক বলেছিল, মাইলস বাংলা গান রচনা করতে পারে না! মূলত এমন কথার জবাব দিতে গিয়েই মাইলস তাদের প্রথম বাংলা অ্যালবাম প্রকাশ করে। অ্যালবামটির নাম ‘প্রতিশ্রুতি’। ‘চাঁদ তারা’সহ অ্যালবামটির প্রতিটি গান তুমুল জনপ্রিয়তা পায়। এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি দলটিকে। যে অ্যালবামই বের করেছেন, সেটিই সুপারহিট। শুধু বাংলাদেশেই নয়, গানগুলো সমান জনপ্রিয়তা পেয়েছিল পশ্চিমবঙ্গেও।
মাইলসই প্রথম ১৯৯৪ সালে বাংলাদেশে সিডি অ্যালবাম প্রকাশ করে। ডিস্কো রেকর্ডিং নামে যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে প্রকাশিত এই সিডির নাম ‘বেস্ট অব মাইলস’। ১৯৯৬ সালে ভারতে পাঁচটি, আবুধাবি ও দুবাইতে দুটি কনসার্ট করে। চ্যানেল এম ও এমটিভি সরাসরি এই কনসার্ট রেকর্ড করে। ১৯৯৬ সালে তারাই প্রথম বাংলাদেশি ব্যান্ড ছিল, যারা প্রথম যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা সফরে যায়।
মাইলস-এর ইতিহাসে একটি অন্যতম কনসার্ট হয়েছিল ঢাকা জাতীয় স্টেডিয়ামে, যেখানে প্রায় ৬০ হাজার দর্শক হয়েছিল। এই কনসার্টটি আয়োজিত হয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের তত্ত্বাবধানে, এবং স্পন্সর ছিল পেপসি । ২০০১ সালে মাইলস নয়াদিল্লির জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে কনসার্টের জন্য আমন্ত্রিত হয়। ওই কনসার্টে আরও ছিল জুনুন এবং সিল্ক রুট ব্যান্ড।
মাইলস-এর অ্যালবামগুলোর মধ্যে রয়েছে- মাইলস (ইংরেজি- ১৯৮২), প্রতিশ্রুতি (১৯৯১), প্রত্যাশা (১৯৯৩), প্রত্যয় (১৯৯৬), প্রয়াস (১৯৯৭), প্রবাহ (২০০০), প্রতিধ্বনি (২০০৬), প্রতিচ্ছবি (২০১৫) ও প্রবর্তন (২০১৬)।
মাইলস-এর জনপ্রিয় গানের তালিকাটি এমন—চাঁদ তারা সূর্য, জ্বালা জ্বালা, ধিকি ধিকি, সে কোন দরদিয়া, ফিরিয়ে দাও, স্বপ্নভঙ্গ, আর কতকাল খুঁজবো তোমায়, পলাশীর প্রান্তর, পাহাড়ি মেয়ে, প্রথম প্রেমের মতো, ভুলবো না তোমাকে, অনাবিল বিশ্বাসে, ভালোবেস না, নীরবে কিছুক্ষণ, হ্যালো ঢাকা, তুমি নাই, প্রতীক্ষা, হৃদয়হীনা, চাই না, প্রিয়তমা মেঘ, নীলা প্রভৃতি।

/এম/এমওএফ/

লাইভ

টপ