ট্রাম্পের জরুরি অবস্থা ঘোষণার ফল ভালো হবে না: হুয়াওয়ে

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৪:০০, মে ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৪:০৪, মে ১৬, ২০১৯

বিদেশি প্রতিপক্ষের প্রযুক্তি নিষিদ্ধ করতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেওয়া অর্থনৈতিক জরুরি অবস্থার ঘোষণাকে ‘অযৌক্তিক’ আখ্যা দিয়েছে চীনভিত্তিক প্রযুক্তি জায়ান্ট হুয়াওয়ে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস-এ প্রকাশিত এক বিবৃতিতে ট্রাম্প প্রশাসনের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। তাদের দাবি, এ সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র নিরাপদ কিংবা শক্তিশালী হয়ে যাবে না।

প্রতীকী ছবি
বিদেশি প্রতিপক্ষের হাত থেকে কম্পিউটার নেটওয়ার্ক সুরক্ষিত করতে বুধবার (১৫ মে) অর্থনৈতিক জরুরি অবস্থা ঘোষণার নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন ট্রাম্প। নির্বাহী আদেশে কোনও বিদেশি কোম্পানি বা দেশের নাম উল্লেখ করা না হলেও পূর্বে মার্কিন কর্মকর্তারা হুয়াওয়ে-কে হুমকি আখ্যা দিয়েছিলেন। পরবর্তী প্রজন্মের ৫জি নেটওয়ার্কে প্রতিষ্ঠানটির পণ্য ব্যবহার না করতে মিত্র দেশগুলোকেও সতর্ক করেছিলেন কর্মকর্তারা।

এক বিবৃতিতে হুওয়াওয়ে বলেছে, ‘হুওয়াওয়ে-র ওপর কড়াকড়ি আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র আরও বেশি নিরাপদ হয়ে উঠবে না, এর মধ্য দিয়ে দেশটি শক্তিশালীও হয়ে যাবে না। বরং এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কেবল নিম্নমানের ও ব্যয়বহুল বিকল্প পণ্য ব্যবহারে বাধ্য হবে, অন্য দেশের তুলনায় পিছিয়ে পড়বে আর চূড়ান্তভাবে মার্কিন প্রতিষ্ঠান ও ভোক্তারা ক্ষতিগ্রস্থ হবে’।

বেইজিং-ওয়াশিংটন বাণিজ্য যুদ্ধের মধ্যে আইটি হুমকি মোকাবিলায় বুধবার জরুরি অবস্থা জারি করেন ট্রাম্প। ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশে বলা হয়েছে, জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে এমন কোনও বিদেশি টেলিকম প্রযুক্তি ব্যবহার করতে পারবে না মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলো। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশ হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে চীনের হয়ে নজরদারি চালানোর অভিযোগ তুলেছে। চীনা কোম্পানিটি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে।

যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণার পর হুয়াওয়ে-র বিবৃতিতে পণ্যের সুরক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা অব্যাহত রাখার ইচ্ছার কথা বলা হয়েছে। যুক্তরাজ্যকেও প্রতিষ্ঠানটি একই আশ্বাস দিয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম গার্ডিয়ান।

ইন্টারন্যাশনাল ইমারজেন্সি ইকোনোমিক পাওয়ার অ্যাক্ট ব্যবহার করে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন ট্রাম্প। এই আইনে যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকির মুখে ফেলে এমন পরিস্থিতিতে বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করতে পারেন প্রেসিডেন্ট। এই আদেশের মাধ্যমে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সরকারের অন্য সংস্থাগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করে ১৫০ দিনের মধ্যে একটি পরিকল্পনা প্রণয়ন করবে। বুধবার ট্রাম্পের আদেশের পর বাণিজ্য মন্ত্রণালয় হুয়াওয়েসহ ৭০টি অনুমোদিত প্রতিষ্ঠানকে তালিকাভুক্ত করেছে। এই তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো সরকারি অনুমোদন ছাড়া মার্কিন প্রতিষ্ঠান থেকে কোনও প্রযুক্তি ও উপকরণ সংগ্রহ করতে পারবে না।

ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের প্রতিক্রিয়ায় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রাণালয়ের মুখপাত্র গেং সুহাং বলেছেন, নির্দিষ্ট চীনা কোম্পানির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপ মর্যাদাহানিকর আর অন্যায্য। তিনি বলেন, আমরা মার্কিন পক্ষকে পূর্ব নির্ধারিত নিরাপত্তা উদ্বেগের কারণে চীনা কোম্পানির বিরুদ্ধে নিপীড়নমূলক ব্যবস্থা নেওয়া বন্ধের আহ্বান জানাচ্ছি। এবং তাদের স্বাভাবিক বিনিয়োগ আর কার্যক্রম পরিচালনার জন্য একটি যথাযথ, ন্যায্য এবং বৈষম্যহীন পরিবেশ নিশ্চিতের অনুরোধ করছি।

 

/জেজে/এফইউ/

লাইভ

টপ