শ্রীলঙ্কার বিস্ফোরণে নিউ জিল্যান্ড হামলার সংযোগ খুঁজছেন প্রধানমন্ত্রীও

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:৪১, এপ্রিল ২৩, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:১৮, এপ্রিল ২৩, ২০১৯

প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রীর পর এবার শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীও বললেন ইস্টার সানডেতে করা হামলা নিউ জিল্যান্ডে মসজিদে করা হামলার প্রতিশোধ হয়ে থাকতে পারে। তবে এই বক্তব্যের সাপেক্ষে কোনও প্রমাণ দেখাতে পারেননি তিনি। মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী রানিল বিক্রমসিংহে এসব কথা বলেন।

শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রানিল বিক্রমসিংহে

১৫ মার্চ (শুক্রবার) ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের সন্দেহভাজন হামলাকারীর লক্ষ্যবস্তু হয় নিউ জিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দু’টি মসজিদ। শহরের হাগলি পার্কমুখী সড়ক ডিনস এভিনিউয়ের আল নুর মসজিদসহ লিনউডের আরেকটি মসজিদে তার তাণ্ডবের বলি হয় অর্ধশত মানুষ। ওই ঘটনার এক মাস পর গত ২১ এপ্রিল (রবিবার) খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ইস্টার সানডে উদযাপনকালে শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো ও তার আশপাশের তিনটি গির্জা, তিনটি হোটেল ও আরও দু’টি এলাকায় আট দফা বিস্ফোরণ চালানো হয়। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৩২১ জনের প্রাণহানির খবর নিশ্চিত করেছে শ্রীলঙ্কা সরকার।

সিরিজ বিস্ফোরণে তদন্তে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, হামলাকারীদের চিহ্নিত করতে দারুণ কাজ করছেন তদন্তকারীরা। হামলাকারীর কয়েকজন বিদেশ গিয়ে আবার ফিরে এসেছে।

পুনরায় এমন হামলা হতে পারে এমন আশঙ্কার ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, ‘কয়েকজন পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। তাদের আটক করতে হবে আমাদের।’

এর আগে দেশটির প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রীও এই হামলার ওপর নিউ জিল্যান্ড হামলার প্রভাবের কথা বলেছিলেন।   মঙ্গলবার পার্লামেন্টের বিশেষ অধিবেশনে বক্তৃতা দিতে গিয়ে প্রতিমন্ত্রী বিজয়বর্ধন বলেন, ‘প্রাথমিক তদন্ত থেকে জানা গেছে, ‘ক্রাইস্টচার্চে মুসলিমদের ওপর হামলার বদলা হিসেবে শ্রীলঙ্কায় হামলা হয়েছে।’ ন্যাশনাল তাওহিদ জামাত (এনটিজে) নামক একটি উগ্রপন্থী ইসলামি সংগঠন ওই সিরিজ বোমা হামলা চালিয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানতে পারার কথা উল্লেখ করেন তিনি। তবে মঙ্গলবার মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস’র পক্ষ থেকে শ্রীলঙ্কায় হামলার দায় স্বীকার করা হয়েছে। নিজেদের কথিত বার্তা সংস্থা আমাক-এ দায় স্বীকার করে বিবৃতি প্রকাশ করেছে সংগঠনটি। তবে আইএস তাদের দাবির পক্ষে কোনও প্রমাণ উপস্থাপন করেনি।

 

/এমএইচ/

লাইভ

টপ