মাদুরোর বিরুদ্ধে যাবতীয় অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক উপাদান ব্যবহার করবে যুক্তরাষ্ট্র

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:২৯, এপ্রিল ১৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৩০, এপ্রিল ১৫, ২০১৯

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোকে জবাবদিহির আওতায় আনতে যাবতীয় অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক উপাদান ব্যবহার করবে যুক্তরাষ্ট্র। রবিবার কলম্বিয়া-ভেনেজুয়েলা সীমান্ত পরিদর্শনকালে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এ ঘোষণা দিয়েছেন। ভেনেজুয়েলা সংকটের জন্য মাদুরোকে জবাবদিহির আওতায় আনার ওপরও জোর দেন তিনি। সোমবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

মাইক পম্পেও

নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ আর অর্থনৈতিক সংকট ভেনেজুয়েলার জনগণকে তাড়িত করেছে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে। বিক্ষোভের সুযোগে গত ২৩ জানুয়ারি নিজেকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করেন বিরোধীদলীয় নেতা হুয়ান গুইদো। এরপরই তাকে স্বীকৃতি দেয় যুক্তরাষ্ট্রসহ ৫০টিরও বেশি দেশ। বিপরীতে মাদুরোকে সমর্থন দেয় তুরস্ক, রাশিয়া ও কিউবার মতো দেশগুলো।

গত মার্চে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা কর্মকর্তা ও প্রায় শ’খানেক সেনাসদস্য বহনকারী দুটি বিমান ভেনেজুয়েলায় অবতরণ করে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভেনেজুয়েলার ক্রমবর্ধমান ‍উত্তেজনার মধ্যেই রাশিয়ান এয়ারফোর্সের বিমানে সেনাদের ভেনেজুয়েলা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় মস্কো।
রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাদুরোকে সমর্থন দেওয়ায় রাশিয়া ও কিউবাকে একহাত নিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, এ সমর্থনের জন্য তাদের মূল্য দিতে হবে।
মাইক পম্পেও বলেন, ভেনেজুয়েলার জনগণের সাহায্যার্থে যুক্তরাষ্ট্র যাবতীয় অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক উপাদান ব্যবহার করবে। নিষেধাজ্ঞা, ভিসা প্রত্যাহার ও অন্যান্য উপায়ে দায়ীদের জবাবদিহির আওতায় আনা হবে। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি, রয়টার্স।

/এমপি/এমওএফ/

লাইভ

টপ