ট্রাম্প প্রশাসনকে ‘সন্ত্রাসীদের আখড়া’ বললেন মাদুরো

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২১:৩৮, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:৫৫, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৯

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নেতৃত্বাধীন প্রশাসনকে ‘সন্ত্রাসীদের আখড়া’ বলে মন্তব্য করলেন ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো। ভেনেজুয়েলার চলমান সংকটে যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করে বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি বলেন, ‘তারা ভেনেজুয়েলা দখল করতে চায়।’

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো

২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকট ভেনেজুয়েলার জনগণকে তাড়িত করেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে। বিক্ষোভের সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধী দলীয় নেতা জুয়ান গুইদো। এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও জার্মানিসহ প্রায় অর্ধশত দেশের স্বীকৃতি পেয়েছেন তিনি। তবে নিজ দেশের শক্তিশালী সেনাবাহিনী এখনও পর্যন্ত মাদুরোর পক্ষে রয়েছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে রাশিয়া, চীন, তুরস্ক, মেক্সিকো ও কিউবার মতো দেশগুলোর সমর্থন পাচ্ছেন তিনি।

সে সময়ই গুইদো ঘোষণা দেন, ভেনেজুয়েলাবাসীর সহায়তায় তিনি আন্তর্জাতিক ‘ত্রাণ সহযোগীদের’ নেটওয়ার্ক বানাবেন। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি তার অনুরোধেই ভেনেজুয়েলাবাসীর জন্য ত্রাণ পাঠিয়েছে ওয়াশিংটন। তবে এই ত্রাণের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র সামরিক আগ্রাসন চালাতে চায় বলে অভিযোগ করেন মাদুরো। তিনি বলেন, এই ত্রাণ প্রবেশে অনুমিত দেবেন না তিনি।

ভেনেজুয়েলার চলমান পরিস্থিতি যুক্তরাষ্ট্র সামরিক পদক্ষেপের কথা ভাবছে ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের পর দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কও ছিন্ন করেছে ভেনেজুয়েলা। বিবিসিকে দেওয়া বিরল সাক্ষাতকারে মাদুরো বলেন, ‘আমি আশা করি হোয়াইট হাউসের সন্ত্রাসীরা বিশ্বের জনমতের কাছে পরাজিত হবে।

মাদুরো বলেন, ‘এটি মার্কিন সাম্রাজ্য, উগ্রবাদী ডানপন্থী, কু ক্লুক্স ক্ল্যান যার হোয়াইট চালায় তাদের ভেনেজুয়েলা দখলের এক রাজনৈতিক যুদ্ধ।’

মাদুরো সরকারের বিরুদ্ধে ‍দুর্নীতি ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে যুক্তরাষ্ট্র তাকে পদত্যাগের জন্য চাপ দিচ্ছে। বেশ কয়েকটি নিষেধাজ্ঞাও জারি করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। ভেনেজুয়েলার আয়ের প্রধান উৎস তেল রফতানির ওপরও নিষেধাজ্ঞার বহাল রয়েছে।

বিগত বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে মাদুরোর সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। মার্কিন বাজারে ভেনেজুয়েলার বাণিজ্যও বন্ধ করা হয়েছে।

দীর্ঘমেয়াদী অর্থনৈতিক যুদ্ধের কবলে পড়ে খাদের কিনারে এসে দাঁড়িয়েছে ভেনেজুয়েলার অর্থনীতি। মার্কিন নিষধাজ্ঞার কবলে পড়ে বছরে হাজার হাজার কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছে তাদের। গ্লোবাল রিসার্চের বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, ওই অর্থনৈতিক ক্ষতির কারণে সৃষ্ট মানবিক সংকটকে সামনে এনেই যুদ্ধের পথ সুগম করতে চাইছে ট্রাম্প প্রশাসন। এতে সাহায্য করছে তাদের মিত্র কলম্বিয়া ও ব্রাজিল। সম্প্রতি গ্লোবাল রিসার্চের বিশ্লেষণে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে, মানবিক সহায়তা দিতে সেনা পাঠিয়ে সেখানে সংঘাত উসকে দেওয়ার চেষ্টা নিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র।

 

/এমএইচ/

লাইভ

টপ