এক মলাটে মাসুদ করিমের ৮০০ গান

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২০:২২, জুলাই ০৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:৫২, জুলাই ০৫, ২০১৯

প্রকাশনা উৎসবে অতিথিরাতন্দ্রা হারা নয়ন আমার, শত্রু তুমি বন্ধু তুমি, সজনী গো ভালোবেসে এতো জ্বালা, চলে যায় যদি কেউ বাঁধন ছিঁড়ে, আমি রজনীগন্ধা ফুলের মতো গন্ধ বিলিয়ে যাই, যখন থামবে কোলাহল, সন্ধ্যার ছায়া নামে, তোমরা যারা আজ আমাদের ভাবছো মানুষ কিনা, শিল্পী আমি শিল্পী তোমাদেরই গান শোনাবো প্রভৃতি।

চলচ্চিত্রে কালজয়ী এমন অনেক গান মাসুদ করিমের লেখা। যেগুলোতে কণ্ঠ দিয়েছেন শাহনাজ রহমতুল্লাহ, রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিন, বশির আহমেদ, সৈয়দ আবদুল হাদী, মাহমুদুন্নবী, মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, খোন্দকার ফারুক আহমেদ, কাজী আনোয়ার হোসেন, কাদেরী কিবরিয়া, প্রবাল চৌধুরী, নার্গিস পারভিন প্রমুখ বিখ্যাত শিল্পী।

ভারতের প্রখ্যাত শিল্পী শ্যামল মিত্র, ভূপেন হাজারিকা, উদিত নারায়ণ, কুমার শানু, অনুরাধা, ঊষা উথুপরাও মাসুদ করিমের অনেক গানে কণ্ঠ দিয়েছেন।
শুধু চলচ্চিত্রের গানই নয়, মাসুদ করিমের লেখায় সমৃদ্ধ হয়েছে আধুনিক, দেশাত্মবোধক, পল্লীগীতি-সহ বাংলা গানের বিভিন্ন শাখা। তার লেখা সহস্রাধিক গানের মধ্য থেকে ৮০০ গান নিয়ে তৈরি হলো একটি সংকলন গ্রন্থ। নাম ‘৮০০ গানের সংকলন মাসুদ করিম’। এটি সম্পাদনা করেছেন তারই সহধর্মিণী কণ্ঠশিল্পী দিলারা আলো। প্রকাশ করেছে অনন্যা প্রকাশনী।
এ উপলক্ষে ৪ জুলাই চ্যানেল আই ভবনে এক প্রকাশনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আই-এর পরিচালক ও বার্তাপ্রধান শাইখ সিরাজ, গীতিকার ও সুরকার শেখ সাদী খান, ফোয়াদ নাসের বাবু, সৈয়দ আবদুল হাদী, মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, দিলারা আলো, নাট্যব্যক্তিত্ব কেরামত মাওলাসহ বিভিন্ন অঙ্গনের বিশিষ্টজনেরা।
প্রখ্যাত গীতিকার মাসুদ করিমের জন্ম কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে। কুমারখালীর খ্যাতিমান পূর্বসূরিদের নামের সঙ্গে মাসুদ করিমের নামও যুক্ত। ছোটবেলা থেকে মাসুদ করিম ঢাকাতেই বড় হন এবং কবি ও গীতিকার রূপে প্রতিষ্ঠিত হন। স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পরে তিনি বেতারে প্রযোজক হিসেবে যোগ দেন।
মাসুদ করিম খুব অল্প সময়েই বেতার ও টেলিভিশনে গীতিকার হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন। তিনি চলচ্চিত্রের গানে অবদানের জন্য দু’বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। দুরারোগ্য ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে ১৯৯৬ সালের ১৬ নভেম্বর কানাডার মন্ট্রিয়ালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ