অবশেষে বিশেষজ্ঞরা সিরিয়ার 'রাসায়নিক হামলার স্থানে' পৌঁছেছেন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:০৬, এপ্রিল ১৭, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৫, এপ্রিল ১৮, ২০১৮

‘অর্গানাইজেশন ফর দ্যা প্রোহিবিশন অফ কেমিক্যাল উয়েপন্স’ (ওপিসিডব্লিউ) যে রাসায়নিক অস্ত্র বিশেষজ্ঞদের সিরিয়াতে পাঠিয়েছিল, তারা অবশেষে রাসায়নিক হামলা হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠা দৌমা শহরে পৌঁছাতে পেরেছেন। সিরিয়ার সরকারি টেলিভিশনে চ্যানেলের বরাত দিয়ে বার্তাসংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। দলটি গত ৭ এপ্রিল রাসায়নিক হামলার মাধ্যমে প্রায় ৭৮ জনকে হত্যা ও অসংখ্য বেসামরিক নাগরিককে আহত করার অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করবে।

ওপিসিডব্লিউয়ের বিশেষজ্ঞরা সেখানে পৌঁছাবার আগেই রুশ কর্মকর্তারা গিয়েছিলেন। ফ্রান্স সন্দেহ প্রকাশ করে বলেছে, রুশ কর্মকর্তারা সেখানে রাসায়নিক হামলার প্রমাণ বিকৃত করার সুযোগ পেয়েছে। যদিও রাশিয়া বলেছে প্রমাণ বিনষ্টের মতো কোনও কিছু তারা করেনি। সিরিয়া ও রাশিয়ার বক্তব্য হচ্ছে, আদৌ কোনও রাসায়নিক হামলার ঘটনাই ঘটেনি। এমন কি পশ্চিমা দেশগুলোর সিরিয়ার বিরুদ্ধে আনা রাসায়নিক হামলার অভিযোগকে ‘সাজানো অভিযোগ’ আখ্যা দিয়েছে রাশিয়া। সিএনএন লিখেছে, রাসায়নিক অস্ত্রের বিষয়ে বিশেষজ্ঞ আন্তর্জাতিক ওই দলটি শনিবার থেকে দামেস্কে রয়েছে। কিন্তু এ কয়দিন তাদেরকে সংশ্লিষ্ট স্থানে যেতে দেওয়া হয়নি।

সংস্থাটির বর্তমান সভাপতি বাংলাদেশের আহ্বানে সোমবার অনুষ্ঠিত বৈঠকে রাসায়নিক হামলার তদন্তে সিরিয়া ও রাশিয়ার অসহযোগিতা থাকার কথা জানা গিয়েছিল। সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছিল, সুইডেনের স্থায়ী প্রতিনিধি পিটার লিকের ভাষ্য, ওপিসিডব্লিউয়ের পর্যবেক্ষকদের বাধা দিয়ে সিরিয়া ও রাশিয়ার নিরাপত্তারক্ষীরা তাদেরকে নিরাপত্তাহীনতার অজুহাত দেখিয়েছিল।

/এএমএ/

লাইভ

টপ