আর নেই গানের কারিগর রবিন ঘোষ

বিনোদন রিপোর্ট১২:২৮, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৬

বেঁচে নেই উপমহাদেশের অন্যতম খ্যাতিমান সুরকার-সংগীত পরিচালক রবিন ঘোষ। আজ শনিবার সকাল সাড়ে আটটায় রাজধানীর গুলশানের কিউর মেডিক্যাল সেন্টারে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে এই গুণী মানুষটির বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। খবরটি বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন দেশের আরেক নন্দিত সংগীত পরিচালক আলাউদ্দীন আলী। 

রবিন ঘোষ এর পেইন্টিংবিখ্যাত সুরকার রবিন ঘোষ বেশ ক’দিন ধরেই ব্রঙ্কাইটিস ও হৃদরোগে ভুগছিলেন। রবিন ঘোষের স্ত্রী চলচ্চিত্র অভিনেত্রী শবনম জানান, আজ শনিবার বিকালে ওয়ারিতে রবিন ঘোষের শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।
রবিন ঘোষের প্রস্থানে সংগীতাঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তার প্রসঙ্গে আলাউদ্দীন আলী বলেন, ‘আজ সকালে আমার খুব প্রিয় মানুষ রবিন দা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। এই মাপের সুরকার আর ভালো মানুষ শতাব্দীতেও জন্মায় না।’ স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘লাহোরে ১৯৮৭/৮৮ সালে চলচ্চিত্রের মিউজিক করার সময় দিন-রাত আমার সঙ্গে সময় দিয়ে আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন তিনি। পরশু দিনও আমি শবনম দিদির সঙ্গে রবিন দাকে নিয়ে কথা বলেছি। আল্লাহ রবিন দার আত্মার শান্তি দান করুন।’

প্রসঙ্গত, ১৯৬০-এর দশকে চলচ্চিত্র পরিচালক এহতেশাম রেডিও স্টেশন পরিদর্শনে আসেন। সেখানে তিনি রবিন ঘোষকে তার চলচ্চিত্রের গানে সুর দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান। ‘রাজধানীর বুকে’ নামের একটি বাংলা চলচ্চিত্রের গানের মাধ্যমে রবিন ঘোষের অভিষেক ঘটে। এরপর থেকে তিনি প্রচুর বাংলা ও উর্দু চলচ্চিত্রে সংগীত পরিচালনা করেন। উল্লেখযোগ্য ছবি হলো- ‘তালাস’, ‘পয়সা’, ‘চাকোরী’, ‘ভাইয়া’ প্রভৃতি।

স্ত্রী শবনমের সঙ্গে রবিন ঘোষ‘তুম মেরে হো’ চলচ্চিত্রটি মুক্তিলাভের পর রবিন ঘোষ ঢাকা থেকে করাচি চলে যান। সেখানে তিনি চলচ্চিত্রের গানে ১৯৮০-এর দশক পর্যন্ত নিয়মিত কাজ করেন। তার সংগীত পরিচালনায় ‘আয়না’ ছবিটি পাকিস্তানের চলচ্চিত্রের ইতিহাসের অন্যতম ব্যবসা সফল চলচ্চিত্রের মর্যাদা পেয়েছিল। 

১৯৩৯ সালে বাগদাদে জন্মগ্রহণ করেন রবিন ঘোষ। ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি তারর প্রবল আগ্রহ ছিল। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর পরিবারের সঙ্গে ঢাকায় ফিরে আসেন তিনি। ‘তোমারে লেগেছে এত যে ভালো’, ‘ফুলের কানে ভ্রমর এসে’, ‘পিচ ঢালা এই পথটারে’ সহ অসংখ্য গানের সুর করে তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন রবিন ঘোষ।

/এস/এমএম/

লাইভ

টপ