behind the news
Rehab ad on bangla tribune
Vision Refrigerator ad on bangla Tribune

যখন হয়ে যান শেষের অতিথি!

বিনোদন রিপোর্ট১৬:৪১, ফেব্রুয়ারি ০১, ২০১৬

কোনও উল্লেখযোগ্য অনুষ্ঠানের অন্যতম অতিথি যখন সে অনুষ্ঠান শেষ হওয়ারও বেশ পরে হাজির হন, তখন সেটাকে কী বলা যায়? অনেকেই উপস্থিত বুদ্ধি খাটিয়ে বিষয়টিকে নতুন নামে বিশেষায়িত করতে চাইলেন রবিবার সন্ধ্যায়। বললেন, এটা সম্ভবত ‘শেষের অতিথি’।

প্রিন্স মাহমুেদের অনুষ্ঠানের দুই প্রধান অতিথিপ্রসঙ্গত, প্রিন্স মাহমুদের কথা-সুরে ‘খেয়াল পোকা’ অ্যালবামের প্রকাশনা উৎসব। অনুষ্ঠানের অন্যতম অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল, দেশের দুই স্বনামধন্য সংগীতশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ ও আইয়ুব বাচ্চুর।
রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বেইলি রোডের একটি রেস্তোরাঁয় অনুষ্ঠিত হলো তারকাখচিত প্রকাশনা উৎসব। যাতে অ্যালবামের শিল্পীরা ছাড়াও যথাসময়ে হাজির ছিলেন দেশের অন্যতম এবং জনপ্রিয় শিল্পী, সুরকার, গীতিকার, নির্মাতা, সাংবাদিক এবং কর্পোরেট অঙ্গনের শীর্ষ ব্যক্তিরা। অনুষ্ঠান শুরুর সময় ছিল বিকাল সাড়ে চারটা। পাঁচটার মধ্যেই সম্ভাব্য সবাই হাজির।
অপেক্ষা শুধু অনুষ্ঠানের প্রধান দুই তারকা অতিথি কুমার বিশ্বজিৎ এবং আইয়ুব বাচ্চুর জন্য। যদিও বিকাল পাঁচটা থেকেই আয়োজকরা একে অপরের সঙ্গে বলাবলি করছেন, অতিথি দুজনেই রওনা হয়েছেন। রাস্তায় আছেন। এখনই চলে আসবেন। রাত সাতটা নাগাদ তারা আসেননি। একরকম বাধ্য হয়েই প্রিন্স মাহমুদের সবুজ সংকেত নিয়ে কণ্ঠশিল্পী তপুর মাইক্রোফোন হাতে শুরু করলেন অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিকতা।
তপুর সঞ্চালনায় শুরু হলো উপস্থিত অতিথি ও অ্যালবামের শিল্পী-সংশ্লিষ্টদের শুভেচ্ছা বক্তব্যের পালা। প্রিন্স মাহমুদ ও তার গান নিয়ে বক্তাদের প্রাণবন্ত আলাপে মুগ্ধতা ছড়ায় পুরো অনুষ্ঠানজুড়ে। এভাবে ঘড়ির কাটা রাত আটটার ঘরে। তখনও অনুষ্ঠানের অন্যতম সেই দুই অতিথি অনুপস্থিত! এদিকে ঘণ্টাব্যাপী বক্তব্য পর্ব শেষে আর তেমন কেউ নেই- যাকে মঞ্চে ডেকে কিছু একটা বলানো যায় কিংবা সময় কাটানো যায়। অতঃপর একরকম বাধ্য হয়েই সোয়া আটটার দিকে সবাইকে মঞ্চে ডেকে নিলেন সঞ্চালক তপু। অন্যতম প্রধান দুই অতিথি ছাড়াই আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হলো ‘খেয়াল পোকা’র!
প্রিন্স মাহমুদের সঙ্গে আইয়ুব বাচ্চুর করমর্দনএরপর খাওয়া, আড্ডা আর ফটোসেশন পর্ব চললো আরও প্রায় ঘণ্টাখানেক।
রাত সাড়ে আটটার দিকে প্রথমে অনুষ্ঠানস্থলে পা রাখলেন কুমার বিশ্বজিৎ। এসেই দুঃখ প্রকাশ করলেন। বললেন, ‘রাস্তায় প্রচুর জ্যাম।  প্রায় দেড় ঘণ্টার সিগন্যালে আটকে ছিলাম।’ তার এই যুক্তির পেছনে সত্যতা মিলেছে। আরও অনেকেই সমর্থন করে বললেন, ‘ঘটনা সত্যি। ভিভিআইপি সিগন্যাল ছিল।’ তার ওপর কুমার বিশ্বজিৎ এসেছেন উত্তরা থেকে।
কিন্তু অন্য অতিথি আইয়ুব বাচ্চুর কী হলো? তার স্টুডিও-বাসা তো বেইলিরোড থেকে পাঁচ মিনিটের হাঁটা পথ। অবশ্য দূরে কোথাও স্টেজ শো-ও থাকতে পারে ব্যান্ড এলআরবি’র। নাকি তিনি আসবেন-ই না! এমন ভাবনা নিয়ে যখন অনুষ্ঠানের সিংগভাগ মানুষ বাড়ির পথে, তখন সবাইকে চমকে হাজির হলেন আইয়ুব বাচ্চু। অন্যতম অতিথি আইয়ুব বাচ্চুর এভাবে ‘শেষের অতিথি’ বনে যাওয়ার কারণটা আর জানা হলো না। শুধু এসেই প্রিন্স মাহমুদের বুকে বুক মিলালেন, গালে খেলেন আলতো চুমু।
তবে জনাকয়েক সাংবাদিকের আক্ষেপ বোধহয় থেকেই গেল- শেষ অতিথির বক্তব্যটা আর শোনা গেল না!  


প্রিন্স মাহমুদের সঙ্গে হাসান মতিউর ও কুমার বিশ্বজিৎ/এমএম/

Ifad ad on bangla tribune

লাইভ

Nitol ad on bangla Tribune
টপ