ফেসবুক কর্মীদের কাছে উন্মুক্ত হয়ে পড়েছিল লাখ লাখ পাসওয়ার্ড!

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১২:৪৮, মার্চ ২২, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১২:৫৫, মার্চ ২২, ২০১৯

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের ২০ হাজার কর্মীর কাছে লাখ লাখ ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড উন্মুক্ত হয়ে পড়েছিল। ফেসবুকের তথ্য সুরক্ষা প্রক্রিয়া ব্যর্থ হয়ে পাসওয়ার্ডগুলো উন্মুক্ত হয়ে পড়ে। সাইবার নিরাপত্তাবিষয়ক গবেষক ব্রায়ান ক্রেবস এ তথ্য জানিয়েছেন। তার ভাষ্য অনুযায়ী, এতে অন্তত ৬০ কোটি ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ডগুলো অভ্যন্তরীণ নেটওয়ার্কে গোপনীয়তার বদলে প্লেইন টেক্সট-এ সংরক্ষিত ছিল। যে পাসওয়ার্ডগুলো উন্মুক্ত হয়, সেগুলোর মধ্যে ২০১২ সালের পাসওয়ার্ডও ছিল। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, এরইমধ্যে ‘আকস্মিক এ ত্রুটি’র সমাধান করেছে তারা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

প্রতীকী ছবি
গত বছর ফেসবুক ও যুক্তরাজ্যের গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যামব্রিজ অ্যানালেটিকার বিরুদ্ধে গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্যের অপব্যবহার করার অভিযোগ ওঠে। প্রতিষ্ঠান দুটির বিরুদ্ধে কয়েক কোটি মানুষের ফেসবুক প্রোফাইলে থাকা তথ্যের অপব্যবহারের অভিযোগ আনা হয়। ঘটনার পর ফেসবুক কর্মকর্তারা গ্রাহক তথ্যে ক্যামব্রিজ অ্যানালেটিকার প্রবেশাধিকারের কথা স্বীকার করেন। তবে ফেসবুকের প্রতিশ্রুতি ছিল, ক্যামব্রিজের মতো আর কেউ একই ধরনের প্রবেশাধিকার পাবে না। তারা গ্রাহক তথ্যে অন্যের প্রবেশযোগ্যতা রুখতে তাদের ফিচারে কিছু পরিবর্তন আনার কথাও জানায়। গত সেপ্টেম্বরে ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয় নিরাপত্তা ত্রুটির কারণে প্রায় ৫ কোটি গ্রাহকের অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা। আর এবার ফেসবুকের তথ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা ব্যথ হওয়ার কথা প্রকাশ করলেন সাইবার নিরাপত্তাবিষয়ক গবেষক ব্রায়ান ক্রেবস। 

বিবিসিকে ক্রেবস জানান, এক ফেসবুক সূত্র তাকে ‘নিরাপত্তাজনিত অকার্যকারিতা’র কথা বলেছে। এতে ডেভেলপাররা এমন অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পেরেছিলেন, যা দিয়ে এনক্রিপটিং ছাড়াই পাসওয়ার্ড সংরক্ষণ করা হয়েছিল।

এক বিবৃতিতে ফেসবুক জানিয়েছে, নিয়মিত নিরাপত্তা পর্যালোচনার অংশ হিসেবে জানুয়ারিতে তারা সমস্যাটি শনাক্ত করতে সক্ষম হয়। ক্রেবসের তথ্যের ব্যাপারে ফেসবুক প্রকৌশলী স্কট রেনফ্রো জানান, ত্রুটিটি উন্মোচনের পর পরই ফেসবুক তদন্ত শুরু করেছিল এবং সেখানে কোনও ‘অপব্যবহারের চিহ্ন’ পাওয়া যায়নি।  

ফেসবুকের এক তদন্তে দেখা গেছে, ক্ষতিগ্রস্তদের বেশিরভাগই ফেসবুক লাইট ব্যবহারকারী। যেসব জায়গায় ইন্টারনেটের গতি কম সেখানে মূলত ফেসবুক লাইট ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তদন্তে কোনও ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে অন্য কারও লগ ইন-এর ঘটনা শনাক্ত হলেই কেবল তারা পাসওয়ার্ড রি-সেট করার ওপার জোর দেবেন।

/এফইউ/

লাইভ

টপ