উন্মুক্ত হলো আইফোনের নতুন তিন সংস্করণ

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০৩:২৯, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:১০, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৮

বুধবার অ্যাপেল উন্মুক্ত করল আইফোনের নতুন তিনটি সংস্করণ। এগুলো হলো আইফোন এক্সআর, এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্স। এগুলোর মূল্য শুরু হচ্ছে যথাক্রমে ৭৪৯ ডলার, ৯৯৯ ডলার এবং ১০৯৯ ডলার থেকে। সবগুলো ফোনেই ব্যবহৃত হয়েছে এ১২ চিপসেট। অ্যাপেলের দাবি, নতুন চিপসেটের কারণে অ্যাপ ওপেন হওয়ার গতি বৃদ্ধি পাবে প্রায় ৩০ শতাংশ। নতুন আইফোনগুলোর বুকিং নেওয়া শুরু হবে আগামী শুক্রবার থেকে। আর সেগুলো ক্রেতাদের কাছে পাঠানো শুরু হবে আগামী ২১ তারিখ। তবে এক্সআরের বুকিং শুরু হবে আগামী ১৯ তারিখ থেকে। সেগুলো ২৬ অক্টোবরের আগে পাওয়া যাবে না। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান মন্তব্য করেছে, সবার আগে আইফোন কেনার যে ঝোঁক আইফোন ভক্তদের রয়েছে সেই ঝোঁককে কাজে লাগাতেই হয়তো তুলনামূলকভাবে সস্তা এক্সআরের প্রাপ্যতার সময় পিছিয়ে দিয়েছে অ্যাপেল।

বিশ্বের প্রথম এক লাখ কোটি ডলার মূল্যমানের প্রতিষ্ঠানে পরিণত হওয়া অ্যাপেল ফোন বিক্রিতে পিছিয়ে গেছে। ইতিহাসে প্রথবারের মতো চীনের হুয়াওয়ের তৈরি ফোনের বিক্রি ছাড়িয়ে গেছে অ্যাপেলের আইফোনকে। নতুন আইফোন সেদিক থেকে পড়বে এক বড় পরীক্ষার মুখে। সে পরীক্ষায় উতরাতে অ্যাপেল যে নতুন আইফোন নিয়ে এসেছে তার দামি সংস্করণ দুইটি হচ্ছে এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্স। এদের পার্থ্যক্য এদের ডিসপ্লের দৈর্ঘ্যে। এক্সএসে রয়েছে ৫.৮ ইঞ্চির ডিসপ্লে। আর এক্সএস ম্যাক্সে ৬.৫ ইঞ্চির ডিসপ্লে। অ্যাপেলের এ দুইটি ফোনে ব্যবহৃত হয়েছে ‘সুপার রেটিনা’ ওলেড এইচডিআর ডিসপ্লে।

এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্সের ফোনগুলোতে ৬৪, ২৫৬, ৫১২ জিবি মেমোরি পাওয়া যাবে তথ্য ধারণের জন্য। র‍্যাম থাকছে চার জিবি করে। দুই ফোনেই সামনের দিকের ক্যামেরা সাত মেগাপিক্সেলের। পেছনে রয়েছে একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ও একটি টেলিফটো লেন্স। দুইটিই ১২ মেগাপিক্সেলের।

আইফোন এক্সআরের ডিসপ্লের দৈর্ঘ্য ৬.১ ইঞ্চি। এতে এলসিডি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হলেও অ্যাপেল এই ডিসপ্লেকে ‘লিকুইড রেটিনা’ আখ্যা দিয়ে বলেছে, ফোনে ব্যবহৃত এলসিডি ডিসপ্লেগুলোর মধ্যে এটিই এখন পর্যন্ত সবচেয়ে উন্নত প্রযুক্তির এলসিডি। এটি পাওয়া যাবে ৬৪, ১২৮ ও ২৫৬ জিবির মেমোরিসহ। এতে র‍্যাম থাকছে ৩ জিবি। এক্সআরের পেছন দিকে ১২ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড অ্যাঙ্গেলের লেন্সে নেই টেলিফটো লেন্স। তবে অপেক্ষাকৃত দামি অপর দুইটি ফোনের মতো এর সামনের দিকেও রয়েছে ৭ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা।
সবগুলো ফোনেই থাকছে দুইটি সিম ব্যবহার করার সুবিধা। তবে ফোনে একটি সিম সরাসরি যুক্ত করা যাবে। ডুয়েল সিমের সুবিধা পেতে লাগবে ই–সিম ফিচার সমর্থন করে এমন মোবাইল সেবা প্রদানকারীর সংযোগ।
নতুন পণ্য উন্মোচনের অনুষ্ঠানে বুধবার অ্যাপেলের এসভিপি লিসা জ্যাকসন জানিয়েছেন, অ্যাপেল শতভাগ পুনর্ব্যবহার্য জ্বালানির ওপর নির্ভর করে। প্রতিষ্ঠানটি এখন শতভাগ পুনর্ব্যবহার্য উপাদান ব্যবহার করার লক্ষ্যও স্থির করেছে। এ উদ্দেশ্যে নতুন ফোনগুলোর লজিকবোর্ডে টিন ব্যবহার করা হয়েছে। স্পিকার বসানোর স্থানে যোগ হয়েছে রিসাইকেল করা প্লাস্টিক।
নতুন আইফোনের পাশাপাশি অ্যাপেল উন্মোচন করেছে নতুন অ্যাপেল ওয়াচও। এতে স্বাস্থ্যের অবস্থা পর্যবেক্ষণের জন্য আগে থেকেই যুক্ত হার্ট রেট অ্যালার্ট ব্যবস্থায় যুক্ত হয়েছে নতুন সুবিধা। অসুস্থ হয়ে পড়ে গেলে সেটি চিহ্নিত করতে পারা, জরুরি চিকিৎসা সেবার জন্য যোগাযোগ করা এবং যেকোনও সময় ইসিজি করার সুবিধা যোগ হয়েছে এতে। আগামী শুক্রবার থেকে অ্যাপেল ওয়াচের বুকিং দেওয়া যাবে। ২১ তারিখ থেকে সেগুলো পাওয়া যাবে। অ্যাপেল ওয়াচের দাম শুরু হচ্ছে ৪০০ ডলার থেকে।

/এএমএ/

লাইভ

টপ