৫ দিনের ব্যবধানে উ. কোরিয়ার দ্বিতীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২০:০২, মে ০৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২১:০১, মে ০৯, ২০১৯

এক সপ্তাহেরও কম সময়ের ব্যবধানে দ্বিতীয়বারের মতো দুটি স্বল্পপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে উত্তর কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর কুসোং থেকে উৎক্ষেপণ করা ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ৪২০ কিলোমিটার ও ২৭০ কিলোমিটার ‍পূর্বে গিয়ে আঘাত হানে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, পারমাণবিক আলোচনার অচলাবস্থা কাটাতে এক মার্কিন দূত দক্ষিণ কোরিয়ায় অবস্থানের সময়েই এই ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করলো উত্তর কোরিয়া। বিশ্লেষকরা বলছেন, ঐক্যমতে পৌঁছাতে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চাপ সৃষ্টির চেষ্টা করছে উত্তর কোরিয়া।

৪ মে ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ তদারকি করেন উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন


ফেব্রুয়ারিতে ভিয়েতনামে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের বৈঠক কোনও চুক্তি ছাড়াই শেষ হওয়ার পর ক্রমেই অধৈর্য হয়ে ওঠে পিয়ংইয়ং। কিম বাজে চুক্তির প্রস্তাব দিয়েছেন বলে অভিহিত করে বৈঠক ছেড়ে বেরিয়ে যান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গত মাসে কৌশলগত নিয়ন্ত্রিত অস্ত্র পরীক্ষার কথা স্বীকার করে পিয়ংইয়ং। গত ৪ মে দক্ষিণ কোরিয়ার তরফে জানানো হয়, উত্তর কোরিয়া বেশ কয়েকটি স্বল্পপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে। তার এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো দুটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কথা জানালো তারা।

দক্ষিণ কোরিয়ার তরফে জানানো হয়েছে, স্থানীয় সময় সাড়ে চারটার দিকে ক্ষেপণাস্ত্র দুটি উৎক্ষেপণ করা হয়। প্রায় ৫০ কিলোমিটার উচ্চতা দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র দুটি সাগরে পড়ে বলে এক বিবৃতিতে জানান দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ। বিবৃতিতে বলা হয়, রাজধানী পিয়ংইয়ং থেকে প্রায় ১৬০ কিলোমিটার দূরের কুসোং শহর থেকে ক্ষেপণাস্ত্র দুটি উৎক্ষেপণ করা হয়। মার্কিন গোয়েন্দাদের সহায়তায় বিস্তারিত বিশ্লেষণের চেষ্টা চলছে বলে ওই বিবৃতিতে জানানো হয়।

গত বছর পারমাণবিক পরীক্ষা বন্ধ এবং আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা না চালানোর ঘোষণা দেয় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হয় একটি পারমাণবিক স্থাপনা। তারপরও বিশ্লেষকদের আশঙ্কা, পারমাণবিক বোমার জ্বালানি তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। পিয়ংইয়ং দাবি করে থাকে, দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রে বহনযোগ্য ছোট আকারের পারমাণবিক বোমা তৈরিতে সক্ষম হয়েছে তারা।

বৃহস্পতিবার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের আগে উত্তর কোরিয়া বিষয়ক বিশেষ মার্কিন দূত স্টিফেন বাইগুন দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউল পৌঁছান। ভিয়েতনামের ব্যর্থতার পর পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ আলোচনা সঠিক পথে ফেরানোর উপায় নিয়ে আলোচনা করতে এসেছেন তিনি। আশা করা হচ্ছে উত্তর কোরিয়ায় মানবিক সহায়তা দেওয়ার উপায় নিয়ে আলোচনা করবেন তিনি। এক দশকের মধ্যে উত্তর কোরিয়ায় সবচেয়ে কম খাদ্য উৎপাদনের খবর প্রকাশের পর এমন উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।

/জেজে/এমওএফ/

লাইভ

টপ