জাজকে হটিয়ে প্রেক্ষাগৃহে বসছে শাকিব খানের প্রোজেক্টর-সার্ভার?

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২১:২৩, আগস্ট ০৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:১১, আগস্ট ০৭, ২০১৯

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়াকে হটিয়ে প্রেক্ষাগৃহগুলোতে বসছে নায়ক-প্রযোজক শাকিব খানের উদ্যোগে নতুন প্রোজেক্টর ও সার্ভার। এমন ইঙ্গিত মিলেছে মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে।
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে হল মালিকদের এমন অনুরোধ জানান সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক কাজী শোয়েব রশীদ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন জাজ মাল্টিমিডিয়ার পক্ষ থেকে কয়েক বছর আগে সিনেমা হলগুলিতে ডিজিটাল ফরমেটে নির্মিত চলচ্চিত্র প্রদর্শন উপযোগী নিম্নমানের ডিজিটাল প্রজেক্টর ও সার্ভার সিনেমা হলগুলিতে স্থাপন করা হয়। সম্পূর্ণ নতুন এ বিষয় সম্পর্কে আগে থেকে সিনেমা হল মালিকদের কোনও ধারনা না থাকায় জাজ মাল্টিমিডিয়া বেশ কিছু আর্থিক শর্ত আরোপ করে মেশিন স্থাপন করে। এ বিষয়টি আর্থিক দিক বিবেচনায় প্রদর্শক এবং প্রযোজক পরিবেশকদের কাছে অগ্রহণযোগ্য শর্তাবলীর বিষয়ে সবাই ক্ষোভ প্রকাশ করে আসছিলেন। কিন্তু এখন মেশিন সমূহ ক্রমাগত অকেজো হয়ে পড়ছে। আর এতে সিনেমা হল মালিকগন চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছেন। জাজ মাল্টিমিডিয়ার পক্ষ থেকে কয়েক মাস আগে একটি লিখিত প্রস্তাবনা সিনেমা হল মালিকদের বরাবরে পাঠানো হলে, প্রদর্শক সমিতির পক্ষ থেকে লিখিতভাবে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেওয়া হয় জাজকে। কিন্তু তারা কোনও আলোচনায় বসেননি।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের জন্য সুখবর এই যে, দেশের সবচাইতে জনপ্রিয় চিত্রনায়ক শাকিব খান উন্নততর প্রযুক্তির প্রজেক্টর ও সার্ভার দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন আমাদের সমিতিকে। শাকিব খানের এই প্রস্তাবকে আমরা স্বাগত জানিয়েছি। তাই, এই নতুন প্রদর্শন ব্যবস্থার সাথে সংশ্লিষ্ট হওয়ার জন্য সারাদেশের সিনেমা হল মালিকদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি।’
সংবাদ সম্মেলনে সমিতিটির সভাপতি মো. ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ, সহ-সভাপতি আমির হামজা এবং আর. এম ইউনুস রুবেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
প্রদর্শক সমিতির সংবাদ সম্মেলনএদিকে এ বিষয়ে বাংলা ট্রিবিউনের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলে জাজ মাল্টিমিডিয়ার জেনারেল ম্যানেজার এবি সবুজ বলেন, ‘গত ৭ বছর ধরে আমরা প্রজেক্টর ও সার্ভার সার্ভিস দিয়ে এসেছি হলগুলোতে। কোথাও কি শুনেছেন আমাদের প্রজেক্টরের কারণে হল বন্ধ? দেশের ১০৪টি প্রেক্ষাগৃহে আমাদের পুরো সেটআপ দেওয়া। এছাড়া ২৯০ হলে আমরা সার্ভার দিয়ে থাকি। এখানে ২০টি হলের জন্য আমাদের অতিরিক্ত ৫টি করে সার্ভার ও প্রজেক্টর দেওয়া থাকে। যেন কোনও সমস্যা হলে দ্রুত এগুলো ব্যবহার করা যায়। এরপরও আমরা এগুলো নিয়মিত পরিবর্তন করি। তাই সার্ভার বা প্রজেক্টর নষ্টের কথাগুলো উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’
তিনি আরও যোগ করে বলেন, ‘গত সাত বছর ধরে জাজ তিলে তিলে এই ডিজিটাল সেক্টরটাকে গড়ে তুলেছে। আজ হুট করে সংবাদ সম্মেলন করে অন্য প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। আমরা মনে করি, কারও দ্বারা প্রভাবিত হয়ে এই কাজগুলো করা হচ্ছে। হুট করে সিদ্ধান্ত নয়, আলোচনার মাধ্যমে চলচ্চিত্রের উন্নয়ন সম্ভব। আশা করি, কারও স্বার্থসিদ্ধির জন্য নয়, চলচ্চিত্রের জন্য সবাই কাজ করবেন।’

/এইচএন/এম/এমএম/

লাইভ

টপ