ইরাক পুনর্গঠনে সহায়তা করা উচিত মার্কিন জোটের: টিলারসন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৫৪, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৮, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইরাক পুনর্গঠনে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের এগিয়ে আসা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাত দিয়ে একথা জানায় মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম মিডল ইস্ট মনিটর।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ইরাকে আইএসের মোকাবিলায় সরকারকে সহায়তা করেছে মার্কিন জোট। তিন বছর যুদ্ধের মাধ্যমে আইএস দমনের পর যুদ্ধবিধ্বস্ত ইরাক পুনর্গঠন করতে চায় সরকার। এজন্য তাদের সহায়তা করা উচিত বলে মনে করেন টিলারসন।  

কুয়েতে আন্তর্জাতিক এক সম্মেলনে টিলারসন বলেন, ‘ইরাক ও সিরিযায় জীবনযাত্রা স্বাভাবিক না হলে পুনরায় আইএসের দখলের শঙ্কা থেকে যায়। আমাদের অবশ্যই এই পরিস্থিতির উন্নয়নে কাজ করতে হবে।’

তবে যুক্তরাষ্ট্র আপাতত সরাসরি কোনও সহযোগিতা করবে না বলে জানান তিনি।

সোমবার ইরাকের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ পুনর্গঠন কাজে প্রয়োজন হবে ৮ হাজার ৮০০ কোটি ডলারেরও বেশি অর্থ। ওই সম্মেলনে পুনর্গঠন পরিকল্পনা তুলে ধরে এই তহবিলের প্রয়োজন বলে জানায় যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটি।

টিলারসন বলেন, ‘আমরা কি করবো সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। এখন তাদের সহায়তা প্রয়োজন। উন্নয়ন সহায়তা প্রতিষ্ঠানগুলোর এখন এগিয়ে আসা উচিত। আরব দেশগুলো সহায়তা করতে চাইলে এমনভাবে করতে হবে যেন স্থিতিশীলতা নিশ্চিত হয়। ’

ইরাকের মন্ত্রিসভার মহাসচিব মাহদী আল আলাক বলেন, অবকাঠামোগত উন্নয়নে ইরাকের এখন সহজ শর্তে ঋণ সুবিধা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে কয়েকটি দেশ এগিয়ে আসতে পারে বলেও ধারণা করছেন তারা।

বিশ্বব্যাংকের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক বিশেষজ্ঞ রাজা রেহান আরশাদ বলেছেন, আবাসন প্রকল্পে জরুরি ভিত্তিতে সহায়তা প্রয়োজন।

গত ১৫ বছর ধরে সহিংসতা চলছে ইরাকে। সাবেক প্রেসিডন্ট সাদ্দাম হুসেনকে উৎখাতের পর শিয়া-সুন্নির সংঘর্ষ দেখেছে দেশটি। কুর্দি বাহিনীও ছিল সশস্ত্র লড়াই শুরু করে। এরপর ২০১৪ সালে আইএস বিস্তীর্ণ এলাকা দখল করে তাণ্ডব শুরু করে।  গত ডিসেম্বরে তিন বছরের যুদ্ধের পর দখলকৃত অঞ্চল থেকে আইএসকে উৎখাত করে জয় ঘোষণা করে ইরাক। দেশটির প্রায় এক-তৃতীয়াংশ অঞ্চল এই জঙ্গির গোষ্ঠীর দখলে ছিল।   

 

/এমএইচ/

লাইভ

টপ