মার্কিন সেনাবাহিনী নিয়ে বলার অধিকার কোথায় পেলেন: গুইদোকে সিনেটরের প্রশ্ন

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৭:১১, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:২৪, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯

ভেনেজুয়েলার স্বঘোষিত প্রেসিডেন্ট হুয়ান গুইদোকে নিজের এখতিয়ার সম্পর্কে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন একজন মার্কিন সিনেটর। এক সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে মার্কিন সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপের প্রশ্ন আসলে তা অনুমোদনের ইঙ্গিত দিয়েছেন গুইদো। শনিবার এক টুইট বার্তায় প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতা রো খান্না দাবি করেছেন, গুইদো মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রতিনিধিত্বকারীর অবস্থান নিয়েছেন। ক্যালিফোর্নিয়ার এই আইনপ্রণেতা প্রশ্ন তুলেছেন, এই এখতিয়ার তিনি কোথায় পেলেন।ডেমোক্র্যাট সিনেট সদস্য রো খান্না

নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকট ভেনেজুয়েলার জনগণকে তাড়িত করেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে। বিক্ষোভের সুযোগে ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা জুয়ান গুইদো। যুক্তরাষ্ট্রের কাছেই প্রথম স্বীকৃতি পান স্বঘোষিত এই প্রেসিডেন্ট। কেবল তাই নয়। তাকে স্বীকৃতি দেওয়ারও বহু আগে  সেই ২০১৭ সালের মাঝামাঝি থেকে ভেনেজুয়েলায় সামরিক আগ্রাসনের বাসনার কথা প্রকাশ্যে বলছেন ট্রাম্প।  চলমান সংকটের প্রেক্ষাপটে তার প্রশাসন আবার বলেছে, মাদুরোকে উৎখাতে সামরিক হস্তক্ষেপের সম্ভাব্যতাও তাদের বিবেচনায় রয়েছে। ৮ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপিকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে গুইদো জানিয়েছেন, এমন হস্তক্ষেপের প্রশ্ন এলে তিনি মার্কিন সেনাবাহিনীর ভেনেজুয়েলায় প্রবেশ অনুমোদন করতেও পারেন। আইনপ্রণেতা রো খান্না একেই মার্কিন সেনাবাহিনীর প্রতিনিধিত্বকারী অবস্থান দাবি করে গুইদোকে একহাত নিয়েছেন।

শুক্রবার এএফপিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে গুইদো বলেন, মার্কিন সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপের প্রশ্ন একটি বিতর্কিত বিষয় হলেও মানবিক সংকট উত্তোরণে তিনি নিজ দেশে তা অনুমোদন করতে পারেন। গুইদো বলেন, ‘মানুষের জীবন রক্ষায় .. প্রয়োজনীয় যে কোনও কিছু করতে রাজি তিনি।’ আগ্রাসনবিরোধী হিসেবে পরিচিত মার্কিন সিনেটর খান্না বলতে চাইছেন, গুইদো যুক্তরাষ্ট্রের হয়ে মার্কিন সেনাবাহিনীর ভেনেজুয়েলায় প্রবেশের অনুমোদন দিয়েছেন। শনিবার এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘জনাব গুইদো, আপনি নিজেকে ভেনেজুয়েলার নেতা দাবি করতেই পারেন, কিন্তু মার্কিন সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপের অনুমোদন দিতে পারেন না। কেবল কংগ্রেসেরই সেই এখতিয়ার রয়েছে’।

/জেজে/বিএ/

লাইভ

টপ