behind the news
IPDC  ad on bangla Tribune
Vision  ad on bangla Tribune

মিলবে আসিফের কন্যার খবর!

বিনোদন রিপোর্ট১৫:৩৯, জানুয়ারি ২৮, ২০১৬

গানের দৃশ্যে পিতা চরিত্রে কাঁচা-পাকা চুলে আসিফব্যক্তিজীবনে তিনি দুই পুত্রসন্তানের (রণ ও রুদ্র) জনক। আসিফ ভক্তরা সেটা জানেন। ক্যাডেট পড়ুয়া দুই ছেলেকে নিয়ে অন্তর্জাল দুনিয়ায় এ তারকা পিতার গর্ব আর প্রশান্তির আভাসও নিয়মিত পাওয়া যায় তার বিভিন্ন পারিবারিক ছবি আর সামাজিক মাধ্যমে পোস্টের মধ্য দিয়ে। যদিও দুই ছেলেকে নিয়ে আসিফের তেমন কোনও গান কিংবা এ কেন্দ্রিক কার্যক্রম লক্ষ করা যায়নি এখনও।

বরাবরই তিনি ছেলেদের কাছে নিজেকে রেখেছেন, একজন বন্ধুবৎসল সাধারণ পিতা হিসেবে। তার ভাষায়, ‘আমি ছেলেদের কাছে বন্ধুত্ব দাবি করি সবসময়; পিতাও নয়, তারকাও নয়। তাই ওদের কাছে পেলে গান-বাজনা-মিডিয়া ভুলে আমি হয়ে যাই, তাদের স্কুল মাঠের বন্ধু। ফিরে পাই নিজের শৈশব।’

ছেলে অন্তঃপ্রাণ এই তারকা পিতা এবার সে জায়গা থেকে খানিক বেরিয়ে এলেন। গানে ও ভিডিওতে প্রকাশ করতে যাচ্ছেন পিতৃত্বের অকৃত্রিম রূপ। সবার সামনে কাঁচা-পাকা চুল নিয়ে হাজির হচ্ছেন পিতা আসিফ আকবর। যদিও গানটিতে পিতা আসিফের সঙ্গে তার পুত্রদ্বয়কে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি পর্দায় হাজির হচ্ছেন তার কন্যাকে নিয়ে! কিন্তু দুই পুত্রের জনক আসিফ আকবরের আবার কন্যা এলো কোথা থেকে?

তার আগে জেনে নেওয়া যাক, মিউজিক ভিডিওটি প্রসঙ্গে। আসিফ-ন্যান্‌সি গেল বছর নতুন করে কণ্ঠে তুলেছেন কাজী হায়াত পরিচালিত ‘দ্য ফাদার’ ছবির সেই বিখ্যাত গান ‘আয় খুকু আয়’ গানটি। যেটির মূল দুই শিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ও শ্রাবন্তী মজুমদার। আসিফ-ন্যান্‌সির কণ্ঠে গাওয়া এ গানটি স্থান পায় তাদের ‘ঝগড়ার গান’ অ্যালবামে। নতুন করে গাওয়া গানটি বেশ প্রশংসিত হয়। সেই প্রশংসার পালে আরেকটু হাওয়া লাগাতেই সম্প্রতি নির্মিত হলো এর গল্পনির্ভর একটি ভিডিও। যাতে আসিফ আকবর বাবার চরিত্রে অভিনয় করেছেন। আর কন্যা হিসেবে ন্যান্‌সির বদলে আছেন তাসিন ও শ্যারন নামের দুই মডেল। এটি নির্মাণ করেছেন ইয়ামিন ইলান। গানটি এখন সম্পাদনার টেবিলে। দুই সপ্তাহের মধ্যে এটি মুক্ত হবে আসিফের ইউটিউব চ্যনেলসহ বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে।  

স্ত্রী ও দুই পুত্রের সঙ্গে আসিফব্যক্তিজীবনে দুই পুত্রের জনক বলেই কি কন্যাকে নিয়ে এমন ঐতিহাসিক গানটিকে নতুন করে বেছে নিলেন? আসিফ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘না। তেমন কিছু মোটেই নয়। এটা ঠিক, একটা মেয়ে থাকলে ভালোই লাগত। তবে দুই ছেলেকে নিয়ে আমি শতভাগ খুশি।’ আসিফ আরও বলেন, ‘গানটির সঙ্গে আমার অনেক আবেগ জড়িত। ছোটবেলা থেকে গানটি শুনে বড় হয়েছি। এখনও নিয়মিত শুনছি। আমার সদ্য প্রয়াত এক দুলাভাই সারাজীবন আমাকে বলেছেন- এ ধরনের গান গাইবার জন্য। পুলক বন্দোপাধ্যায়ের লেখা এ গানটির কথা-সুরে যে নাস্টালজিয়া আছে সেটা সব পিতা ও সন্তানের কাছেই সমান আবেদন রাখে। সে জন্যই গানটি গাইলাম এবং ভিডিও করলাম। সে ভিডিওতে বাবার দুটি চরিত্রে অভিনয়ও করলাম। ভালোই লেগেছে।’

/এমআই/এমএম/

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

IPDC  ad on bangla Tribune
টপ