ধর্ষণ ও খুনের মামলা থেকে খালাস পেয়ে মিষ্টি বিতরণ!

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৬:৫১, আগস্ট ০৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:০২, আগস্ট ০৬, ২০১৯

একটি দৃশ্যে আহসান হাবীব নাসিম ও মৌসুমী হামিদ

ধর্ষণ ও খুনের মামলায় বেকসুর খালাস পেয়েছেন শাহেদ শরীফ খান। সেই খুশিতে অফিসে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। এই মিষ্টি খেতে গিয়ে অফিসেরই একজন কর্মকর্তা মকবুল হোসেন কেমন যেন অপ্রস্তুত, অপ্রকৃতিস্থ হয়ে ওঠেন।
তার কেন যেন মনে হয়, এক একটা মিষ্টি এক একটা মাংসের টুকরা। মিষ্টি খেতে গিয়ে বমি করে ফেলেন তিনি। বাসায় ফিরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দেন মকবুল।
স্ট্যাটাসের ভাষা এরকম, ‘এ কোন দেশে বাস করি আমরা? ধর্ষক হয়ে উঠেছে রক্ষক। চাঞ্চল্যকর সুফিয়া হত্যা মামলার মূল আসামি শাহেদ শরীফ ধর্ষণ ও হত্যা মামলা থেকে বেকসুর খালাস পেয়েছেন। অর্থের কাছে মানবতা পরাজিত হয়েছে। সবচেয়ে উদ্বেগ ও আতঙ্কের বিষয় এই যে, ধর্ষণ ও হত্যা মামলা থেকে ছাড়া পাওয়ার পর শাহেদ শরীফ তার অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মিষ্টি খাইয়েছেন। মিষ্টি খেতে গিয়ে মনে হলো, মিষ্টি নয়, হতভাগী সুফিয়ার খণ্ডিত দেহের নানা অংশ চিবিয়ে খাচ্ছি। ওয়াক থু...’।
ফেসবুকে মকবুলের এই স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়। ঘটনাক্রমে মকবুলের স্কুলপড়ুয়া মেয়ে ঝুমু স্কুল থেকে হারিয়ে যায়। এরপর মকবুলের জীবনে ঘটতে থাকে নানা ঘটনা।
এমন ঘটনাকে কেন্দ্র করে রেজানুর রহমানের লেখা ও পরিচালনায় সদ্য নির্মিত এই নাটকের নাম ‘আসেন মিষ্টিমুখ করি’।
এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মামুনুর রশীদ, আহসান হাবীব নাসিম, মৌসুমী হামিদ, জিয়াউল হাসান কিসলু, রওনক বিশাকা শ্যামলী, মনি কাঞ্চন, মিন্টু সরদার, কাজী প্যারিস এবং শিশুশিল্পী মীম, সুবাহসহ বিভিন্ন নাট্যসংগঠনের শতাধিক নাট্যকর্মী।
নির্মাতা জানান, চ্যানেল আইতে ঈদের আগের দিন (১১ আগস্ট) সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে নাটকটি প্রচার হবে।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ