Vision  ad on bangla Tribune

জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি দ.কোরিয়ার ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট

বিদেশ ডেস্ক১৪:২২, মার্চ ২১, ২০১৭

পার্ক জিউন হাই এর সমর্থকরা তার বাড়ির সামনে বীড় জমানদক্ষিণ কোরিয়ার অভিশংসিত প্রেসিডেন্ট পার্ক জিউন হাইকে দুর্নীতিজনিত কেলেঙ্কারির বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছেন প্রসিকিউটররা। মঙ্গলবার এ জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয় এবং রাত পর্যন্ত তা চলবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এদিন জনগণের কাছে দুঃখ প্রকাশ করার পাশাপাশি জিজ্ঞাসাবাদে সহযোগিতা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন এ সাবেক প্রেসিডেন্ট।

প্রেসিডেন্ট পদে থাকাকালীন দায়মুক্তিজনিত ক্ষমতাবলে এ ধরনের জিজ্ঞাসাবাদের প্রচেষ্টা উপেক্ষা করে গেছেন হাই। কিন্তু প্রেসিডেন্ট হিসেবে অভিশংসিত হওয়ার পর নিজের দায়মুক্তির ক্ষমতাও হারিয়েছেন তিনি। আর তাই, মঙ্গলবার (২১ মার্চ) থেকে শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ। মঙ্গলবার সিউলে পার্ক জিউন হাই-এর বাসভবনের সামনে তার সমর্থকরা জড়ো হন। তাকে পুলিশি পাহারায় প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের সামনে নিয়ে আসা হয়। সেই দৃশ্যটি আবার টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিতও হয়েছে। প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের সামনে পৌঁছানোর পর সাংবাদিকদের পার্ক জিউন হাই বলেন, ‘জনগণের কাছে আমি দুঃখিত। আমি আস্থাপূর্ণ থেকে এ জিজ্ঞাসাবাদে সহায়তা দেব।’  

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন পার্ক। এরপর থেকেই তার বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠে। পার্কের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ, নিজ ক্ষমতার অধীনে তিনি তার বন্ধুকে দুর্নীতি করার সুযোগ করে দেন।

পার্ক জিউন-হাইয়ের বন্ধু চোই সুন-সিল প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সম্পর্কের সুবাদে অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠান থেকে অনুদানের নামে ৬৫.৫ মিলিয়ন ডলার হাতিয়ে নেন। এর মধ্যে স্যামসাং এবং হুন্দাই-এর মতো কোম্পানিও রয়েছে। ওই অর্থ সন্দেহভাজন একটি ফাউন্ডেশনের নামে নেওয়া হয়। পরে তিনি সেখান থেকে আর্থিকভাবে লাভবান হন।

পার্ক জিউনের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি বন্ধুকে ওই অর্থ তুলতে সাহায্য করেন। তিনি চোই সুন-সিলকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে অর্থ উত্তোলনের অনুমতি দিয়েছিলেন। এছাড়া তিনি চোই-এর রাষ্ট্রীয় নথি ফাঁস করতে সহযোগীদের নির্দেশ দিয়েছেন। অথচ প্রেসিডেন্টের বন্ধু চোই কোনও রাষ্ট্রীয় পদেই নেই।

পার্লামেন্টে অভিশংসিত হওয়ার পর গত ডিসেম্বর থেকে পার্ককে প্রেসিডেন্ট হিসেবে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে রাখা হয়েছিল। আর এ সময় প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। গত ১০ মার্চ পার্ক জিউন হাইকে অভিশংসিত করা নিয়ে পার্লামেন্টের নেওয়া সিদ্ধান্তটি বহাল রাখে সাংবিধানিক আদালত। আর এর মধ্য দিয়ে চূড়ান্তভাবে ক্ষমতাচ্যুত হন হাই। আগামী ৯ মে দেশটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

/এফইউ/ 








 

লাইভ

টপ