বুথফেরত জরিপের পর সোনিয়ার সঙ্গে বৈঠকে অস্বীকৃতি মায়াবতীর

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১২:৫৮, মে ২০, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৫৫, মে ২০, ২০১৯

ভারতে এবারের লোকসভা নির্বাচনের বুথফেরত জরিপে ঢেউ তুলেছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। দুই বুথফেরত জরিপে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে আবারও বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোটের ক্ষমতায় আসার আভাস পাওয়া গেছে। আর জরিপের এমন ফল সামনে আসতেই বড় ধরনের ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি-বিরোধী একটি বৃহৎ জোট গঠনের প্রক্রিয়া। এরইমধ্যে মায়াবতীর দল উত্তরপ্রদেশের বহুজন সমাজবাদী পার্টি (বিএসপি) সাফ জানিয়ে দিয়েছে, কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে তাদের নেত্রীর বৈঠকের কোনও সম্ভাবনা নেই।

সোমবার বিএসপি নেতা সতিশ চন্দ্র মিশ্র বার্তা সংস্থা এএনআই’কে বলেছেন, ‘আজ মায়াবতীর দিল্লিতে কোনও কর্মসূচি বৈঠক নেই। তিনি লক্নৌতে থাকবেন।’

বুথফেরত জরিপের ফল প্রকাশ্যে আসার পর মায়াবতীর দলের এমন অবস্থান নিঃসন্দেহে প্রাসঙ্গিক। এর আগে অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে দিল্লি ছুটে এসে সপ্তম দফার ভোট শেষের আগেই জাতীয় পর্যায়ের একাধিক নেতানেত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে বিরোধী দুর্গ পোক্ত করার চেষ্টা করেছিলেন তেলেগু দেশম পার্টির নেতা, অন্ধ্র প্রদেশের চন্দ্রবাবু নাইডু। সেই দুর্গে মায়াবতীরও প্রবেশের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। তবে বুথফেরত জরিপে উল্টো হাওয়া বইতে শুরু করায় দৃশ্যত মায়াবতীর দলও আর বিজেপি-বিরোধী জোটে আস্থা রাখতে পারছে না।
এদিকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, এই কথিত বুথফেরত জরিপ বিজেপির চক্রান্তের ফসল। বিরোধীদের মনোবল নষ্ট করে দিয়ে, জোটের সম্ভাবনা আটকে দিতেই এভাবে বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে বুথফেরত জরিপের ফল প্রকাশ করাচ্ছে নরেন্দ্র মোদির সরকার।

টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে মমতা বলেন, ‘আমি বুথফেরত জরিপের রটনায় বিশ্বাস করি না। এটা একটা গেম প্ল্যান, যাতে এই রটনার মাধ্যমে হাজার হাজার ইভিএম বদলে দেওয়া যায়। আমি সব বিরোধী দলকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আবেদন জানাচ্ছি। শক্তিশালী থাকুন। আমরা সবাই একসঙ্গে লড়াই করবো।’

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংও বুথফেরত জরিপ প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, এর সত্যতা প্রশ্নবিদ্ধ। তিনি বলেন, আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি বলতে পারি, পাঞ্জাবে গিয়ে আমি নিজেও ভোটারদের মনোভাব বুঝতে পারবো না। তাহলে জরিপ কীভাবে ঠিক হয়।

কংগ্রেস মিত্র ও ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আব্দুল্লাহ অবশ্য বলেছেন, সবক’টি বুথফেরত জরিপ ভুল হতে পারে না। তার ভাষায়, এখন টিভি বন্ধ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে বের হয়ে ২৩ তারিখের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

অন্যদিকে নির্বাচনে বুথফেরত জরিপই সব নয় বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতি ভেনকাইয়া নাইডু। তিনি বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে, ১৯৯৯ সালের পর থেকে সবক’টি বুথফেরত জরিপের ফলাফলই ভুল এসেছে। এটি প্রকৃত অর্থ বহন করে না। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া, নিউজ ১৮।

/এমপি/এমওএফ/

লাইভ

টপ