সরকার গঠন নিয়ে আলোচনায় রাষ্ট্রপতি ভবনে যাচ্ছেন মোদি

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১৮:৩৯, মে ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:১৩, মে ২৫, ২০১৯

নতুন সরকার গঠন নিয়ে আলোচনা করতে ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবন রাইসিনা হিলসে যাচ্ছেন বিজেপি নেতা নরেন্দ্র মোদি। শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার সেখানে যাওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে এ ব্যাপারে তার বিস্তারিত কথা হবে। নতুন সরকার গঠনের পরিকল্পনার বিষয়ে রামনাথকে অবহিত করবেন মোদি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বৈঠকে বিজেপির পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতির কাছে সরকার গঠনের দাবি তোলা হবে। এর আগে শুক্রবার প্রথা অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা পদত্যাগ করে। সেই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাষ্ট্রপতি। এরপরই নতুন সরকার গঠনের পক্রিয়া শুরু হয়। প্রথমেই ১৬তম লোকসভা ভেঙে দেন রাষ্ট্রপতি। রাইসিনা হিলসের তরফে বিবৃতি দিয়ে সে কথা জানিয়ে দেওয়া হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কেন্দ্রীয় কেবিনেটের সুপারিশ মেনে রাষ্ট্রপতি ১৬তম লোকসভা ভেঙে দিয়েছেন।

নতুন করে আরও পাঁচ বছর সরকার চালানোর জন্য শপথ নেওয়ার আগে ইস্তফা দিয়েছেন মোদি। আর সাংবিধানিক রীতি মেনে তাকে কেয়ারটেকার সরকার চালিয়ে যেতে অনুরোধ করেছেন রাষ্ট্রপতি। এখন সেভাবেই চলছে সরকার।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে মোদির সাক্ষাতের আগে শনিবার বৈঠকে বসবেন বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের নির্বাচিত এমপিরা। দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, এই বৈঠকে নেতা নির্বাচিত হলে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে রাষ্ট্রপতির কাছে সরকার গঠনের অনুমতি চাইবেন নরেন্দ্র মোদি। অনুমতি পাওয়ার পর আগামী সরকারের শপথ অনুষ্ঠানের দিন নির্ধারণ করা হবে।

সাত দফায় অনুষ্ঠিত ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনা হয় গত ২৩ মে। এদিন নির্বাচন কমিশনের দেওয়া ফল অনুযায়ী ৫৪২টি আসনের মধ্যে ৩৫১টি আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। নিরঙ্কুশ এই জয়ের পর শুক্রবার মন্ত্রিসভার সদস্যদের নিয়ে রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ সময় প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিসভার সদস্যরা নিজেদের পদত্যাগপত্র জমা দেন। রাষ্ট্রপতি তাদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করে  নতুন সরকার দায়িত্ব নেওয়ার আগ পর্যন্ত কাজ চালিয়ে নেওয়ার অনুরোধ করেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, শনিবার স্থানীয় সময় বিকেল পাঁচটায় পার্লামেন্টের সেন্ট্রাল হলে বৈঠকে বসবেন এনডিএ জোটের নির্বাচিত এমপিরা। নবনির্বাচিত এমপিদের উদ্দেশে সেখানে ভাষণ দেবেন মোদি। বিজেপি নেতারা বলছেন, এই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী পদে মোদির পুনর্নির্বাচন হবে আনুষ্ঠানিকতা মাত্র। কারণ আগেই তাকে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী ঘোষণা করে রেখেছে এনডিএ জোট।

এনডিএ জোটের সংসদ সদস্যদের বৈঠক শেষে পার্লামেন্টের অ্যানেক্স ভবনে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। ওই বৈঠকে জোটকে আবারও নিরঙ্কুশ জয় উপহার দেওয়ায় মোদিকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রস্তাব পাস করবেন মন্ত্রীরা।

নিজস্ব সূত্রের বরাতে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, আগামী ৩০ মে রাষ্ট্রপতি ভবনে অনুষ্ঠিত হতে পারে নতুন সরকারের শপথ অনুষ্ঠান। অবশ্য শপথ নেওয়ার আগেই নিজের আসন বারানসি সফর করে ভোটারদের ধন্যবাদ জানাতে পারেন মোদি।

২০১৪ সালে প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার অনুষ্ঠানে প্রতিবেশি আট দেশের সরকার প্রধানদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন মোদি। দরবার হলে শপথের রেওয়াজ ভেঙে রাষ্ট্রপতি ভবনের সামনের খোলা মাঠে শপথ নিয়েছিলেন তিনি।

ভারতের সংবিধান অনুযায়ী আগামী ৩ জুনের আগেই ১৭তম লোকসভা গঠন করতে হবে। নির্বাচন কমিশন রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করে নবনির্বাচিত এমপিদের তালিকা হস্তান্তরের পরই নতুন লোকসভা গঠনের কার্যক্রম শুরু হবে।

/এমপি/

লাইভ

টপ