দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন প্রেসিডেন্ট রামাফোসা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:০৬, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৩৭, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৮

দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক টানাপোড়েনের ইতি টেনে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার পদত্যাগে পর তার স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন ক্ষমতাসীন দল এএনসির সভাপতি সিরিল রামাফোস। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার পঞ্চম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেশটির দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। জুমার পদত্যাগের পর প্রেসিডেন্ট পদে রামাফোসাকে মনোনয়ন দিয়েছে এএনসি। ২০১৪ সাল থেকে তিনি উপরাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

জ্যাকব জুমার সঙ্গে রামাফোসা (বামে)

নতুন প্রেসিডেন্টের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ দেশের আর্থিক অবস্থা স্থিতিশীল করা। দক্ষিণ আফ্রিকায় বেকারত্বের হার কমাতে যে বিনিয়োগ দরকার সে জন্য নিশ্চিত করতে হবে সুশাসন। আস্থা জাগাতে হবে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মনে। আর তাছাড়া জুমা-জামানায় হওয়া দুর্নীতির তদন্ত সফলভাবে শেষ করাটাও একটা বড় চ্যালেঞ্জ নতুন প্রেসিডেন্টের জন্য।

প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হওয়ার সম্ভাবনা থাকা ব্যক্তিদের মধ্য এগিয়ে ছিলেন রামাফোসা। নেলসন ম্যান্ডেলা তাকে উত্তোরসূরী মনোনীত না করায় থমকে যায় তার স্বপ্ন। তখন রাজনীতি ছেড়ে ব্যবসা শুরু করেছিলেন রামাফোসা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দুর্নীতির অভিযোগ মাথায় নিয়ে জুমা পদত্যাগ করলে স্বপ্ন পূরণ হয় রামাফোসার।

সব ঠিক থাকলে শুক্রবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেওয়ার কথা রামাফোসা।

২০১৯ সাল পর্যন্ত মেয়াদ ছিল জ্যাকব জুমার। কিন্তু ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। সেই জেরে তাকে দলীয় প্রধানের পদও ছাড়তে হয়েছিল। সংসদে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট ডাকা হয়েছিল। নেলসন ম্যান্ডেলা ফাউন্ডেশন তার পদত্যাগ চেয়েছিল। এমন কী নিজর দল এএনসিও তাকে সরে যেতে বলেছিল। সব উপেক্ষা করে ক্ষমতা আঁকড়ে ছিলেন জুমা।  

জুমাকে শান্তিপূর্ণভাবে পদত্যাগ করাতে উদ্যোগী ছিলেন রামাফোসা। পাহাড় সমান দুর্নীতি অভিযোগ থাকা সত্ত্বেও যদি জুমা পদত্যাগ না করেন তাহলে ২০১৯ সালের নির্বাচনে দলের ভরাডুবি হবে। আবার জোর করতে গেলে দল ভেঙে যেতে পারে। সেক্ষেত্রেও নির্বাচনে এএনসির সমস্যা হবে। তাই শান্তিপূর্ণভাবে জুমাকে পদত্যাগে করানোর জন্য রামাফোসাসহ দলের বর্ষীয়ান অন্যান্য নেতারা চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু জুমা রাজী হননি তখন।

চূড়ান্ত ব্যবস্থা হিসেবে সংসদে অনাস্থা ভোটে তাকে সরিয়ে দেওয়ার মতো পরিস্থিতির উদ্ভব হলে শেষ পর্যন্ত জ্যাকব জুমা প্রেসিডেন্ট পদ থেকে সরে দাঁড়ান। এরপর  সংসদে সিরিল রামাফোসা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন। নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে শুভেচ্ছা জানিয়েছন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রধান বিচারপতি।।

বিরোধীদল ‘ইকোনোমিক ফ্রিডম ফাইটার্স’ অবশ্য এতে খুশি না। তাদের প্রধান এএনসির সাবেক নেতা জুলিয়াস মালেমা জানিয়ে দিয়েছিলেন, তারা কোন প্রার্থী দেবে না। কারণ তারা এএনসির কাউকেই প্রার্থী হিসেব গ্রহণযোগ্যতা পাইয়ে দিতে চায় না।

অন্যদিকে ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্স সংসদ ভেঙে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে। তাদের দাবি সমর্থন করেছে ইএফএফ। সূত্র: বিবিসি।

 

/এএমএ/এএ/

লাইভ

টপ