মানবাধিকারকর্মীদের ওপর চরম দমন-পীড়নকারী ৩৮টি দেশের নিন্দায় জাতিসংঘ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:১০, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১৬, সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮

জাতিসংঘকে মানবাধিকার লঙ্ঘনের তথ্য প্রদানকারীদের ওপর ব্যাপক দমন-পীড়ন পরিচালনা ও ভীতি প্রদর্শনকারী ৩৮টি দেশকে তালিকাভুক্ত করেছে জাতিসংঘ। চীন ও রাশিয়াসহ এ ৩৮টি দেশের এ ধরনের কর্মকাণ্ডকে 'লজ্জাজনক' আখ্যা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে দেশগুলোকে দুইটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। নতুন দমন-পীড়নের ঘটনা লিপিবদ্ধ করার ক্যাটাগরিতে রয়েছে ২৯টি দেশ। আর পুরনো ঘটনার ধারাবাহিকতা বজায় থাকার ক্যাটাগরিতে রয়েছে ১৯টি দেশ। দশটি দেশের নাম দুই ক্যাটাগরিতে রয়েছে। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন থেকে এসব কথা জানা গেছে।

জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস
মানবাধিকার ইস্যুতে জাতিসংঘকে সহায়তা প্রদানকারী ব্যক্তি ও মানবাধিকারকর্মীদের ওপর হুমকি-ধামকি ও প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের চিত্র নিয়ে জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেছেন। সেখানে অভিযোগ করা হয়েছে, বিভিন্ন দেশে মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার ব্যক্তি ও মানবাধিকারকর্মীদের সঙ্গে বাজে ব্যবহার, তাদেরকে নজরে রাখা, দৃর্বৃত্তায়ন ও কালিমা লেপন করা হয়।

প্রতিবেদনে গুতেরেস লিখেছেন, ‘যেসব সাহস মানুষ মানবাধিকারের সুরক্ষায় সোচ্চার হয়, জাতিসংঘকে তথ্য দিয়ে সহায়তা করে তাদের কাছে বিশ্ব ঋণী।’ তিনি আরও বলেন ‘জাতিসংঘকে সহযোগিতা করার কারণে মানুষকে সাজা দেওয়াটা লজ্জাজনক চর্চা। এ ধরনের চর্চা বন্ধে সবাইকে আরও অনেক কিছু করতে হবে।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, বিভিন্ন দেশের সরকার প্রায়ই মানবাধিকারকর্মীদেরকে সন্ত্রাসবাদের দায়ে অভিযুক্ত করে। বিদেশি সরকারকে সহযোগিতা এবং রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা ও মর্যাদা ক্ষুণ্নের জন্য দোষী সাব্যস্ত করে। যে নারীরা জাতিসংঘকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করে তাদেরকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়।

জাতিসংঘের তালিকা অনুযায়ী, যে ২৯টি দেশে নতুন করে মানবাধিকারকর্মীদের দমন-পীড়নের ঘটনা ঘটেছে সেগুলো হলো-বাহরাইন, ক্যামেরুন, চীন, কলম্বিয়া, কিউবা, কঙ্গো, জিবুতি, মিসর, গুয়াতেমালা, গায়ানা, হন্ডুরাস, হাঙ্গেরি, ভারত, ইসরায়েল, কিরগিজিস্তান, মালদ্বীপ, মালি, মরক্কো, মিয়ানমার, ফিলিপাইন, রাশিয়া, রুয়ান্ডা, সৌদি আরব, দক্ষিণ সুদান, থাইল্যান্ড, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো, তুরস্ক, তুর্কমেনিস্তান এবং ভেনেজুয়েলা।

আগের ঘটনার ধারাবাহিকতা বজায় থাকতে দেখা গেছে ১৯টি দেশে। এ দেশগুলো হলো-আলজেরিয়া, বাহরাইন, বুরুন্ডি, চীন, মিসর, ভারত, ইরান, ইরাক, জাপান, মেক্সিকো, মরক্কো, মিয়ানমার, পাকিস্তান, রুয়ান্ডা, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত, উজবেকিস্তান ও ভেনেজুয়েলা।

এরমধ্যে, দুই ক্যাটাগরিতেই নাম রয়েছে ১০টি দেশের সেগুলো হলো- বাহরাইন, চীন, মিসর, ভারত, মরক্কো, মিয়ানমার, রুয়ান্ডা, সৌদি আরব, থাইল্যান্ড, ভেনেজুয়েলা।

/এফইউ/

লাইভ

টপ