behind the news
Vision  ad on bangla Tribune

সেই সাত বছর ভুলে যাওয়ার নয়: অ্যাসাঞ্জ

বিদেশ ডেস্ক২৩:৪০, মে ১৯, ২০১৭

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জধর্ষণ মামলায় সুইডিশ তদন্ত থেকে অব্যাহতি পাওয়ার ঘটনায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। একইসঙ্গে তিনি বলেছেন, তার জীবনের সাতটি বছর নষ্ট করা হয়েছে। এটা ক্ষমাহীন অপরাধ। এটা ভুলে যাওয়ার নয়। সুইডিশ কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের পর লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসের বারান্দায় দাঁড়িয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা।

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ বলেন, অন্যায্যভাবে আমাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করা হয়েছে। এই ধর্ষণের অভিযোগ আমাকে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় চাইতে বাধ্য করেছে।

উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা বলেন, এটা আমার এবং জাতিসংঘ মানবাধিকার ব্যবস্থার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিজয়। কিন্তু কোনও চূড়ান্ত অভিযোগ গঠন ছাড়াই সাতটি বছর বন্দি জীবনযাপনের মাধ্যমে জীবন থেকে সাতটি বছর মুছে ফেলার কোনও অর্থ হতে পারে না। এই সময়ে আমার সন্তানেরা বেড়ে উঠেছে। এটি ক্ষমা করা কিংবা ভুলে যাওয়ার মতো নয়।

উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা বলেন, তিনি আমেরিকান ও ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসতেও প্রস্তুত ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ও কূটনৈতিক তথ্য ফাঁসের দায়ে দেশটির কর্তৃপক্ষও তাকে গ্রেফতার করতে চেয়েছিল।

এদিকে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ-এর গ্রেফতারি পরোয়ানা এখনও বহাল রয়েছে বলে জানিয়েছে লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড। ফলে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাস থেকে বের হলেই তারা তাকে গ্রেফতারে বাধ্য। ধর্ষণ মামলায় সুইডিশ প্রসিকিউটররা অ্যাসাঞ্জ-এর বিরুদ্ধে তদন্তে ইতি টানার ঘোষণা দেওয়ার পর শুক্রবার স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডের এক বিবৃতিতে সংস্থাটির  এমন অবস্থানের কথা জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, ধর্ষণের অভিযোগে উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে প্রাথমিক তদন্ত আর অব্যাহত না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সুইডেনের প্রধান প্রসিকিউটর মারিয়ান নে। তবে লন্ডনে এখনও তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। ইকুয়েডর দূতাবাস থেকে বের হলেই আদালতে আত্মসমর্পণ না করার দায়ে তাকে গ্রেফতার করা হবে।

এর আগে ধর্ষণ মামলায় অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে তদন্তে ইতি টানার ঘোষণা দেন সুইডিশ প্রসিকিউটররা। শুক্রবার (১৯ মে) প্রসিকিউটরের কার্যালয়ের এক বিবৃতিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে।

সুইডিশ প্রসিকিউটরের কার্যালয় থেকে ওই ঘোষণা আসার কিছুক্ষণ পরই অ্যাসাঞ্জের টুইটার অ্যাকাউন্টে তার একটি হাস্যোজ্জ্বল ছবি প্রকাশ হয় বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা বাতিল করতে স্টকহোম ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে অনুরোধ জানিয়েছে মারিয়ান নে।

ইকুয়েডর সরকারের পক্ষ থেকে সুইডিশ সরকার একটি চিঠি পাওয়ার পর তদন্ত বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হলো। ওই চিঠিতে অভিযোগ করা হয়, তদন্ত সম্পূর্ণ করতে ‘উদ্যোগে ঘাটতি’ থাকাসহ ‘গুরুতর ব্যর্থতার’ পরিচয় দিয়েছেন প্রসিকিউটররা। যৌন নিপীড়নের অভিযোগে ছয় মাস আগে লন্ডনে সুইডিশ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে অ্যাসাঞ্জকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত সাড়া জাগানো বিকল্প সংবাদমাধ্যম উইকিলিকস বিশ্বজুড়ে আলোড়ন তুলতে সক্ষম হয় ২০১০ সালে। মার্কিন কূটনৈতিক নথি ফাঁসের মধ্য দিয়ে উইকিলিকস উন্মোচন করে মার্কিন সাম্রাজ্যের নগ্নতাকে। দুনিয়াজুড়ে আলোচনায় আসেন ওই সংবাদমাধ্যমের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ। ক্ষমতাশালী রাষ্ট্রগুলোর গোপন তথ্য উন্মোচনের মধ্য দিয়ে দুনিয়াব্যাপী আধিপত্যবাদবিরোধী মানুষদের প্রতীকী কণ্ঠস্বরে পরিণত হন তিনি। একটি ধর্ষণ মামলা দিয়ে ২০১০ সালে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।

২০১২ সাল থেকে যুক্তরাজ্যে ইকুয়েডরের দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে আছেন অ্যাসাঞ্জ। মূলত ২০১০ সাল থেকেই অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

 

Global Brand  ad on Bangla Tribune

লাইভ

টপ