অ্যানিমেশনে বিশ্বরেকর্ড গড়লো ‘টয় স্টোরি ফোর’

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:১১, জুন ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১১, জুন ২৫, ২০১৯

ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্সের অ্যানিমেটেড ফ্রাঞ্চাইজি ‘টয় স্টোরি’র বহুল প্রতীক্ষিত চতুর্থ কিস্তি বৈশ্বিক বক্স অফিস রেকর্ড ভেঙে দিলো। অ্যানিমেটেড ছবি হিসেবে এক সপ্তাহে সারাবিশ্বে ২৩ কোটি ৮০ লাখ ডলার (২ হাজার ৯ কোটি ৩৮ লাখ ৬৪ হাজার টাকা) আয় করেছে এটি। এর বেশিরভাগই এসেছে লাতিন আমেরিকা ও ইউরোপ থেকে।
তবে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রে আশানুরূপ ফল পায়নি ‘টয় স্টোরি ফোর’। উত্তর আমেরিকায় এর আয় হয়েছে ১১ কোটি ৮০ লাখ ডলার। আমেরিকায় পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিওসের অ্যানিমেটেড সিরিজটি ৪ হাজার ৫৭৫টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। এ বছর হলিউডের কেবল ‘ক্যাপ্টেন মার্ভেল’ ও ‘অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম’ মুক্তির প্রথম সপ্তাহে ১০ কোটি ডলার আয়ের ঘর পেরোতে পেরেছে।
উত্তর আমেরিকায় অ্যানিমেশনের ইতিহাসে ‘টয় স্টোরি ফোর’-এর ওপরে আছে কেবল তিনটি ছবি। এগুলো হলো ‘ইনক্রেডিবলস টু’ (১৮ কোটি ২০ লাখ ডলার), ‘ফাইন্ডিং ডোরি’ (১৩ কোটি ৫০ লাখ ডলার) ও ‘শ্রেক দ্য থার্ড’ (১২ কোটি ১০ লাখ ডলার)।
২৪ বছর আগে তৈরি হয় প্রথম ‘টয় স্টোরি’। ১৯৯৫ সালে এটি বিশ্বজুড়ে আয় করেছিল ৩৯ কোটি ৫০ লাখ মার্কিন ডলার (৩ হাজার ৩৩৪ কোটি ৯০ লাখ ৬০ হাজার টাকা)। নয় বছর আগে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘টয় স্টোরি থ্রি’ প্রথম অ্যানিমেটেড ছবি হিসেবে বিশ্বব্যাপী টিকিট বিক্রিতে ১০০ কোটি ডলারের ব্যবসা করে। পাশাপাশি সমালোচকদের ভূয়সী প্রশংসা কুড়ায়।
ওয়াল্ট ডিজনি স্টুডিওস মোশন পিকচার্সের পরিবেশনায় গত ২১ জুন মুক্তি পায় ‘টয় স্টোরি ফোর’। এবারও শেরিফ উডি (টম হ্যাঙ্কস), বাজ লাইট ইয়ার (টিম অ্যালেন), বো পিপ (অ্যানি পটস) আর তাদের প্লাস্টিকের পুতুল দলকে দেখা গেছে।
জশ কুলি পরিচালিত চতুর্থ পর্বে নতুন যুক্ত হওয়া পুতুলের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ফর্কি (টনি হ্যাল), গ্যাবি গ্যাবি (ক্রিস্টিনা হেন্ড্রিক্স), বানি ও ডাকি (জর্ডান পিলে ও কিগ্যান-মাইকেল কি), স্টান্ট মোটরবাইক রাইডার ডাক ক্যাবুম (কিয়ানু রিভস)। সমালোচক মহলে প্রশংসিত হয়েছে ছবিটি।
এদিকে যুক্তরাজ্যে মুক্তির তিন দিনে ‘টয় স্টোরি ফোর’ আয় করেছে রেকর্ডসংখ্যক দেড় কোটি ডলার (১২৬ কোটি ৬৪ লাখ ২০ হাজার টাকা)। আর কোনও অ্যানিমেটেড ছবির এমন আয়ের নজির নেই ব্রিটিশ সাম্রাজ্যে।
‘টয় স্টোরি ফোর’ ছবির ট্রেলার:

/জেডএল/এমএম/

লাইভ

টপ