গান্ধীর খুনিকে দেশপ্রেমিক বললেন বিজেপি নেত্রী

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৯:১৩, মে ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১৫, মে ১৬, ২০১৯

‘মহাত্মা গান্ধীর খুনি নাথুরাম গডসে একজন দেশপ্রেমিক। যারা তাকে সন্ত্রাসবাদী বলছেন, ভোটের ফল প্রকাশের পর তাদের সমুচিত জবাব দেওয়া হবে।’ বৃহস্পতিবার এমনটাই মন্তব্য করেছেন ভারতের লোকসভা নির্বাচনে দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপি-র প্রার্থী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুর।

এক প্রশ্নের ‍উত্তরে তিনি বলেন, নাথুরাম গডসে একজন দেশপ্রেমিক। যারা তাকে সন্ত্রাসবাদী বলছেন, নির্বাচনে মানুষ তাদের উচিত জবাব দেবে।

বিজেপি-র পক্ষ থেকে অবশ্য দলীয় প্রার্থীর এমন মন্তব্যের সমালোচনা করা হয়েছে। দলটির মুখপাত্র জিভিএল নরসিমা রাও বলেছেন, বিজেপি এ মন্তব্যের সঙ্গে একমত নয়, আমরা এর নিন্দা করছি। এ ব্যাপারে দল তার কাছে ব্যাখ্যা চাইবে, এই মন্তব্যের জন্য তার সবার সামনে ক্ষমা চাওয়া উচিত।

গডসে নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত দক্ষিণ ভারতীয় চলচ্চিত্রের সুপারস্টার পিপলস জাস্টিস পার্টি-র প্রতিষ্ঠাতা কমল হাসানের এক বক্তব্যের প্রেক্ষিতে। তিনি গডসের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মন্তব্য করেছিলেন ভারতের প্রথম উগ্রপন্থী ছিল একজন হিন্দু। তার ওই বক্তব্যের প্রতিবাদে মুখর হয় বিজেপিসহ ভারতের বিভিন্ন উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন।

নিজের বক্তব্যের সমর্থনে বুধবার কমল হাসান বলেছেন, তিনি যা বলেছেন তা ঐতিহাসিক সত্যনির্ভর। তার অভিযোগ, তার ভাষণের অংশবিশেষ বাছাই করে তা সম্পাদনা করা হয়েছে।

কমল হাসানের ভাষায়, ‘উগ্রপন্থী কথাটার অর্থ বুঝুন। আমি সন্ত্রাসবাদী বা খুনি, এরকম শব্দ ব্যবহার করতে পারতাম… আমাদের রাজনীতি সক্রিয় রাজনীতি, এখানে কোনও রকম সন্ত্রাস থাকবে না।’

বিজেপি নেত্রী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের জন্য অবশ্য বিতর্কের জন্ম দেওয়া নতুন কিছু নয়। এর আগে তিনি বলেছিলেন, পুলিশ কর্মকর্তা হেমন্ত কাকার তার ওপর অত্যাচার চালানোয় তাকে অভিশাপ দিয়েছিলেন তিনি। আর ওই অভিশাপের জেরেই মুম্বাইয়ের সন্ত্রাসী হামলায় নিহত হয় ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

বহুল আলোচিত মালেগাঁও বিস্ফোরণে মূল অভিযুক্ত হিসেবে উঠে আসে প্রজ্ঞা ঠাকুরের নাম। ওই ঘটনায় নিহত হন ছয় জন। আহত হন ১০০ জন। সেই সময় বিষয়টিকে হিন্দু সন্ত্রাস হিসেবে আখ্যায়িত করতো কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন তৎকালীন ইউপিএ সরকার। বর্তমানে মুম্বাইয়ের একটি আদালতে প্রজ্ঞার বিচার চলছে। তিনি আপাতত জামিনে বাইরে আছেন। সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।

/এমপি/

লাইভ

টপ