টরন্টোতে দর্শক ভোটে সেরা হিটলারের ব্যঙ্গাত্মক ছবি

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:২১, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৩, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯

দৃশ্য- ‘জোজো র‌্যাবিট’চল্লিশের দশক। তখন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলছে। জার্মানিতে একদিন এক বালক আবিষ্কার করে, তার মা বাড়ির চিলেকোঠায় একজন ইহুদি কিশোরীকে লুকিয়ে রেখেছেন।

ওই বালককে ঘিরে নির্মিত নাৎসি ব্যঙ্গাত্মক ছবি ‘জোজো র‌্যাবিট’ বাগিয়ে নিলো টরন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের প্রভাববিস্তারকারী পুরস্কার পিপল’স চয়েস অ্যাওয়ার্ড। ফলে ২০২০ সালের অস্কার দৌড়ে যে এটি শক্ত অবস্থানে থাকবে সেই আভাস পাওয়া গেলো। রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) উৎসবের সমাপনী আয়োজনে বিজয়ী ছবির নাম ঘোষণা করা হয়।

চলচ্চিত্র পুরস্কার মৌসুমে সাফল্য পাওয়ার ক্ষেত্রে টরন্টোর পিপল’স চয়েস অ্যাওয়ার্ড তথা অডিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড জয়ী ছবিগুলোর সম্ভাবনা থাকে বেশি। ২০১৮ সালে এই পুরস্কার পাওয়া ‘গ্রিন বুক’ এ বছর অস্কারে সেরা চলচ্চিত্র হয়েছে। অতীতে টরন্টোতে পুরস্কৃত যেসব ছবি অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসে সেরার স্বীকৃতি পেয়েছে সেগুলো হলো ‘টুয়েলভ ইয়ারস অ্যা স্লেভ’ (২০১৩), “দ্য কিং’স স্পিচ” (২০১০). ‘স্লামডগ মিলিয়নিয়ার’ (২০০৮), ‘আমেরিকান বিউটি’ (১৯৯৯)।

অস্কার সাফল্যের পূর্বাভাস দেওয়ার ক্ষেত্রে ট্র্যাক রেকর্ড ভালো হওয়ায় পুরস্কারের মৌসুমের প্রভাববিস্তারকারী হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে টরন্টোর অডিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড। উৎসব চলাকালীন অনলাইনে দর্শকরা পছন্দের ছবিকে ভোট দেন। তবে কীভাবে ফল গণনা হয় তা উন্মোচন করে না আয়োজকরা।

‘জোজো র‌্যাবিট’-এ অ্যাডলফ হিটলার চরিত্রে অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালনার দায়িত্ব সামলেছেন নিউজিল্যান্ডের তাইকা ওয়াইতিতি। মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের ব্লকবাস্টার ‘থর: র‌্যাগনারক’ পরিচালনা করেছেন তিনি।

অডিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড জয়ী ‘জোজো র‌্যাবিট’ ছবিতে অভিনয় করেছেন স্কারলেট জোহানসন ও রোমান গ্রিফিন ডেভিস। উৎসবে প্রথম রানারআপ হওয়া ‘ম্যারেজ স্টোরি’ ছবিতেও অভিনয় করেছেন স্কারলেট। এতেও মায়ের ভূমিকায় দেখা গেছে তাকে। মঞ্চ নির্দেশক (অ্যাডাম ড্রাইভার) স্বামীর সঙ্গে বিয়েবিচ্ছেদ হয় তার।দৃশ্য ‘ম্যারেজ স্টোরি’

দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছে বঙ জুন-হো পরিচালিত দক্ষিণ কোরিয়ান কমেডি-ড্রামা ‘প্যারাসাইট’। এ বছর কান উৎসবে স্বর্ণ পাম জিতেছে এটি। সেরা প্রামাণ্যচিত্র হয়েছে সিরিয়ার ফেরাস ফাইয়াদ পরিচালিত ‘দ্য কেভ’। এতে দেখানো হয়েছে, সিরিয়ান গৃহযুদ্ধ চলাকালে একটি গুহায় স্থানান্তর করা হাসপাতালে একজন নারী চিকিৎসকের সেবাদানের চিত্র।

 

/জেএইচ/এম/

লাইভ

টপ