ঢাকায় একই দিনে মুক্তি পাচ্ছে হলিউডের দুই নতুন ছবি

Send
বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৫:১৫, অক্টোবর ১৭, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:২১, অক্টোবর ১৭, ২০১৯

ছবি দুটির পোস্টারআগামীকাল (১৮ অক্টোবর) আন্তর্জাতিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে হলিউডের আলোচিত দুই ছবি ‘ম্যালেফিসেন্ট: মিসট্রেস অব ইভিল’ ও ‘জম্বিল্যান্ড: ডাবল ট্যাপ‘। একই দিনে বাংলাদেশের স্টার সিনেপ্লেক্সেও আসছে ছবি দুটি।
এর ফলে প্রায় পাঁচ বছর পর মুক্তি পেতে যাচ্ছে অ্যাঞ্জেলিনা জোলির নতুন সিনেমা। ২০১৪ সালে মুক্তি পাওয়া ডিজনির ছবি ‘ম্যালেফিসেন্ট’-এর সিক্যুয়াল ‘ম্যালেফিসেন্ট: মিসট্রেস অব ইভিল’ নিয়ে দর্শকদের সামনে আসছেন তিনি। ছবির ট্রেলারে ভয়ংকররূপে দেখা গেছে তাকে। মাথায় শিং আর দুই ডানা নিয়ে বড় পর্দায় ফের জাদু দেখাবেন তিনি। ‘বাই দ্য সি’র পর অনেকদিন সিনেমায় বিরতি ছিলো। সেই বিরতি কাটিয়ে এই সিনেমার মাধ্যমেই ফিরছেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। জোয়াকিম রোনিং পরিচালিত ছবিটি ইংরেজি ও হিন্দি দুই ভাষায় মুক্তি পাচ্ছে।

১৯৫৯ সালে ফরাসি লেখক চার্লস পেরোর ‘দ্য স্লিপিং বিউটি’ অবলম্বনে নির্মিত হয়েছিলো ‘দ্য স্লিপিং বিউটি’ ছবিটি। ৫৫ বছর পর ২০১৪ সালে দর্শকদের সামনে আসে এর রিমেক চলচ্চিত্র ‘ম্যালেফিসেন্ট’। সিনেমাটির গল্পে দেখা যায়, জনপ্রিয় কল্পকথা ‘স্লিপিং বিউটি’ বা ‘ঘুমন্ত সুন্দরী’র কাহিনি। সেই ঘুমন্ত পরীকে সবাই ভুল বোঝে। রাজকন্যা অরোরা এবং এমন একটি রাজ্যের রাজার সঙ্গে তার সম্পর্ক দেখানো হয় যে রাজ্যের মূলে রয়েছে ভয়ংকর সব ঘটনা। এবারের ছবিতে দেখা যাবে, রাজপুত্র ফিলিপ রাজকন্যা অরোরাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয় এবং রাজকন্যা প্রস্তাবটি গ্রহণ করে। এরপর ম্যালেফিসেন্টের জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে।

অন্যদিকে, ডাকিনীবিদ্যার প্রয়োগে প্রাণ ফিরে পাওয়া লাশকে বলা হয় ‘জম্বি’। পুরো আমেরিকা আসলে জম্বিদেরই দেশ- এরকম কাহিনী নিয়ে নির্মিত ‘জম্বিল্যান্ড’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছিলো ২০০৯ সালে। প্রায় এক দশক পর দর্শকদের সামনে আসছে এ সিনেমার সিক্যুয়াল ‘জম্বিল্যান্ড: ডাবল ট্যাপ‘।

এক দশক পর আসছে ‘জম্বিল্যান্ড’-এর সিক্যুয়াল। প্রথম ছবির পরিচালক রুবেন ফ্লেচারই এ ছবি পরিচালনা করেছেন। অভিনয়শিল্পীদের তালিকায়ও খুব একটা পরিবর্তন ঘটেনি। আগের মতো এ ছবিতেও থাকছেন অস্কার মনোনীত অভিনেতা উডি হ্যারেলসন, জেসি আইজেনবার্গ, এবিগেইল ব্রেসলিন ও অস্কারজয়ী এমা স্টোন।
হলিউডের এখন পর্যন্ত সবচাইতে ব্যবসাসফল জম্বি সিনেমা ‘জম্বিল্যান্ড’। আইএমডিবিতে ৭ দশমিক ৮ রেটিং পাওয়া সিনেমাটি সমালোচকদেরও মন জয় করতে সক্ষম হয়েছিলো। একাধিক পুরস্কারও ঘরে তুলেছে ছবিটি।
এর গল্পে দেখা যায়, কয়েকমাস ধরে আমেরিকার গবাদিপশুর মধ্যে একটি অদ্ভুত রোগ ছড়িয়েছে, যার কোন প্রতিষেধক পাওয়া যায় না। বরং রোগটি মানুষের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়েছে এবং আক্রান্ত মানুষেরা যাকেই কামড় দিচ্ছে সে একই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এমন অবস্থায় কলেজ ছাত্র কলম্বাস রওনা দেয় ওহাইওতে। তার বাবা মা বেঁচে আছে কি না দেখার জন্য।

/এম/

লাইভ

টপ