সালমান শাহ: প্রস্থানের ২৩ বছর

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:১৬, সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩১, সেপ্টেম্বর ০৬, ২০১৯

সালমান শাহচোখের পলকে বাংলা চলচ্চিত্রের চিত্র পাল্টে দেওয়া একমাত্র নায়কের নাম সালমান শাহ। আজ (৬ সেপ্টেম্বর) তার অকাল প্রস্থানের দিন। মাঝে পেরিয়ে গেল ২৩টি বছর।
১৯৯৬ সালের এই দিনে রাজধানীর ইস্কাটনের নিজ ফ্ল্যাটে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় এই নন্দিত নায়কের লাশ। সে সময় তার বাবা প্রয়াত কমরউদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেন।
ছেলের মৃত্যু অপমৃত্যু নয় বরং হত্যা করা হয়েছে—এ প্রশ্ন তুলে তিনি ঢাকার সিএমএম আদালতে একটি অভিযোগ করেন। যার সুরাহা হয়নি আজও। ছেলের অকাল মৃত্যুর রহস্য উন্মোচনের জন্য এখনও আইনি লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন সালমান শাহের মা নীলা চৌধুরী।
সালমান শাহের মৃত্যুর ২৩ বছর পেরিয়েও রহস্যের জাল এখনও ছিঁড়েনি। তিনি আত্মহত্যা করেছিলেন, নাকি খুন হয়েছিলেন—এই প্রশ্নের উত্তর আজও খুঁজে চলেছেন সালমান স্বজন-ভক্তরা।
৯০ দশকের শ্রেষ্ঠতম নায়ক সালমানের প্রকৃত নাম শাহরিয়ার চৌধুরী ইমন। এ অভিনেতা মাত্র ২৭টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। যার বেশিরভাগই ছিল তুমুল জনপ্রিয় ও ব্যবসাসফল। মাত্র তিন বছরের অভিনয় জীবনে এমন দর্শকপ্রিয়তা চলচ্চিত্র ইতিহাসে বিরল।
১৯৯৩ সালে তার অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‌‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ মুক্তি পায়। এরপর থেকেই বাংলা চলচ্চিত্রে ভরসার প্রতিশব্দ হয়ে ওঠেন এ নায়ক।
এদিকে, সালমান শাহের মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণে বিএফডিসি ও তার জন্মস্থান সিলেটে বিশেষ আয়োজন হচ্ছে। এরমধ্যে বিএফডিসিতে থাকছে দোয়া মাহফিল। এটি আয়োজন করছে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। পারিবারিকভাবে একই আয়োজন হবে সিলেটেও।
চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, এই সেপ্টেম্বরে সালমান শাহ-সহ চলচ্চিত্রের মোট ৭ জন অভিনয়শিল্পী মারা যান। তবে প্রতিবছরই সালমান শাহের মৃত্যুদিনে (৬ সেপ্টেম্বর) বিশেষ দোয়ার আয়োজন করা হয়। সেখানে দোয়া ও কোরআনখানি করা হয় সবার জন্য।
জায়েদ খান বলেন, ‘এবারের ৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার পড়েছে। বিএফডিসি বন্ধ থাকবে। তাই ৭ সেপ্টেম্বর বিকালে বিএফডিসির আর্টিস্ট স্টাডিরুমে কোরআনখানি ও মিলাদের আয়োজন করা হয়েছে। আশা করছি সবাই আমাদের এই দোয়া-মাহফিলে অংশ নেবেন।’
সালমান শাহ অভিনীত চলচ্চিত্রগুলো:
কেয়ামত থেকে কেয়ামত-১৯৯৩
তুমি আমার-১৯৯৪
অন্তরে অন্তরে-১৯৯৪
সুজন সখী-১৯৯৪
বিক্ষোভ-১৯৯৪
স্নেহ-১৯৯৪
প্রেমযুদ্ধ-১৯৯৫
কন্যাদান-১৯৯৫
দেনমোহর-১৯৯৫
স্বপ্নের ঠিকানা-১৯৯৫
আঞ্জুমান-১৯৯৫
মহামিলন-১৯৯৫
আশা ভালোবাসা-১৯৯৫
বিচার হবে-১৯৯৬
এই ঘর এই সংসার-১৯৯৬
প্রিয়জন-১৯৯৬
তোমাকে চাই-১৯৯৬
স্বপ্নের পৃথিবী-১৯৯৬
সত্যের মৃত্যু নেই-১৯৯৬
জীবন সংসার-১৯৯৬
মায়ের অধিকার-১৯৯৬
চাওয়া থেকে পাওয়া-১৯৯৬
প্রেম পিয়াসী-১৯৯৭
স্বপ্নের নায়ক-১৯৯৭
শুধু তুমি-১৯৯৭
আনন্দ অশ্রু-১৯৯৭

বুকের ভেতর আগুন-১৯৯৭।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ