আহমদ ছফার ‘প্রেমিকা’ চরিত্রে জয়া আহসান

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৩:০৭, জুন ২৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৪৭, জুন ২৯, ২০১৯

আহমদ ছফা ও জয়া আহসানআহমদ ছফা- বাংলা সাহিত্যের প্রায় প্রতিটি শাখায় প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন দীপ্তময়ভাবে। গল্প, গান, উপন্যাস, কবিতা, প্রবন্ধ, অনুবাদ, ইতিহাস, ভ্রমণকাহিনী মিলিয়ে তিরিশটির বেশি গ্রন্থ রচনা করেছেন। যার মধ্যে অন্যতম তার আত্মজীবনী ধাঁচের উপন্যাস ‘অলাতচক্র’।
যেখানে তিনি দানিয়েলের জবানিতে তুলে ধরেছেন নিজেকে আর প্রেমিকারূপে হাজির করেছেন তায়েবাকে। ১৯৮৫ সালে প্রকাশিত মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সেই উপন্যাস এবার রূপ নিচ্ছে চলচ্চিত্রে। আর তাতে প্রেমিকা তায়েবা চরিত্রে হাজির হচ্ছেন দুই বাংলার অন্যতম অভিনেত্রী জয়া আহসান।
৬০ লাখ টাকা সরকারি অনুদান নিয়ে বিশেষ এই পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করছেন হাবিবুর রহমান। গত ২২ জুন থেকে এর শুটিং শুরু হয়েছে, এরমধ্যে শেষ হয়েছে জয়া আহসানের পুরো কাজ।
নির্মাতা হাবিবুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, পুরো ছবিটি শুটিং হয়েছে থ্রিডি ক্যামেরায় ভারতীয় একটি প্রতিষ্ঠানের কারিগরি সহায়তা নিয়ে। এরমধ্যে জয়া আহসানের ব্যস্ততার কারণে তার অংশের পুরোটাই শেষ করা হয়েছে একসঙ্গে, এক লটে।
হাবিবুর রহমান বলেন, ‘এটি হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের তথা বাংলা ভাষায় নির্মিত প্রথম থ্রিডি চলচ্চিত্র। যার জন্য কাজটির শুটিং প্রায় শেষ হলেও, সম্পাদনার টেবিলে সময় লাগবে। তাছাড়া এতে বাজেটও একটি বড় বিষয়। কারণ, অনুদানের টাকা তো একসঙ্গে পাওয়া যায় না। কিন্তু কাজটাও শেষ করতে হবে। এটাও সত্যি অনুদানের বাইরে আমার আর কোনও প্রযোজক নেই। তাই কষ্ট হলেও আমার ইচ্ছা ডিসেম্বরের মধ্যে ছবিটি সবাইকে দেখানোর।’
মুক্তিযুদ্ধের সময় কলকাতায় শরণার্থী হিসেবে আশ্রিত বাংলাদেশী লেখক দানিয়েল ও ক্যানসারে আক্রান্ত প্রগতিশীল নারী তায়েবার মধ্যকার অস্ফুট ভালবাসা, মানসিক টানাপোড়েন, মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন গোষ্ঠীর দৃষ্টিভঙ্গি চিত্রায়িত হয়েছে ‘অলাতচক্র’ চলচ্চিত্রে।
শুটিংয়ের ফাঁকে আড্ডায় দুই অভিনেতা শফিউল আলম বাবু ও আজাদ আবুল কালামের মাঝে জয়াএতে দানিয়েল তথা আহমদ ছফার চরিত্রে অভিনয় করছেন আহমেদ রুবেল। বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করছেন, মামুনুর রশীদ, আজাদ আবুল কালাম, শিল্পী সরকার অপু, শফিউল আলম বাবু, নুসরাত জাহান জেরী, সৈয়দ মোশারফসহ অনেকেই।  
এদিকে চলচ্চিত্রটি প্রসঙ্গে জয়া আহসান এখনই মুখ খুলতে নারাজ। একইভাবে এর নির্মাতা হাবিবুর রহমানও এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে প্রস্তুত নন।
তার ভাষায়, ‘আমরা আসলে কাজটাকে সিরিয়াসলি নিয়েছি। পুরোটা শেষ করার পরই বিস্তারিত বলতে চাই।’

/এমএম/

লাইভ

টপ