জামিনে মুক্ত ফিলিপাইনের শীর্ষ সাংবাদিক

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:৪৩, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:৪৯, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯

মানহানির অভিযোগে গ্রেফতার ফিলিপাইনের শীর্ষ সাংবাদিক মারিয়া রেসাকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। বুধবার তাকে গ্রেফতারের পর সমালোচনার ঝড় ওঠে। ধারণ করা হয়, প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুয়ের্তের সমালোচনা করায় তাকে গ্রেফতার হতে হয়।

ফিলিপাইনের সাংবাদিক মারিয়া রিসা

সাত বছর আগে এক প্রতিবেদনের সূত্র ধরে রেসার বিরুদ্ধে সর্বশেষ অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই প্রতিবেদনে ফিলিপাইনের শীর্ষ আদালতের সাবেক এক বিচারকের সঙ্গে এক ব্যবসায়ীর অবৈধ যোগাযোগের অভিযোগ তোলা হয়েছিল। ওই প্রতিবেদন প্রকাশের চার মাসের মাথায় ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ফিলিপাইনে কার্যকর করা হয় ‘সাইবার- লাইবেল’ আইন। বিতর্কিত এই আইনে ২০১৭ সালে প্রথমবারের মতো রেসার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। তবে আইন অনুযায়ী এক বছর সময়সীমার মধ্যে অভিযোগ দায়ের না হওয়ায় প্রাথমিকভাবে তা বাতিল করে দেয় এনবিআই। পরে ২০১৮ সালের মার্চ মাসে পুনরায় এই মামলার তদন্ত শুরু হয়।

বিতর্কিত এই অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার ১২ বছরের সাজা হতে পরে। মুক্তি পেয়ে রিসা সাংবাদিকদের বলেন, এই নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো জামিনের আবেদন করে ১ লাখ পেসো জমা দিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘এটা মূলত ক্ষমতার অপব্যবহার ও আইনকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা।’

মারিয়া রিসা বলেন, আমরা দেখছি গণতন্ত্র কিভাবে ক্ষতবিক্ষত হয়ে মৃত্যুবরণ করছে।  ssa, ২০১২ সালে অপর তিন সাংবাদিকের সঙ্গে মিলে র‍্যাপলার প্রতিষ্ঠা করেন মারিয়া রেসা। আক্রমণাত্মক তদন্তের মাধ্যমে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে ফিলিপাইনে পরিচিত হয়ে ওঠে র‍্যাপলার। দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুত্যার্তের প্রকাশ্য সমালোচনা করা অল্প কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের একটি র‍্যাপলার।  বিশেষ করে মাদক বিরোধী যুদ্ধের ভয়াবহতা ও রদ্রিগোর গৃহকর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ প্রকাশ্যে আনে সংবাদমাধ্যমটি। তবে তাদের বিরুদ্ধে ‘ফেইক নিউজ’ প্রকাশের অভিযোগ তুলে রদ্রিগোর অনুষ্ঠানগুলোতে র‍্যাপলার সাংবাদিকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গত বছর র‍্যাপলারের লাইসেন্স প্রত্যাহার করে নেয় ফিলিপাইন। তবে রদ্রিগো দাবি করেন র‍্যাপলার ও রেসার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয়।

ফিলিপাইনের বর্ষীয়ান সাংবাদিক মারিয়া রেসা র‍্যাপলার প্রতিষ্ঠার আগে নিজের ক্যারিয়ারের বেশিরভাগ সময় কাজ করেছেন মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন-এ। প্রথমে ম্যানিলা ও পরে জাকার্তায় সিএনএন-র ব্যুরো চিফ ছিলেন তিনি। দক্ষিণপূর্ব এশিয়ায় মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যমটির হয়ে  সন্ত্রাসবাদ বিরোধী  অনুসন্ধানের নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। নিজের প্রতিবেদনের কারণে বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছেন মারিয়া রেসা।২০১৮ সালে টাইম ম্যাগাজিনের বর্ষসেরা ব্যক্তির তালিকায় স্থান পান তিনি।

পর্যবেক্ষকদের মতে এক সময় এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশি স্বাধীনতা পেয়েছে ফিলিপাইনে সংবাদমাধ্যম। তবে দুত্যার্তের শাসনামলে এই স্বাধীনতা খর্ব হয়েছে।  ১৯৮৬ সাল থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত ১৭৬ জন সাংবাদিক খুন হয়েছেন। সাংবাদিকদের জন্য অন্যতম বিপজ্জনক দেশে পরিণত হয়েছে দেশটি।

/এমএইচ/

লাইভ

টপ