দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর জাতীয় স্বীকৃতি পেলেন যারা

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:৩৩, নভেম্বর ০৮, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:২২, নভেম্বর ০৮, ২০১৯

বাপ্পা মজুমদার, জুলফিকার রাসেল, রুনা খান, আরিফিন শুভ, সাইমন সাদিক ও ফরিদ আহমেদ২০১৭ ও ২০১৮ সালের সিনেমার জন্য ঘোষণা করা হয়েছে সবচেয়ে সম্মানজনক পদক জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। ৭ নভেম্বর ২৮টি শাখায় ৬৪ জনকে পুরস্কৃত করার এই ঘোষণা দেয় তথ্য মন্ত্রণালয়। এরমধ্যে অনেকেই আছেন যারা আগেও একাধিকবার সম্মানজনক এ পুরস্কার গ্রহণ করেছেন। আবার অনেকেই আছেন দীর্ঘদিন ধরে প্রশংসিত ও জনপ্রিয় হয়েও এবারই প্রথম রাষ্ট্রীয় এ স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছেন। তাদের নিয়েই এ আয়োজন—
বাপ্পা মজুমদার:
দেশের অন্যতম সংগীতশিল্পী তিনি। ১৯৯৫ সালে তার প্রথম অ্যালবাম ‘তখন ভোর বেলা’ প্রকাশ করেন। ব্যান্ড দলছুট আর একক ক্যারিয়ারে তিনি নিজের জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছেন গেল ২৫ বছর ধরে। তিনি একাধারে সুরকার, সংগীতায়োজক, শিল্পী ও গীতিকার। অডিও অঙ্গন তো বটেই, চলচ্চিত্রের জন্যও তিনি কাজ করে আসছেন। এবারই প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘরে তুলতে যাচ্ছেন তিনি।
‘সত্তা’ (২০১৭) ছবিতে মমতাজের গাওয়া ‘না জানি কোন অপরাধে’ গানের সুরকার হিসেবে পুরস্কার পাচ্ছেন তিনি।
জুলফিকার রাসেল:
সাংবাদিক ও গীতিকবি হিসেবে সমাদৃত তিনি। তার লেখনীতে গেয়েছেন দুই বাংলার অসংখ্য জনপ্রিয় শিল্পী। ১৯৯৪ সাল থেকে এখন পর্যন্ত তিনি গান লিখেছেন ৮ শতাধিক। তার জনপ্রিয় গানের মধ্যেও রয়েছে শতাধিক।
আধুনিক গানের সঙ্গে চলচ্চিত্রের গানেও তিনি কাজ করেছেন। কাজের স্বীকৃতি হিসেবে দুই বাংলা থেকে পেয়েছেন অনেক পুরস্কার। যার মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশের ‘সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস’ (একাধিকবার) এবং ভারতের রেডিও মিরচি মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস।
তবে এবার এই গীতিকবি পেতে যাচ্ছেন দেশের সর্বোচ্চ সম্মাননা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। ‘পুত্র’ (২০১৮) ছবির ‘যদি দুঃখ ছুঁয়ে দেখো’ গানটির জন্য শ্রেষ্ঠ গীতিকারের পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন তিনি। একই গানের জন্য এর কণ্ঠশিল্পী রাতুলও পুরস্কৃত হচ্ছেন।
আরিফিন শুভ:
এই অভিনেতা বিনোদন জগতে পা রাখেন মডেলিং দিয়ে। পরবর্তী সময়ে নাটকের মাধ্যমে সর্বাধিক জনপ্রিয়তা পান। ‘জাগো’ (২০১০) ছিল তার প্রথম চলচ্চিত্র।
এরপর আরও অনেক চলচ্চিত্রে প্রশংসিত হলেও জাতীয়ভাবে পুরস্কৃত হননি। এবার ‘ঢাকা অ্যাটাক’ (২০১৭) ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার পেতে যাচ্ছেন।
সাইমন সাদিক:
সাইমন ২০১২ সালে ‘জ্বী হুজুর’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। এর পরবর্তী থেকে নিয়মিত দেশের চলচ্চিত্রে কাজ করে আসছেন। প্রায় ২০টির মতো ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন। তবে এবারই প্রথম এলো সর্বোচ্চ স্বীকৃতি। ২০১৮ সালে শাকিব খানের সঙ্গে যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হয়েছেন সাইমন। ‘জান্নাত’ ছবির জন্য এ পুরস্কার তিনি পাচ্ছেন।
রুনা খান:
টেলিভিশন নাটকে প্রশংসিত অভিনেত্রী রুনা খান। ২০১৭ সালের একসঙ্গে তিনটি চলচ্চিত্রে কাজ করেন। এগুলো হলো, ‘হালদা’, ‘গহীন বালুচর’ ও ‘ছিটকিনি’। এরমধ্যে ‘হালদা’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-অভিনেত্রীর পুরস্কার পাচ্ছেন তিনি।
ফরিদ আহমেদ:
তিনি গানের সুর-সংগীত তৈরির কাজ করছেন তিন দশক ধরে। অথচ জাতীয় স্বীকৃতি ঘরে উঠছে এবারই প্রথম।
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্প অবলম্বনে নির্মিত ‘তুমি রবে নীরবে’ (২০১৭) সিনেমার জন্য পাচ্ছেন শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালকের পুরস্কার।

২০১৭ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের তালিকা
আজীবন সম্মাননা: এটিএম শামসুজ্জামান ও সালমা বেগম সুজাতা
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র: ঢাকা অ্যাটাক (কায়সার আহমেদ ও সানী সানোয়ার)
শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র: বিশ্ব আঙিনায় অমর একুশে (বাংলাদেশ টেলিভিশন)
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালক: বদরুল আনাম সৌদ (গহীন বালুচর)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা প্রধান চরিত্র: শাকিব খান (সত্তা) ও আরিফিন শুভ (ঢাকা অ্যাটাক)
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী প্রধান চরিত্র: নুসরাত ইমরোজ তিশা (হালদা)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা পার্শ্ব-চরিত্র: মো. শাহাদাৎ হোসেন (গহীন বালুচর)
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পার্শ্ব-চরিত্র: সুবর্ণা মুস্তাফা (গহীন বালুচর) ও রুনা খান (হালদা)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা খল-চরিত্র: জাহিদ হাসান (হালদা)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা কৌতুক চরিত্র: এম ফজলুর রহমান বাবু (গহীন বালুচর)
শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী: নাইমুর রহমান আপন (ছিটকিনি)
শিশুশিল্পী শাখায় বিশেষ পুরস্কার: অনন্য সামায়েল (আঁখি ও তার বন্ধুরা)
শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক: এম ফরিদ আহমেদ হাজরা (তুমি রবে নীরবে)
শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালক: ইভান শাহরিয়ার সোহাগ, (ধ্যাততেরিকি)
শ্রেষ্ঠ গায়ক: মাহফুজ আনাম জেমস (তোর প্রেমেতে অন্ধ, চলচ্চিত্র: সত্তা)
শ্রেষ্ঠ গায়িকা: মমতাজ বেগম (গান: না জানি কোন অপরাধে, চলচ্চিত্র: সত্তা)
শ্রেষ্ঠ গীতিকার: সেজুল হোসেন (গান: না জানি কোন অপরাধে, চলচ্চিত্র: সত্তা)
শ্রেষ্ঠ সুরকার: শুভাশীষ মজুমদার বাপ্পা (গান: না জানি কোন অপরাধে, চলচ্চিত্র: সত্তা)
শ্রেষ্ঠ কাহিনিকার: আজাদ বুলবুল (হালদা)
শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার: তৌকীর আহমেদ (হালদা)
শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা: বদরুল আনাম সৌদ (গহীন বালুচর)
শ্রেষ্ঠ সম্পাদক: মো. কালাম (ঢাকা অ্যাটাক)
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক: উত্তম কুমার গুহ (গহীন বালুচর)
শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক: কমল চন্দ্র দাস (গহীন বালুচর)
শ্রেষ্ঠ শব্দগ্রাহক: রিপন নাথ (ঢাকা অ্যাটাক)
শ্রেষ্ঠ পোশাক ও সাজসজ্জা: রিটা হোসেন (তুমি রবে নীরবে)
শ্রেষ্ঠ মেকআপ আর্টিস্ট: মো. জাভেদ মিয়া (ঢাকা অ্যাটাক)
২০১৮ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের তালিকা
আজীবন সম্মাননা: অভিনেতা প্রবীর মিত্র ও এম এ আলমগীর
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র: পুত্র (চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদফতর)
শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র: গল্প সংক্ষেপ (বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইনস্টিটিউট)
শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালক: মোস্তাফিজুর রহমান মানিক
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা প্রধান চরিত্র: ফেরদৌস আহমেদ (পুত্র) ও সাদিক মো. সাইমন (জান্নাত)
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী প্রধান চরিত্র: জয়া আহসান (দেবী)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা পার্শ্ব-চরিত্র: আলীরাজ (জান্নাত)
শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী পার্শ্ব-চরিত্র: সুচরিতা (মেঘকন্যা)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা খল চরিত্র: সাদেক বাচ্চু (একটি সিনেমার গল্প)
শ্রেষ্ঠ অভিনেতা কৌতুক চরিত্র: মোশাররফ করিম (কমলা রকেট) ও আফজাল শরিফ (পবিত্র ভালোবাসা)
শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী: ফাহিম মুহতাসিম লাজিম (পুত্র)
শিশুশিল্পী শাখায় বিশেষ পুরস্কার: মাহমুদুর রহমান (মাটির প্রজার দেশে)
শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক: ইমন সাহা (জান্নাত)
শ্রেষ্ঠ নৃত্য পরিচালক: মাসুম বাবুল (একটি সিনেমার গল্প)
শ্রেষ্ঠ গায়ক: নাইমুল ইসলাম রাতুল (গান: যদি দুঃখ ছুঁয়ে, চলচ্চিত্র: পুত্র)
শ্রেষ্ঠ গায়িকা: সাবিনা ইয়াসমিন (গান: ভুলে মান অভিমান, চলচ্চিত্র: পুত্র) ও আঁখি আলমগীর (গান: গল্প কথার ঐ, চলচ্চিত্র: একটি সিনেমার গল্প)
শ্রেষ্ঠ গীতিকার: কবির বকুল (গান: যদি এভাবেই ভালোবাসা, চলচ্চিত্র: নায়ক) ও জুলফিকার রাসেল (গান: যদি দুঃখ ছুঁয়ে দেখো, চলচ্চিত্র: পুত্র)
শ্রেষ্ঠ সুরকার: রুনা লায়লা (গান: গল্প কথার ঐ, চলচ্চিত্র: একটি সিনেমার গল্প)
শ্রেষ্ঠ কাহিনিকার: সুদীপ্ত সাঈদ খান (জান্নাত)
শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার: সাইফুল ইসলাম মান্নু (পুত্র)
শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা: এস. এম. হারুন-অর-রশীদ (পুত্র)
শ্রেষ্ঠ সম্পাদক: তারিক হোসেন বিদ্যুৎ (পুত্র)
শ্রেষ্ঠ শিল্প নির্দেশক: উত্তম কুমার গুহ (একটি সিনেমার গল্প)
শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক: জেড এইচ মিন্টু (পোস্ট মাস্টার ৭১)
শ্রেষ্ঠ শব্দগ্রাহক: আজম বাবু (পুত্র)
শ্রেষ্ঠ পোশাক ও সাজসজ্জা: সাদিয়া শবনম শানতু (পুত্র)
শ্রেষ্ঠ মেকআপ আর্টিস্ট: ফরহাদ রেজা মিলন (দেবী)।

/এম/এমএম/

লাইভ

টপ