বিএফডিসির জানাজায় খোকনের ছেলে‘এমন বাবা আর কারও আছে কিনা জানা নেই’

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৭:২৭, এপ্রিল ০৪, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৩৩, এপ্রিল ০৪, ২০১৬

শেষবিদায়ে খোকনপ্রিয় প্রাঙ্গণ, চেনা রাস্তা, দালান, বৃক্ষরাজ। কিন্তু পার্থক্যটা- অসীম। আগে যে প্রাঙ্গণে দৌড়ে বেড়িয়েছেন, আড্ডা দিয়েছেন; সেখানে এখন নিজেই স্থির।
নির্মাতা শহীদুল ইসলাম খোকন। নিথর দেহে শেষবারের মতো প্রিয় এলাকা বিএফডিসিতে এলেন। তাকে শেষবিদায় জানাতে জড়ো হয়েছেন দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা। বাদ আছর জানাজার আগে তারা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
এসময় উপস্থিত ছিলেন এটিএম শামসুজ্জামান, গাজী মাজহারুল আনোয়ার, ফরিদুর রেজা সাগর, সোহেল রানা, কাজী হায়াৎ, আমজাদ হোসেন, আনোয়ারা, আলমগীর, মুশফিকুর রহমান গুলজার, সোহনুর রহমান সোহান, রুবেল, আলী রাজ, মিজু আহমেদ, ওমর সানী, জুলফিকার রাসেল, আব্দুর রহমান, মিল্টন খন্দকার, ড্যানি সিডাক, সাইমনসহ অনেকে। উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। 
এসময় তার ছেলে হৃদয় বলেন, ‘আমার বাবা কাজপাগল মানুষ ছিলেন। আবার পরিবারের জন্য শতভাগ আন্তরিক ছিলেন। তিনি বাবা হিসেবে অসাধারণ। এমন বাবা আর কারও আছে কিনা জানা নেই। বাবার জন্য সবাই দোয়া করবেন।’খোকনের ছেলে হৃদয়


এদিকে বিএফডিসিতে তার দ্বিতীয় জানাজা শেষ হয় আজ (সোমবার) বিকাল ৫টা ২৪ মিনিটে। এরপর উত্তরা সিটি করপোরেশন কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হয়।বিএফডিসিতে ফরিদুর রেজা সাগর ও ওমর সানী
এর আগে দুপুরে উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টর মসজিদে শহীদুল ইসলাম খোকনের প্রথম জানাজা হয়েছে।
চলচ্চিত্র নির্মাতা শহীদুল ইসলাম খোকন দীর্ঘদিন ধরেই ক্যান্সারে ভুগছিলেন। আজ (সোমবার) সকাল সোয়া ৮টায় উত্তরা আধুনিক হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।
মুখগহ্বরের মোটর নিউরো ডিজিসে (এএলএস) আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। এই গুণী নির্মাতার উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারও এগিয়ে আসে।শহীদুল ইসলাম খোকনকে নিয়ে কথা বলছেন এটিএম শামসুজ্জামান তাকে ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হলে নিউইয়র্কের বেলভিউ হাসপাতালের চিকিৎসকেরা জানিয়ে দেন, এ রোগের নিরাময় সম্ভব নয়। এর পর তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তখন থেকেই ধানমণ্ডি ও উত্তরার বিভিন্ন হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছিল।বিএফডিসিতে জানাজা

ছবি: মাহমুদ মানজুর

/এমএম/এম

লাইভ

টপ