ভারতে ফের ‘গো-রক্ষকদের’ তাণ্ডব, নারীকে জুতাপেটা

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:০৩, মে ২৫, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:০৪, মে ২৫, ২০১৯

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ফের ক্ষমতায় আসার ইঙ্গিত মিলতেই নতুন উদ্যমে শুরু হয়েছে ‘গো-রক্ষকদের’ তাণ্ডব। মধ্যপ্রদেশের সিওনি এলাকায় গরুর মাংস বহনের অভিযোগে এক মুসলমান দম্পতিসহ চারজনকে মারধর করা হয়েছে। সেই ঘটনা আবার ভিডিও করা হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার দিন সেটি ফেসবুকে পোস্ট করে শুভম সিং নামের স্বঘোষিত এক গো-রক্ষক। এরইমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে ওই ভিডিও। যেখানে দেখা গেছে, তিন পুরুষকে গাছের সঙ্গে বেঁধে বেধড়ক মারধর এবং এক নারীকে জুতাপেটা করা হচ্ছে। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মধ্যপ্রদেশের সিওনি এলাকায় গরুর মাংস নিয়ে যাওয়ার সময় এ বর্বরতার শিকার হন এক মুসলিম দম্পতিসহ চারজন। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, স্বঘোষিত গো-রক্ষকরা মারধরের পাশাপাশি জয় শ্রী রাম ধ্বনি উচ্চারণ করছে।

পুলিশ জানিয়েছে, ভিডিওটি চার দিন আগে ধারণ করা হয়েছে। এই ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। স্থানীয় আদালত তাদের কারা হেফাজতে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এই ঘটনায় শুভম সিং নামের আরও এক ব্যক্তি জড়িত আছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। নির্বাচনের ফল ঘোষণার দিন তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টেই প্রথম ভিডিওটি পোস্ট করা হয়। পরে বিষয়টি অন্যদিকে মোড় নিচ্ছে আঁচ করতে পেরে ভিডিওটি ডিলিট করে দেয় শুভম।

মারধরের ঘটনাটি ২২ তারিখের। এক মুসলমান দম্পতিসহ চারজন অটোতে করে যাচ্ছিলেন। তাদের সঙ্গে গরুর মাংস ছিল। সে সময় কয়েকজন যুবক তাদের পথ আটকে দাঁড়ায় এবং জয় শ্রীরাম স্লোগান দিতে থাকে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিও-তে দেখা যায়, অটো ধরে বিক্ষোভ চলছে এবং ওই চারজনকে মারধর করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ভারতের ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দলটির উগ্র হিন্দুত্ববাদী নেতাকর্মীরা স্বঘোষিত গো-রক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়। গরু জবাই ও গরুর মাংস খাওয়ার অপরাধে হামলা এবং বর্বরোচিত হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনাও ঘটেছে দেশটিতে। একাধিক মুসলিম গরু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার মতো পৈশাচিক ঘটনারও জন্ম দিয়েছে বিজেপি-আরএসএস-এর গো-রক্ষকরা।

/এমপি/

লাইভ

টপ